বরিস জনসন বর্ণবাদী, ফ্যাসিবাদের কাছে নতি স্বীকার করা মানুষ: লর্ড কুপার

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৮, ২৩:৩০ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: সংগৃহীত

ব্রিটেনের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন নীতিবোধ শূন্য ও একজন স্বাভাবিক বর্ণবাদী, তিনি ফ্যাসিবাদের কাছে নতি স্বীকার করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন টরি নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের সহকারী লর্ড কুপার।

বিশ্লেষকরা বলছেন, মুসলিম নারীদের বোরকা নিয়ে বরিস জনসনের কটূক্তির পর যে বিভেদ দেখা দিয়েছে, তা প্রধানমন্ত্রী  টেরেসা মে ও তাদের দলের মধ্যে নতুন করে সঙ্কট তৈরি করতে পারে।

১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে ক্যামেরনের হয়ে জনমত যাচাইয়ের কাজ করেছেন লর্ড কুপার। তার এ মন্তব্যের আগে বরিস জনসনের বিরুদ্ধে তদন্তে সমর্থন দেয়ায় ইউরোপ-বিরোধী ডানপন্থী নেতা জ্যাকোব রিস-মগ তেরেসা মের কড়া সমালোচনা করেছেন।

জনসন এ সপ্তাহে ব্রিটেনের দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ পত্রিকায় তার সাপ্তাহিক কলামে বোরকা নিয়ে মন্তব্য করেন। সেখানে তিনি ডেনমার্কে সম্প্রতি বোরকা নিষিদ্ধ করার পদক্ষেপের সমালোচনা করতে গিয়ে কিছু বিতর্কিত কথা বলেছেন।

জনসন বলেন, বোরকা পরা মুসলিম নারীদের চিঠি ফেলার বাক্সের মতো লাগে।

তাছাড়া মুখমণ্ডল এবং পুরো শরীর ঢাকা ওই নারীদের কেবল চোখদুটো খোলা থাকায় তাদেরকে দেখতে ব্যাংক ডাকাতের মত লাগে বলে মন্তব্য করে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হন বরিস জনসন।

রাজনীতিবিদরাসহ ব্রিটিশ মুসলিম দলগুলো জনসনের সমালোচনায় মুখর হয়ে ওঠে।

তার মন্তব্যের পর টেরেসা মে ও নিজ দল কনজারভেটিভ পার্টির পক্ষ থেকে জনসনকে ক্ষমা চাইতে বলা হলে তাও মানেননি তিনি।

বরিস জনসনের মন্তব্য মুসলিম গোষ্ঠীগুলোসহ কনজারভেটিভ পার্টির কয়েকজন এমপি এবং বিরোধী দলগুলোর মধ্যে ক্ষোভ সঞ্চার করেছে।

কনজারভেটিভ পার্টির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, দলীয় তদন্তে জনসন আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেছেন প্রমাণিত হলে চূড়ান্ত ব্যবস্থা হিসাবে দলে তার সদস্যপদ স্থগিত করাসহ তাকে দল থেকে বের করেও দেয়া হতে পারে।

লর্ড কুপার বলেন, বরিস জনসন পচে ক্ষয়ে গেছেন। তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার হচ্ছে নৈতিক শূন্য, মিথ্যায় ভরা, করুণ, দুর্বল ও কাঙাল, যা শক্তির বিপরীত।