গুহায় আটকেপড়া থাই কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু

  যুগান্তর ডেস্ক    ০৮ জুলাই ২০১৮, ১১:৫৪ | অনলাইন সংস্করণ

গুহায় আটকে পড়া থাই কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু
ছবি: সংগৃহীত

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকেপড়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু হয়েছে। এ অভিযান শেষ হতে তিন থেকে চার দিন সময় লাগবে।

তবে রোববার রাতের দিকেই ফুটবলারদের একটি দলকে উদ্ধার করা সম্ভব হবে বলে আশা করছে থাইল্যান্ডের সেনাবাহিনী।

স্থানীয় সময় রোববার সকাল ১০টায় দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং’ গুহায় ডুবুরিদের প্রবেশের মাধ্যমে এ অভিযান শুরু হয়।

গুহার পাশে সমবেত সাংবাদিকদের উদ্ধারকারী দলের প্রধান নারোংসাক ওসাতানাকর্ন জানান, আজ রাত ৯টার দিকে তাদের প্রথম দলটিকে বের করে আনা সম্ভব হতে পারে।

তিনি জানান, উদ্ধার অভিযানে ১৩ বিদেশি ও পাঁচজন থাই ডুবুরি এবং পাঁচজন নেভি সিল সদস্য অংশ নিয়েছেন।

নারোংসাক আরও জানান, অভিযান শুরুর জন্য ডুবুরি দল ৩-৪ তিন অনুশীলন করে। তার পর শনিবার রাত ৯টা থেকে গুহা এলাকায় পরিষ্কার অভিযান শুরু হয়।

এর পর আজ ভোরে ডুবুরিরা গুহার পাশে সমবেত হন। পরে সেখানে জড়ো হওয়া লোকজনদের সরিয়ে দেয়া হয়। গুহার প্রবেশ মুখে অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

অভিযান শেষ হতে তিন থেকে চার দিন সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন থাই সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র। তবে সব কিছু আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করবে বলে জানান তিনি। উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন ফুটবল প্রশিক্ষণের পর ২৫ বছর বয়সী কোচের সঙ্গে ১১-১৬ বছর বয়সী ওই ১২ কিশোর মিয়ানমার সীমান্তের নিকটবর্তী একটি ফরেস্ট পার্কের থাম লুয়াং গুহাটি দেখতে গিয়েছিল।

বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় তারা গুহাটিতে আটকা পড়ে নিখোঁজ হয়ে যায়। ৯ দিন পর তাদের আটকাপড়ার খবর পাওয়া যায়।

ঘটনাপ্রবাহ : থাইল্যান্ডে গুহায় আটকা পড়েছে ফুটবল টিম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter