মেডিকেলছাত্রীকে জড়িয়ে ধরে চুম্বনের চেষ্টা মন্দিরের পুরোহিতের

প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৮, ১৪:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

ছবি: সংগৃহীত

বাবা-মায়ের সঙ্গে মন্দিরে যাওয়া এক মেডিকেলছাত্রীকে জড়িয়ে ধরে চুমু খাওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক পুরোহিতের বিরুদ্ধে।

তবে যুক্তরাষ্ট্র নিবাসী ওই ছাত্রী লিখিতভাবে জানানোর পরও মন্দির কর্তৃপক্ষ অভিযোগ আমলে নেয়নি।

ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গোয়ার শ্রী মঙ্গেশ মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে।

যৌন হয়রানির শিকার ছাত্রীর অভিযোগ, গত ২২ জুন তিনি বাবা-মায়ের সঙ্গে মন্দিরে যান। তখন মন্দিরের পুরোহিত গর্ভগৃহের বাইরে বেরিয়ে এসে তাকে 'প্রদক্ষিণায়' নিয়ে যেতে ইশারায় কাছে ডাকেন।

ছাত্রী জানান, তিনি পুরোহিতের নির্দেশ অমান্য করতে পারেননি। পুরোহিতের কাছে যাওয়ার পর তিনি তাকে জড়িয়ে ধরেন। তার পর চুমু দেয়ার চেষ্টা করেন।

এ ঘটনার পর মন্দির কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেন ছাত্রী। ঘটনা খতিয়ে দেখতে মন্দিরের ২২ জুনের সিসিটিভি ফুটেজ দেখার প্রস্তাব দেন তিনি।

ছাত্রীর মত, মন্দিরে এ ধরনের ব্যবহার মানুষকে মানসিকভাবে আঘাত করে। এমন ঘটনা ঘটলে মন্দিরে আসতেও মানুষ দ্বিধা করবে।

তবে তদন্ত করার মতো নির্ভরযোগ্য প্রমাণ নেই জানিয়ে ওই ছাত্রীর অভিযোগ নাকচ করে দেয় শ্রী মঙ্গেশ মন্দির কর্তৃপক্ষ।

পরে বিষয়টি জানিয়ে ছাত্রীকে একটি চিঠি পাঠান মন্দিরের সেক্রেটারি অনিল কেঁকড়ে।

চিঠিতে তিনি জানান, মন্দিরের পুরোহিতের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে তা খতিয়ে দেখা হয়। এর জন্য একটি জরুরি বৈঠক ডাকা হয়। তখন জানা গেছে, ঘটনার এমন কোনো নির্ভরযোগ্য প্রমাণ নেই, যার সাহায্যে তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে।

তবে মন্দির কর্তৃপক্ষ ঘটনার কথা অস্বীকার করলেও খবরটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এর পর এক সংবাদ সংস্থা অনিল কেঁকড়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে। তিনি জানান, মন্দির কর্তৃপক্ষ তার জবাব ওই ছাত্রীকে পাঠিয়ে দিয়েছে। ঘটনার এখানেই শেষ।

উল্লেখ্য, গত মাসের শুরুতেও শ্রী মঙ্গেশ মন্দিরের পুরোহিতের বিরুদ্ধে একই হেনস্তার অভিযোগ উঠেছিল।

মুম্বাইয়ের বাসিন্দা এক নারীর অভিযোগ, পুরোহিত তাকে মন্দিরের ভেতরে জড়িয়ে ধরে চুমু দেয়ার জন্য হেনস্তা করেন। তিনিও কর্তৃপক্ষকে সিসিটিভি ফুটেজ দেখার কথা বলেন।

এ নারী বলেন, পুরোহিত তাকে এত জোরে ধরেছিল যে তিনি নড়াচড়া করতে পারছিলেন না। ওই অবস্থায় পুরোহিত তাকে চুমু দেয়ার চেষ্টা করে। ঘটনার স্থানটিও কর্তৃপক্ষকে দেখান তিনি। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।