চীনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র
jugantor
চীনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪:০৯:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

চীনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র

চীনে শূন্য-কোভিড নীতির বিরুদ্ধে আয়োজিত জনগণের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র বলে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তাবিষয়ক মুখপাত্র জন কিরবি।

সোমবার চীনে করোনাবিরোধী ব্যাপক বিক্ষোভের বিষয়ে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এ প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

জন কিরবি বলেন, মানুষকে সমবেত হওয়ার, শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করার সুযোগ দেওয়া উচিত।

তিনি বলেন, হোয়াইট হাউস শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারকে সমর্থন করে।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ‘শূন্য করোনা নীতির’ বিরুদ্ধে দেশটির সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্রমে বাড়তে থাকা ক্ষোভ বিক্ষোভে রূপ নেয়। গত বৃহস্পতিবার দেশটির জিনজিয়াং প্রদেশের উরুমকি শহরের একটি আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ১০ জনের মৃত্যু হয়।

বাসিন্দাদের ভবনে আটকেপড়া ও উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হওয়ার জন্য করোনার কঠোর বিধিনিষেধকে দায়ী করা হয়। এ ঘটনার জেরে শুরু হওয়া বিক্ষোভ দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।

দেশটিতে সোমবারও বিক্ষোভ হয়, দিনভর বিক্ষোভকারীদের দমাতে কঠোর অবস্থান নিতে দেখা যায় পুলিশের।

সূত্র: রয়টার্স

চীনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ নভেম্বর ২০২২, ০২:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চীনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের অধিকার সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র
ছবি: সংগৃহীত

চীনে শূন্য-কোভিড নীতির বিরুদ্ধে আয়োজিত জনগণের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র বলে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তাবিষয়ক মুখপাত্র জন কিরবি।

সোমবার চীনে করোনাবিরোধী ব্যাপক বিক্ষোভের বিষয়ে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এ প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। 

জন কিরবি বলেন, মানুষকে সমবেত হওয়ার, শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করার সুযোগ দেওয়া উচিত।

তিনি বলেন, হোয়াইট হাউস শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারকে সমর্থন করে।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ‘শূন্য করোনা নীতির’ বিরুদ্ধে দেশটির সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্রমে বাড়তে থাকা ক্ষোভ বিক্ষোভে রূপ নেয়। গত বৃহস্পতিবার দেশটির জিনজিয়াং প্রদেশের উরুমকি শহরের একটি আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ১০ জনের মৃত্যু হয়।

বাসিন্দাদের ভবনে আটকেপড়া ও উদ্ধার তৎপরতা ব্যাহত হওয়ার জন্য করোনার কঠোর বিধিনিষেধকে দায়ী করা হয়। এ ঘটনার জেরে শুরু হওয়া বিক্ষোভ দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।

দেশটিতে সোমবারও বিক্ষোভ হয়, দিনভর বিক্ষোভকারীদের দমাতে কঠোর অবস্থান নিতে দেখা যায় পুলিশের।

সূত্র: রয়টার্স

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন