যেভাবে গুহা থেকে উদ্ধার করা হচ্ছে ফুটবলারদের

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৯:৩০ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

ছবি: বিবিসি

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া কিশোর ফুটবলারদের মধ্য থেকে দুইজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। গুহার বাইরে স্থাপিত হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

যে গুহাটিতে তারা আটকা পড়েছে সেটি সাপের মতো এমনভাবে পেঁচানো এবং এর ভেতরে এতো ফাটল আছে যা উদ্ধারকারীদের জন্যে যেকোন সময় বিপদ ডেকে আনতে পারে।

থাম লুয়াং নামের এই গুহাটির কোথাও কোথাও ১০ মিটার পর্যন্ত উঁচু, কোথাও কোথাও অত্যন্ত সরু আবার কোথাও কোথাও সেটি পানিতে পূর্ণ হয়ে আছে।

গুহাটির ভেতর থেকে বাচ্চাদের বের করে আনার কাজটা কতোটা ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে সেটা অনেক বেশি স্পষ্ট হয়ে উঠেছে একজন উদ্ধারকারী ডুবুরির মৃত্যুর ঘটনায়।

থাই নৌবাহিনীর সাবেক একজন অভিজ্ঞ ডুবুরি তিন দিন আগে গুহার ভেতরে বাচ্চাদের কাছে অক্সিজেনের ট্যাঙ্ক পৌঁছে দিয়ে ফিরে আসার সময় মারা যান।

বন্যার পানিতে নিমজ্জিত গুহার যে শুকনো উঁচু জায়গাটিতে গত দু সপ্তাহ ধরে এই দলটি আশ্রয় নিয়ে আছে তাদের উদ্ধারে ১৮ জন অভিজ্ঞ ডুবুরি কাজ করছে।

একেকজন কিশোরকে দুইজন করে ডুবুরি তাদের তত্বাবধানে বের করে আনছেন।

পুরো পথ পার হতে তাদের অন্তত ছয় ঘন্টা করে সময় লাগছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আটকে পড়া ১৩ জনকে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে বের করা সম্ভব হবে।

পানিতে ডুবে যাওয়া সুড়ঙ্গের ভেতর দিয়ে এদের বাইরে আনার জন্য ডুবুরিরা নানা ধরণের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করছেন।