চীনের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপ হলে নৈরাজ্য শুরু হবে

প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০১৮, ১৩:২২ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: এএফপি

ইরানের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্কের কারণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের যে হুমকি দিচ্ছেন, তা বাস্তবায়ন করা হলে বৈশ্বিক নৈরাজ্য শুরু হয়ে যাবে।

এমন উদ্যোগের ক্ষেত্রে ইউরোপের মিত্র দেশগুলোর কাছ থেকেও সমর্থন পাবেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সিআইএর সাবেক কর্মকর্তা ফিল গিরাল্ডি শুক্রবার স্পুটনিকের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে এই ভবিষ্যদ্বাণী করেন।

তিনি বলেন, ইরানের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ককে কেন্দ্র করে ওয়াশিংটন যখন চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের চেষ্টা করবে, তখন যা ঘটবে, তা বেশ মজারই হবে। বাণিজ্য যুদ্ধের কারণে এমনিতেই নৈরাজ্য চলছে।

শুক্রবার ভিয়েনায় জেসিপিওএ যৌথ কমিশনের বৈঠকে অংশগ্রহণকারীরা ইরানের পারমাণবিক চুক্তির প্রতি তাদের সমর্থন নিশ্চিত করেছে। এখন এ চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন দরকার।

ইরানের গ্যাস ও তেল রফতানিতে বৈঠকে অংশ নেয়া যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানি সমর্থন জানিয়েছে।

গিরাল্ডি সতর্ক করে বলেন, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে, জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল ও ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনকে ওয়াশিংটনের বড় ধরনের চাপের মুখোমুখি হতে হবে।

তারা ইরানের সঙ্গে চুক্তি থেকে সরে আসতেও বাধ্য হতে পারেন বলে জানিয়েছেন গিরাল্ডি।

তিনি বলেন, আমি মনে করি এ চুক্তির প্রতি সম্মান দেখানো উচিত। কিন্তু যদি ডোনাল্ড ট্রাম্প চাপ দেন, তবে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি হতে হবে তাদের। কিন্তু সম্প্রতি উপদেষ্টা রুডি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর বিবৃতির ওপর ভিত্তি করেই ট্রাম্প সামনে আগাবেন বলে মনে করা হচ্ছে। এতে ইরানের ক্ষেত্রে হোয়াইট হাউসের নীতিতে কোনো পরিবর্তন আসবে না।

এতে ওয়াশিংটনের চাপের কাছে তেরেসা মে, মেরকেল ও ম্যাক্রন নতি শিকার করতে পারেন বলে ধরে নিয়েছেন গিরাল্ডি।

তিনি বলেন, ইরানের পরমাণু চুক্তি নিয়ে ট্রাম্প উগ্রপন্থীদের কথাই শুনছেন। সেক্ষেত্রে তার নির্দেশনায় পরিবর্তন আসা অসম্ভব।