ইউক্রেনে পাল্টা হামলা চলতে থাকবে: পুতিন
jugantor
ইউক্রেনে পাল্টা হামলা চলতে থাকবে: পুতিন

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮:৪৫:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার বিদ্যুৎ লাইনের ওপর হামলার জবাব হিসেবে রুশ সেনারা ইউক্রেনের জ্বালানি অবকাঠামোয় পাল্টা হামলা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনে সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট পুতিন এ কথা বলেন। খবর বিবিসি, আনাদোলু এজেন্সির।

তিনি বলেন, গত অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে ইউক্রেন ক্রিমিয়া ব্রিজে হামলা চালিয়ে এই ধরনের হামলার উসকানি দিয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রতিবেশী দেশের জ্বালানি অবকাঠামোর ওপর হামলা চালানোর কারণে অনেক বেশি শোরগোল হচ্ছে। হ্যাঁ আমরা এই হামলা করেছি কিন্তু কারা প্রথম শুরু করেছে? কারা ক্রিমিয়া ব্রিজে হামলা চালিয়েছে? কারা কার্স পরমাণু বিদ্যুতকেন্দ্র উড়িয়ে দিয়েছে?

পুতিন আরও বলেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও অবকাঠামো ধ্বংস করার প্রচেষ্টা ছিল সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড।

অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট পুতিন আরও অভিযোগ করেন, ইউক্রেন রাশিয়া নিয়ন্ত্রিত দোনেৎস্ক অঞ্চলে খাবার পানির সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে। এটি গণহত্যার পর্যায়ে পড়বে।

ইউক্রেনে পাল্টা হামলা চলতে থাকবে: পুতিন

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার বিদ্যুৎ লাইনের ওপর হামলার জবাব হিসেবে রুশ সেনারা ইউক্রেনের জ্বালানি অবকাঠামোয় পাল্টা হামলা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনে সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট পুতিন এ কথা বলেন। খবর বিবিসি, আনাদোলু এজেন্সির।

তিনি বলেন, গত অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে ইউক্রেন ক্রিমিয়া ব্রিজে হামলা চালিয়ে এই ধরনের হামলার উসকানি দিয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রতিবেশী দেশের জ্বালানি অবকাঠামোর ওপর হামলা চালানোর কারণে অনেক বেশি শোরগোল হচ্ছে। হ্যাঁ আমরা এই হামলা করেছি কিন্তু কারা প্রথম শুরু করেছে? কারা ক্রিমিয়া ব্রিজে হামলা চালিয়েছে? কারা কার্স পরমাণু বিদ্যুতকেন্দ্র উড়িয়ে দিয়েছে?

পুতিন আরও বলেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই যে, রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও অবকাঠামো ধ্বংস করার প্রচেষ্টা ছিল সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড।

অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট পুতিন আরও অভিযোগ করেন, ইউক্রেন রাশিয়া নিয়ন্ত্রিত দোনেৎস্ক অঞ্চলে খাবার পানির সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে। এটি গণহত্যার পর্যায়ে পড়বে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা

০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩