চলন্ত বিমান ফুটো হয়ে গুলি লাগল যাত্রীর গায়ে!
jugantor
চলন্ত বিমান ফুটো হয়ে গুলি লাগল যাত্রীর গায়ে!

  অনলাইন ডেস্ক  

০৩ অক্টোবর ২০২২, ১০:৩২:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

সাড়ে তিন হাজার ফুট ওপর দিয়ে উড়ে যাওয়া যাত্রীবাহী বিমানকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে।

আর সেই গুলি বিমান ফুটো হয়ে গিয়ে লাগল যাত্রীর গায়ে! অবিশ্বাস্য এ ঘটনা ঘটেছে মিয়ানমারে। খবর আলজাজিরার।

মিয়ানমার ন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের বিমানটি ৬৩ যাত্রী নিয়ে সাড়ে তিন হাজার ফুট উঁচু দিয়ে উড়ে যাচ্ছিল। গন্তব্যস্থল লাইকোভে পৌঁছানোর আগেই বিমানকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। আর তাতেই গুলিবিদ্ধ হন এক যাত্রী।

এ ঘটনার পর বিমানটিকে জরুরি অবতরণ করান পাইলট। লাইকোভে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিমান পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মিয়ানমার ন্যাশনাল এয়ারলাইন্স।

কিন্তু প্রশ্ন উঠছে— কীভাবে সাড়ে তিন হাজার ফুট উঁচুতে বিমানের গায়ে গুলি লাগল? কারাই বা এই গুলি চালিয়েছিল?

মিয়ানমার সরকার এ ঘটনার জন্য বিদ্রোহী গোষ্ঠীকে দায়ী করেছে। কায়া রাজ্য থেকে এ গুলি চালানো হয়েছে বলে জান্তা সরকারের অভিযোগ। যদিও সরকারের এ অভিযোগকে খারিজ করেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী।

মিয়ানমার সরকারের মুখপাত্র মেজর জেনারেল জও মিন তুন বলেন, এ ধরনের কাজ সন্ত্রাসবাদের শামিল। যেসব নাগরিক এবং প্রতিষ্ঠান দেশে শান্তি বজায় রাখতে চান, এ ঘটনার প্রতিবাদ করা উচিত তাদের।

চলন্ত বিমান ফুটো হয়ে গুলি লাগল যাত্রীর গায়ে!

 অনলাইন ডেস্ক 
০৩ অক্টোবর ২০২২, ১০:৩২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাড়ে তিন হাজার ফুট ওপর দিয়ে উড়ে যাওয়া যাত্রীবাহী বিমানকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে।

আর সেই গুলি বিমান ফুটো হয়ে গিয়ে লাগল যাত্রীর গায়ে! অবিশ্বাস্য এ ঘটনা ঘটেছে মিয়ানমারে। খবর আলজাজিরার।

মিয়ানমার ন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের বিমানটি ৬৩ যাত্রী নিয়ে সাড়ে তিন হাজার ফুট উঁচু দিয়ে উড়ে যাচ্ছিল। গন্তব্যস্থল লাইকোভে পৌঁছানোর আগেই বিমানকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। আর তাতেই গুলিবিদ্ধ হন এক যাত্রী।

এ ঘটনার পর বিমানটিকে জরুরি অবতরণ করান পাইলট। লাইকোভে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিমান পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মিয়ানমার ন্যাশনাল এয়ারলাইন্স।

কিন্তু প্রশ্ন উঠছে— কীভাবে সাড়ে তিন হাজার ফুট উঁচুতে বিমানের গায়ে গুলি লাগল? কারাই বা এই গুলি চালিয়েছিল?

মিয়ানমার সরকার এ ঘটনার জন্য বিদ্রোহী গোষ্ঠীকে দায়ী করেছে। কায়া রাজ্য থেকে এ গুলি চালানো হয়েছে বলে জান্তা সরকারের অভিযোগ। যদিও সরকারের এ অভিযোগকে খারিজ করেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী।

মিয়ানমার সরকারের মুখপাত্র মেজর জেনারেল জও মিন তুন বলেন, এ ধরনের কাজ সন্ত্রাসবাদের শামিল। যেসব নাগরিক এবং প্রতিষ্ঠান দেশে শান্তি বজায় রাখতে চান, এ ঘটনার প্রতিবাদ করা উচিত তাদের।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন