যে কারণে লাইমান থেকে পিছু হটল রুশ সেনারা
jugantor
যে কারণে লাইমান থেকে পিছু হটল রুশ সেনারা

  যুগান্তর ডেস্ক  

০২ অক্টোবর ২০২২, ১৮:২৪:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়া অধিকৃত দোনেৎস্কের গুরুত্বপূর্ণ লাইমান শহর থেকে পিছু হটেছে রুশ সেনারা। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শনিবার জানিয়েছে, লাইমান শহর থেকে সেনাদের চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে তারা।

এরপরই ইউক্রেনের সেনাদের লাইমান শহরে পতাকা ওড়াতে দেখা যায়। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, শহরের প্রবেশ পথে ইউক্রেনের সৈন্যরা দেশটির নীল-হলুদ রাষ্ট্রীয় পতাকা উত্তোলন করছে।

কেন লাইমান শহর থেকে রুশ সেনাদের সরানোর সিদ্ধান্ত নিল রাশিয়া?

এ বিষয়ে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, লাইমানে অবস্থিত রুশ সেনাদের যেন ইউক্রেনের সেনারা 'ঘিরে ফেলতে না' পারে সেজন্য এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, অবরুদ্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে মিত্র সেনাদের ক্রাসনি লাইমান থেকে সরিয়ে আরও ভালো অবস্থানের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরেই লাইমান শহরটির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল ইউক্রেনের সেনারা৷ তখন থেকেই আশঙ্কা করা হচ্ছিল রুশ সেনাদের হাত থেকে শহরটি হাতছাড়া হয়ে যাবে।

গত মে মাসের শেষে দিকে দোনেৎস্কের গুরুত্বপূর্ণ শহর লাইমান দখলের পর রাশিয়ার সৈন্যরা এটিকে গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যবহার করছে।

রাশিয়ান সৈন্যরা শহরটিকে তাদের লজিস্টিক সাপোর্ট ও অস্ত্রের সরবরাহের প্রধান কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলে।

শুধু তাই নয়, লাইমান শহরটি দোনেৎস্ক, লুহানস্ক ও খারকিভ অঞ্চলের রেল যোগাযোগের জন্যও খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

যে কারণে লাইমান থেকে পিছু হটল রুশ সেনারা

 যুগান্তর ডেস্ক 
০২ অক্টোবর ২০২২, ০৬:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়া অধিকৃত দোনেৎস্কের গুরুত্বপূর্ণ লাইমান শহর থেকে পিছু হটেছে রুশ সেনারা। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শনিবার জানিয়েছে, লাইমান শহর থেকে সেনাদের চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে তারা।

এরপরই ইউক্রেনের সেনাদের লাইমান শহরে পতাকা ওড়াতে দেখা যায়। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, শহরের প্রবেশ পথে ইউক্রেনের সৈন্যরা দেশটির নীল-হলুদ রাষ্ট্রীয় পতাকা উত্তোলন করছে।

কেন লাইমান শহর থেকে রুশ সেনাদের সরানোর সিদ্ধান্ত নিল রাশিয়া?

এ বিষয়ে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, লাইমানে অবস্থিত রুশ সেনাদের যেন ইউক্রেনের সেনারা 'ঘিরে ফেলতে না' পারে সেজন্য এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, অবরুদ্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে মিত্র সেনাদের ক্রাসনি লাইমান থেকে সরিয়ে আরও ভালো অবস্থানের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরেই লাইমান শহরটির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল ইউক্রেনের সেনারা৷ তখন থেকেই আশঙ্কা করা হচ্ছিল রুশ সেনাদের হাত থেকে শহরটি হাতছাড়া হয়ে যাবে।

গত মে মাসের শেষে দিকে দোনেৎস্কের গুরুত্বপূর্ণ শহর লাইমান দখলের পর রাশিয়ার সৈন্যরা এটিকে গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যবহার করছে।

রাশিয়ান সৈন্যরা শহরটিকে তাদের লজিস্টিক সাপোর্ট ও অস্ত্রের সরবরাহের প্রধান কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলে।

শুধু তাই নয়, লাইমান শহরটি দোনেৎস্ক, লুহানস্ক ও খারকিভ অঞ্চলের রেল যোগাযোগের জন্যও খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন