ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয় নতুন যে বার্তা দিলেন পুতিন
jugantor
ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয় নতুন যে বার্তা দিলেন পুতিন

  অনলাইন ডেস্ক  

০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৩৭:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয় নতুন যে বার্তা দিলেন পুতিন

ইউক্রেনের যুদ্ধ দীর্ঘায়িত হবে। কিন্তু এই মুহূর্তে অতিরিক্ত সেনা সংগ্রহ করার কোনো প্রয়োজন নেই বলে সতর্ক করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বুধবার ক্রেমলিনের মানবাধিকার কাউন্সিলের একটি টেলিভিশন বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

পুতিন বলেন, বিশেষ সামরিক অভিযানের সময়কাল অবশ্যই একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া হতে পারে।

অতিরিক্ত সেনা মোতায়ন সম্পর্কে তিনি বলেন, সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে কমপক্ষে তিন লাখ সংরক্ষিত বাহিনী ডাকার পরে, আরও সেনাকে দ্বিতীয়বার সংগঠিত করার দরকার নেই।

পুতিন বলেন, যাদের ডাকা হয়েছিল তাদের মধ্যে এক লাখ ৫০ হাজার জনকে এখন ইউক্রেনে মোতায়েন করা হয়েছে, তাদের মধ্যে ৭৭ হাজার সেনা যুদ্ধ ইউনিটে এবং বাকিরা প্রতিরক্ষামূলক কার্য সম্পাদন করছে। বাকি এক লাখ ৫০ হাজার সেনা এখনো প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘এই অবস্থায়, কোনো অতিরিক্ত সেনা মোতায়েনর ব্যবস্থা সম্পর্কে কথা বলার কোনো মানে হয় না।’

তবে রাশিয়া আগে কখনো পরমাণু হামলা চালাবে না বলে আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, আমরা প্রথমে পরমাণু হামলা চালাব না এবং কাউকে পরমাণু অস্ত্র দিয়ে হুমকি দেব না। রাশিয়া পাগল হয়ে যায়নি। আমরা জানি পরমাণু অস্ত্র কি।

তিনি জানিয়েছেন, রাশিয়ার কাছে বিশ্বের সর্বাধুনিক পরমাণু অস্ত্র আছে। কিন্তু রাশিয়ার পরমাণুনীতি যুক্তরাষ্ট্রের মতো না। তার দাবি, মার্কিনিরা তাদের পরমাণু অস্ত্র তুরস্কসহ ইউরোপের অন্যান্য দেশেও মজুদ রেখেছে। যা রাশিয়া করেনি।

তিনি জানান, ইউক্রেনের চার অঞ্চল অধিগ্রহণ করার বিষয়েও কথা বলেছেন পুতিন। তার দাবি, অধিকৃত খেরসন, জাপোরিঝিয়া, দোনেৎস্ক এবং লুহানেস্ক বেশ ভালো আছে।

সূত্র: ভয়েস অব আমেরিকা, নিউইয়র্ক টাইমস, বিবিসি

ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয় নতুন যে বার্তা দিলেন পুতিন

 অনলাইন ডেস্ক 
০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৩৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউক্রেন যুদ্ধের বিষয় নতুন যে বার্তা দিলেন পুতিন
ছবি: সংগৃহীত

ইউক্রেনের যুদ্ধ দীর্ঘায়িত হবে। কিন্তু এই মুহূর্তে অতিরিক্ত সেনা সংগ্রহ করার কোনো প্রয়োজন নেই বলে সতর্ক করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বুধবার ক্রেমলিনের মানবাধিকার কাউন্সিলের একটি টেলিভিশন বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

পুতিন বলেন, বিশেষ সামরিক অভিযানের সময়কাল অবশ্যই একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া হতে পারে।

অতিরিক্ত সেনা মোতায়ন সম্পর্কে তিনি বলেন, সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে কমপক্ষে তিন লাখ সংরক্ষিত বাহিনী ডাকার পরে, আরও সেনাকে দ্বিতীয়বার সংগঠিত করার দরকার নেই।

পুতিন বলেন, যাদের ডাকা হয়েছিল তাদের মধ্যে এক লাখ ৫০ হাজার জনকে এখন ইউক্রেনে মোতায়েন করা হয়েছে, তাদের মধ্যে ৭৭ হাজার সেনা যুদ্ধ ইউনিটে এবং বাকিরা প্রতিরক্ষামূলক কার্য সম্পাদন করছে। বাকি এক লাখ ৫০ হাজার সেনা এখনো প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘এই অবস্থায়, কোনো অতিরিক্ত সেনা মোতায়েনর ব্যবস্থা সম্পর্কে কথা বলার কোনো মানে হয় না।’

তবে রাশিয়া আগে কখনো পরমাণু হামলা চালাবে না বলে আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, আমরা প্রথমে পরমাণু হামলা চালাব না এবং কাউকে পরমাণু অস্ত্র দিয়ে হুমকি দেব না। রাশিয়া পাগল হয়ে যায়নি। আমরা জানি পরমাণু অস্ত্র কি।

তিনি জানিয়েছেন, রাশিয়ার কাছে বিশ্বের সর্বাধুনিক পরমাণু অস্ত্র আছে। কিন্তু রাশিয়ার পরমাণুনীতি যুক্তরাষ্ট্রের মতো না। তার দাবি, মার্কিনিরা তাদের পরমাণু অস্ত্র তুরস্কসহ ইউরোপের অন্যান্য দেশেও মজুদ রেখেছে। যা রাশিয়া করেনি।

তিনি জানান, ইউক্রেনের চার অঞ্চল অধিগ্রহণ করার বিষয়েও কথা বলেছেন পুতিন। তার দাবি, অধিকৃত খেরসন, জাপোরিঝিয়া, দোনেৎস্ক এবং লুহানেস্ক বেশ ভালো আছে।

সূত্র: ভয়েস অব আমেরিকা, নিউইয়র্ক টাইমস, বিবিসি

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা

০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩