থাই গুহা থেকে উদ্ধার কিশোরদের প্রথম ভিডিও প্রকাশ

  যুগান্তর ডেস্ক    ১২ জুলাই ২০১৮, ১২:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

থাই গুহা থেকে উদ্ধার কিশোরদের প্রথম ভিডিও প্রকাশ
ছবি: এপি

থাইল্যান্ডে গুহার ভেতরে ১৭ দিন ধরে আটকে থাকার পর নাটকীয়ভাবে উদ্ধার হওয়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচের প্রথম ছবি এবং ভিডিওচিত্র প্রকাশ করা হয়েছে।

ভিডিও ফুটেজে বেশ কয়েকজন কিশোরকে হাসপাতালের বিছানায় মুখে মাস্ক পরিহিত অবস্থায় বসে থাকতে দেখা গেছে।

তাদের মধ্যে একজন ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে বিজয়সূচক ‘ভি’ চিহ্ন প্রদর্শন করেছে।

এ সময় হাসপাতালের বিশেষ সংরক্ষিত কক্ষের বাইরে জানালার কাঁচ দিয়ে উদ্বিগ্ন স্বজনদের তাদের সন্তানদের দিকে তাকিয়ে থাকতে দেখা গেছে।

এদিকে সাম্প্রতিক বিপজ্জনক উদ্ধার অভিযান চালানোর সময় আতঙ্কিত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য এসব কিশোর ও তাদের কোচকে অজ্ঞান করে নেয়া হয়েছিল বলে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

উদ্ধার অভিযানে অংশগ্রহণকারী ডুবুরিরা বলেছেন, পানির নিচের প্রচণ্ড অন্ধকার ও সরু পথ দিয়ে বের করে আনার সময় কিশোররা যাতে ভয় না পায় সে জন্য প্রতিটি অভিযানের শুরুতে শিশুদের গভীরভাবে অজ্ঞান করে নেয়া হয়েছে। গুহার ভেতরে অনেক দুর্গম পথ পাড়ি দিয়ে কিশোর ফুটবলারদের বের করে আনা হয়।

থাই নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা চাইয়ানান্ত পিরানাংরং বলেছেন, অজ্ঞান করার পর কিশোরদের কেউ কেউ পুরোপুরি ঘুমিয়ে পড়েছিল এবং কেউ কেউ তাদের আঙুল নাড়াচ্ছিল। কিন্তু তাদের শ্বাস-প্রশ্বাস ঠিকমতো চলছিল।

মঙ্গলবার থাইল্যান্ডের পাহাড়ের গুহায় আটকেপড়া কিশোর ফুটবলারদের শেষ দলকে নিরাপদে বের করে আনা হয়।

রোববার থেকে শুরু হওয়া তিন দিনের রুদ্ধশ্বাস উদ্ধার অভিযানে সবার শেষে বের করে আনা হয় ২৫ বছর বয়সী কোচকে।

গুহা থেকে বের করে হেলিকপ্টারে ওঠানো পর্যন্ত সময়ে উদ্ধার হওয়া কিশোরদের ছাতা দিয়ে ঢেকে রাখা হয়, যাতে তাদের দেখা না যায়।

উদ্ধার হওয়া কিশোরদের গুহার প্রবেশমুখ থেকে অ্যাম্বুলেন্সে পাশের ফিল্ড হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন চিকিৎসকরা। এর পর তাদের হেলিকপ্টারে চিয়াং রাই শহরের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

গুহা থেকে বের করার পর হাসপাতালে পৌঁছে দেয়ার পুরো সময় শিশুদের সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে দেখানো হয়নি। সূত্র : পার্স টুডে।

ঘটনাপ্রবাহ : থাইল্যান্ডে গুহায় আটকা পড়েছে ফুটবল টিম

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter