রাশিয়াকে যে প্রস্তাব দিল নেপাল
jugantor
রাশিয়াকে যে প্রস্তাব দিল নেপাল

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৯:৩৪:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার সঙ্গে নিজস্ব মুদ্রায় বাণিজ্যের প্রস্তাব দিয়েছে নেপাল। রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

রাশিয়ায় নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত মিলন রাজ তুলাধর আরআইএ নভোস্তিকে বলেন, মস্কো এবং কাঠমান্ডু জাতীয় মুদ্রায় পারস্পরিক লেনদেনের জন্য একটি প্রক্রিয়া তৈরি করতে পারে।

তিনি বলেন, অন্যদের না জড়িয়ে আমাদের নিজস্ব মুদ্রার উপর ভিত্তি করে একটি বিনিময় বাণিজ্য হবে। নেপাল এবং রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর মধ্যে ব্যাংকিং সহযোগিতা হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রাজ তুলাধর মনে করেন, মস্কো এবং নয়াদিল্লির মধ্যে একটি ব্যবস্থা তৈরি করা সম্ভব যেখানে রুপি এবং রুবেল ব্যবহার করে বাণিজ্য করা যাবে।

তুলাধার আরও বলেন, নেপাল রাশিয়ান সার এবং প্রযুক্তিগত সরঞ্জাম কিনতে আগ্রহী। বিনিময়ে তারা রাশিয়ায় চা এবং চামড়াজাত পণ্য সরবরাহ করতে পারে।

তিনি বলেন, বর্তমানে রাশিয়া ও নেপালের মধ্যকার বাণিজ্যের পরিধি কম। কিন্তু যদি রাশিয়া ও নেপালের মধ্যে সরাসরি বিমান চলাচল শুরু হয়, তাহলে নিশ্চিতভাবেই আরও বাণিজ্যের ক্ষেত্র খুলে যাবে।

রাজ তুলাধর বলেন, উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, আমাদের রাশিয়ার সার দরকার। আমরা কৃষিকাজে নিয়োজিত, তাই আমাদের প্রচুর সারের প্রয়োজন। একইভাবে, আমরা রাশিয়ায় চা রপ্তানি বাড়াতে পারি কারণ রাশিয়ানরা চা পছন্দ করে।

রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্য গড়ে তোলা নেপালের জন্য সুবিধাজনক হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রাশিয়াকে যে প্রস্তাব দিল নেপাল

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার সঙ্গে নিজস্ব মুদ্রায় বাণিজ্যের প্রস্তাব দিয়েছে নেপাল। রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

রাশিয়ায় নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত মিলন রাজ তুলাধর আরআইএ নভোস্তিকে বলেন, মস্কো এবং কাঠমান্ডু জাতীয় মুদ্রায় পারস্পরিক লেনদেনের জন্য একটি প্রক্রিয়া তৈরি করতে পারে। 

তিনি বলেন, অন্যদের না জড়িয়ে আমাদের নিজস্ব মুদ্রার উপর ভিত্তি করে একটি বিনিময় বাণিজ্য হবে। নেপাল এবং রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর মধ্যে ব্যাংকিং সহযোগিতা হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

রাজ তুলাধর মনে করেন, মস্কো এবং নয়াদিল্লির মধ্যে একটি ব্যবস্থা তৈরি করা সম্ভব যেখানে রুপি এবং রুবেল ব্যবহার করে বাণিজ্য করা যাবে। 

তুলাধার আরও বলেন, নেপাল রাশিয়ান সার এবং প্রযুক্তিগত সরঞ্জাম কিনতে আগ্রহী। বিনিময়ে তারা রাশিয়ায় চা এবং চামড়াজাত পণ্য সরবরাহ করতে পারে।

তিনি বলেন, বর্তমানে রাশিয়া ও নেপালের মধ্যকার বাণিজ্যের পরিধি কম। কিন্তু যদি রাশিয়া ও নেপালের মধ্যে সরাসরি বিমান চলাচল শুরু হয়, তাহলে নিশ্চিতভাবেই আরও বাণিজ্যের ক্ষেত্র খুলে যাবে। 

রাজ তুলাধর বলেন, উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, আমাদের রাশিয়ার সার দরকার। আমরা কৃষিকাজে নিয়োজিত, তাই আমাদের প্রচুর সারের প্রয়োজন। একইভাবে, আমরা রাশিয়ায় চা রপ্তানি বাড়াতে পারি কারণ রাশিয়ানরা চা পছন্দ করে।

রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্য গড়ে তোলা নেপালের জন্য সুবিধাজনক হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা