রুশ হামলার মধ্যে আরও এক বিপদের শঙ্কায় ইউক্রেন
jugantor
রুশ হামলার মধ্যে আরও এক বিপদের শঙ্কায় ইউক্রেন

  অনলাইন ডেস্ক  

২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৫:২৫:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউক্রেন

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা শুরু করে। তবে গত শীতে তেমন ক্ষতি না হলেও এবার চরম বিপর্যয়ের আশাঙ্ক করছে ইউক্রেন। ইতোমধ্যে রাজধানী কিয়েভে তাপমাত্রা শূন্য ডিগ্রির কমে নেমে এসেছে। ফলে ভারি তুষারপাতের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

রোববার আলজাজিরা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনীয় জ্বালানি অবকাঠামোতে রাশিয়ার বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হওয়ার ফলে এবারের শীত শহরটির বাসিন্দাদের জন্য দুর্ভোগের হতে পারে। কারণ কিয়েভের বেশিরভাগ মানুষ বিদ্যুৎ ও উষ্ণ ব্যবস্থার সুযোগ পাচ্ছেন না।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, রোববার থেকে কিয়েভে তুষারপাত শুরু হতে পারে। সপ্তাহের মাঝামাঝি পর্যন্ত এই অবস্থা চলতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, তাপমাত্র শূন্য ডিগ্রির নিচে থাকবে।

ইউক্রেনের জাতীয় বিদ্যুৎ গ্রিড অপারেটর শনিবার জানিয়েছে, প্রয়োজনীয় বিদ্যুতের মাত্র এক-তৃতীয়াংশ তারা সরবরাহ করতে পারছেন। ফলে দেশজুড়ে আরও ব্ল্যাকআউট প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে।

কিয়েভে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ইয়াসনোর প্রধান অপারেটিং অফিসবার সের্গেই কোভালেঙ্কো বলেছেন, রাজধানীর বিদ্যুৎ পরিস্থিতি আগের চেয়ে ভালো হয়েছে। তবে এখনো তা বেশ কঠিন পরিস্থিতি।

তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন, প্রতি দিন অন্তত ৪ ঘণ্টা বিদ্যুৎ পাবেন শহরটির বাসিন্দারা। এর কম বিদ্যুৎ যারা যাচ্ছেন তাদেরকে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, শুক্রবার দেশটির ৬০ লাখ মানুষ বিদ্যুৎহীন ছিলেন। রুশ বোমাবর্ষণের ফলে ইউক্রেনীয়রা বিদ্যুৎ, পানি বা উষ্ণতা বঞ্চিত হচ্ছেন।

রুশ হামলার মধ্যে আরও এক বিপদের শঙ্কায় ইউক্রেন

 অনলাইন ডেস্ক 
২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৫:২৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউক্রেন
ছবি: সংগৃহীত

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা শুরু করে। তবে গত শীতে তেমন ক্ষতি না হলেও এবার চরম বিপর্যয়ের আশাঙ্ক করছে ইউক্রেন। ইতোমধ্যে রাজধানী কিয়েভে তাপমাত্রা শূন্য ডিগ্রির কমে নেমে এসেছে। ফলে ভারি তুষারপাতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

রোববার আলজাজিরা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনীয় জ্বালানি অবকাঠামোতে রাশিয়ার বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হওয়ার ফলে এবারের শীত শহরটির বাসিন্দাদের জন্য দুর্ভোগের হতে পারে। কারণ কিয়েভের বেশিরভাগ মানুষ বিদ্যুৎ ও উষ্ণ ব্যবস্থার সুযোগ পাচ্ছেন না। 

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, রোববার থেকে কিয়েভে তুষারপাত শুরু হতে পারে। সপ্তাহের মাঝামাঝি পর্যন্ত এই অবস্থা চলতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, তাপমাত্র শূন্য ডিগ্রির নিচে থাকবে।  

ইউক্রেনের জাতীয় বিদ্যুৎ গ্রিড অপারেটর শনিবার জানিয়েছে, প্রয়োজনীয় বিদ্যুতের মাত্র এক-তৃতীয়াংশ তারা সরবরাহ করতে পারছেন। ফলে দেশজুড়ে আরও ব্ল্যাকআউট প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে।

কিয়েভে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ইয়াসনোর প্রধান অপারেটিং অফিসবার সের্গেই কোভালেঙ্কো বলেছেন, রাজধানীর বিদ্যুৎ পরিস্থিতি আগের চেয়ে ভালো হয়েছে। তবে এখনো তা বেশ কঠিন পরিস্থিতি।

তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন, প্রতি দিন অন্তত ৪ ঘণ্টা বিদ্যুৎ পাবেন শহরটির বাসিন্দারা। এর কম বিদ্যুৎ যারা যাচ্ছেন তাদেরকে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, শুক্রবার দেশটির ৬০ লাখ মানুষ বিদ্যুৎহীন ছিলেন। রুশ বোমাবর্ষণের ফলে ইউক্রেনীয়রা বিদ্যুৎ, পানি বা উষ্ণতা বঞ্চিত হচ্ছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা

২৮ জানুয়ারি, ২০২৩