নতুন প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মেলোনি, ইতালিতে আতঙ্কে অভিবাসীরা
jugantor
নতুন প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মেলোনি, ইতালিতে আতঙ্কে অভিবাসীরা

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:২৮:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ইতালির পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন ব্রাদার্স অব ইতালির জর্জিয়া মেলোনি।

এর মাধ্যমে ইতালি তার রাজনৈতিক ইতিহাসে প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে।

জর্জিয়া মেলোনি হলেন একজন উগ্র ডানপন্থি রাজনীতিবীদ। তিনি ক্ষমতায় আসার মাধ্যমে দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর ইতালিতে এবারই প্রথমবারের মতো কোনো উগ্র ডানপন্থি ক্ষমতাসীন হচ্ছে।

জর্জিয়া মেলোনির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খবরে আতঙ্কে আছেন ইতালির বিদেশী অভিবাসীরা। তাছাড়া যারা ইতালিতে অভিবাসনপ্রত্যাশী আছেন তারাও এখন উদ্বিগ্ন হয়ে পরেছেন।

কেন? কারণ জর্জিয়া মেলোনি একজন কট্টোর অভিবাসী বিরোধী ব্যক্তি। তিনি একবার বলেছিলেন, লিবিয়া হয়ে আফ্রিকার কেউ যেন ইতালিতে প্রবেশ না করতে পারে সেজন্য নৌবাহিনী মোতায়েন করবেন।

তার মতে, ইতালিতে বেকারত্ব এবং যেসব অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সংঘটিত হচ্ছে সেগুলো করছে বিদেশী অভিবাসীরা।

গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, জর্জিয়া মেলোনির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খবরে আতঙ্কে আছেন বাংলাদেশী অভিবাসীরাও। সেখানে অবস্থানরতম বাংলাদেশীরা বলছেন, অভিবাসীদের জন্য কড়াকড়ি নিয়ম ও আইন প্রণয়ন করতে পারেন মেলোনি। এতে করে তাদের জীবন কঠিন হয়ে যাবে।

তাদের আশঙ্কা, যারা এখনো ইতালিতে স্থায়ী হতে পারেননি তাদের জীবন আরও কঠিন হয়ে যাবে বা অনেককে ফিরিয়ে দেওয়া হতে পারে।

শুধু যে অভিবাসীরা আতঙ্কে আছেন তা নয়, জর্জিয়া মেলোনির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খবরে নাখোশ খোদ ইউরোপের দেশগুলোই। কারণ ইউরোপীয় ইউনিয়নে সবার আগে ইতালির স্বার্থ দেখবেন। অনেকটা হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবানের মতো।

সূত্র: স্কাই নিউজ, বিবিসি

নতুন প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন মেলোনি, ইতালিতে আতঙ্কে অভিবাসীরা

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইতালির পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন ব্রাদার্স অব ইতালির জর্জিয়া মেলোনি। 

এর মাধ্যমে ইতালি তার রাজনৈতিক ইতিহাসে প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে। 

জর্জিয়া মেলোনি হলেন একজন উগ্র ডানপন্থি রাজনীতিবীদ। তিনি ক্ষমতায় আসার মাধ্যমে দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর ইতালিতে এবারই প্রথমবারের মতো কোনো উগ্র ডানপন্থি ক্ষমতাসীন হচ্ছে। 

জর্জিয়া মেলোনির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খবরে আতঙ্কে আছেন ইতালির বিদেশী অভিবাসীরা। তাছাড়া যারা ইতালিতে অভিবাসনপ্রত্যাশী আছেন তারাও এখন উদ্বিগ্ন হয়ে পরেছেন। 

কেন? কারণ জর্জিয়া মেলোনি একজন কট্টোর অভিবাসী বিরোধী ব্যক্তি। তিনি একবার বলেছিলেন, লিবিয়া হয়ে আফ্রিকার কেউ যেন ইতালিতে প্রবেশ না করতে পারে সেজন্য নৌবাহিনী মোতায়েন করবেন।  

তার মতে, ইতালিতে বেকারত্ব এবং যেসব অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সংঘটিত হচ্ছে সেগুলো করছে বিদেশী অভিবাসীরা। 

গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, জর্জিয়া মেলোনির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খবরে আতঙ্কে আছেন বাংলাদেশী অভিবাসীরাও। সেখানে অবস্থানরতম বাংলাদেশীরা বলছেন, অভিবাসীদের জন্য কড়াকড়ি নিয়ম ও আইন প্রণয়ন করতে পারেন মেলোনি। এতে করে তাদের জীবন কঠিন হয়ে যাবে। 

তাদের আশঙ্কা, যারা এখনো ইতালিতে স্থায়ী হতে পারেননি তাদের জীবন আরও কঠিন হয়ে যাবে বা অনেককে ফিরিয়ে দেওয়া হতে পারে। 

শুধু যে অভিবাসীরা আতঙ্কে আছেন তা নয়, জর্জিয়া মেলোনির প্রধানমন্ত্রী হওয়ার খবরে নাখোশ খোদ ইউরোপের দেশগুলোই। কারণ ইউরোপীয় ইউনিয়নে সবার আগে ইতালির স্বার্থ দেখবেন। অনেকটা হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবানের মতো।  

সূত্র: স্কাই নিউজ, বিবিসি

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন