গুহার ভেতর কীভাবে থাকবে আটকেপড়া ফুটবলাররা?

  অনলাইন ডেস্ক ০৪ জুলাই ২০১৮, ১৭:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

গুহার ভেতর কীভাবে থাকবে আটকেপড়া ফুটবলাররা?
ছবি: এএফপি

ওয়াইল্ড বোয়ার ফুটবল দলের ১২ কিশোর ও তাদের এক কোচ ২৩ জুন বেড়াতে গিয়ে দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় চিয়াং রাই এলাকার থাম লুয়াং গুহায় আটকা পড়ে। ভারি বর্ষণ ও কাদায় গুহার মুখ বন্ধ হয়ে গেলে তারা বের হতে পারেনি। তবে গুহার ভেতর থেকে পানি বের করার চেষ্টা চলছে। খবর এএফপি, বিবিসি

যদি সত্যি সত্যি তাদের উদ্ধার করতে কয়েক মাস লেগে যায় - তাহলে মাটির প্রায় এক কিলোমিটার নিচে ওই অন্ধকার গুহায় এই কিশোররা কীভাবে এত দিন টিকে থাকবে?

তবে উদ্ধারকারীরা নানা পরিকল্পনার কথা বিবেচনা করছেন, থাই সেনাবাহিনী বলেছে এমনও হতে পারে যে আটকেপড়া দলটিকে উদ্ধার করতে চার মাস পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে।

এই কিশোররা যেন তাদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে পারে সে জন্য গুহায় টেলিফোন লাইন বসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে, তবে মঙ্গলবার পর্যন্ত এ চেষ্টা সফল হয়নি।

পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারলে তাদের মানসিক অবস্থা ভালো হতে পারে এ কথা ভেবেই গুহাটিতে টেলিফোন সংযোগ দেয়ার ব্যবস্থা করছে থাই কর্তৃপক্ষ।

অবরুদ্ধ অবস্থায় একটা বড় চ্যালেঞ্জ হলো আলোর অভাব। গুহাটির ভেতরে দিন ও রাতের পার্থক্য বোঝার মতো আলো নেই, তাই মানুষের দেহ-ঘড়ির ছন্দ তখন নষ্ট হয়ে যায়।

এতে যে শুধু ঘুমের ওপর প্রভাব ফেলে তাই নয়, তাদের মানসিক অবস্থা, মলমূত্র ত্যাগের অভ্যাস এবং শরীরের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গের কাজও বিঘ্নিত হয়।

তবে কিশোরদের উদ্ধার করার পরেও তাদের মনের ওপর এ ঘটনার দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব রয়ে যাবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

এদিকে কিশোরদের উদ্ধারের আগ পর্যন্ত দুজন করে ডুবুরি দলটিকে সঙ্গ দেবেন।

তাদের উদ্ধার করার কোনো উপায় এখনো ঠিক হয়নি। উদ্ধারকারীরা এখনো নানা বিকল্প বিবেচনা করছেন।

আটকাপড়া দলটির কাছে ইতিমধ্যে খাদ্য আর চিকিৎসা পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা হয়েছে। কিন্তু তাদের মনের ওপর এই গুহাবন্দি অবস্থার কি প্রভাব পড়বে?

কিন্তু থাইল্যান্ডের ঘটনাটি তার তুলনায় ভিন্ন কারণ, আটকা পড়াদের একজন বাদে সবাই একেবারেই বাচ্চা ছেলে।

অবরুদ্ধ অবস্থায় তারা ভীত, অস্থির এবং মানসিকভাবে বিচলিত হয়ে উঠতে পারে।

আটকাপড়া ১২ জন কিশোর ফুটবলার এবং তাদের কোচের একটি নতুন ভিডিও বের হয়েছে - যাতে তারা বলছে যে তাদের শারীরিক অবস্থা ভালো আছে।

ওই ভিডিওতে তারা এক এক করে নিজেদের পরিচয় দেয়, কখনো কখনো তাদের হাসতে দেখা যায়। তারা আরও জিজ্ঞেস করছিল, খাবার কত তাড়াতাড়ি আসবে।

এদিকে তাদের গা গরম রাখার জন্য ফয়েলের কম্বল দেয়া হয়েছে - ভিডিওতে দেখা যায়, সেটা গায়ে জড়িয়ে তারা বসে আছে। তাদের কারো কারো গায়ে আঁচড় লেগেছিল - একজন সামরিক ডাক্তার তার চিকিৎসা করেছেন।

ঘটনাপ্রবাহ : থাইল্যান্ডে গুহায় আটকা পড়েছে ফুটবল টিম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter