চার্চে যৌন নিপীড়নের বিষয়ে নীরব ছিলেন পোপ ফ্রান্সিস!

  যুগান্তর ডেস্ক ২৮ আগস্ট ২০১৮, ১৪:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

পোপ ফ্রান্সিস
পোপ ফ্রান্সিস। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ক্যাথলিক চার্চে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় পোপ ফ্রান্সিসের বিরুদ্ধে নীরবতার মারাত্মক অভিযোগ উঠেছে৷

অনেক বিষয় সম্পর্কে ‘উদার' মনোভাব নিয়ে পোপ ফ্রান্সিস কট্টর রক্ষণশীল ক্যাথলিকদের বিরাগভাজন হয়েছেন৷

ক্যাথলিক চার্চের অতীত ও বর্তমান অনেক কার্যকলাপেরও সমালোচনা করেছেন তিনি৷ এমনকি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ক্যাথলিক যাজকদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতন সম্পর্কেও মুখ খুলেছেন পোপ৷ এমন আচরণের নিন্দা ও সমালোচনা করেছেন৷

যারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, তাদের কাছে পোপ ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন৷ কিন্তু এবার তিনি নিজেই সমালোচনার শিকার হলেন৷

ভ্যাটিকান সিটির সাবেক কর্মকর্তা আর্চবিশপ কার্লো মারিয়া ভিগানো তার বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ করেছেন৷

ভিগানো দাবি করেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্যাথলিক যাজক কার্ডিনাল থিওডোর ম্যাককারিক যৌন নির্যাতন করে চলেছেন, এমন ঘটনা জানা সত্ত্বেও পোপ ফ্রান্সিস নাকি বছরের পর বছর নীরব থেকে ‘সমকামিতা' বরদাশত করে এসেছেন। ম্যাককারিক গত মাসেই পদত্যাগ করেছেন৷

আর্চবিশপ ভিগানো বলেন, মাফিয়া জগতের মতো ক্যাথলিক গির্জায়ও নীরবতার ষড়যন্ত্র চলছে৷ পোপ এ ক্ষেত্রে বারবার ‘জিরো টলারেন্স' এবং সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার ডাক দেয়া সত্ত্বেও নিজে ভুলত্রুটি স্বীকার করছেন না বলে মনে করেন তিনি৷ এ জন্য তিনি পোপের পদত্যাগেরও দাবি তুলেছেন৷

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্যাথলিক গির্জা চরম সংকটে পড়েছে৷ প্রায় দুই সপ্তাহ আগে পেনসিলভানিয়া রাজ্যে চার্চের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগের ভিত্তিতে সবচেয়ে বড় তদন্তের ফল প্রকাশিত হয়েছে৷

শুধু একটি রাজ্যেই গত ৭০ বছরে ৩০১ যাজক নাবালকদের ওপর যৌন নিপীড়ন চালিয়েছেন বলে সেই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে৷

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ, চিলি ও অস্ট্রেলিয়ায় সম্প্রতি একের পর এক অভিযোগের ফলে ক্যাথলিক চার্চের বিশ্বাসযোগ্যতার মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে৷

আয়ারল্যান্ড সফরেও পোপ সেই ক্ষোভ প্রশমনের চেষ্টা করেছেন৷ জোরালো প্রতিবাদ-বিক্ষোভের মাঝে তিনি সেখানে এক জনসভায় ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন৷

আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকর সরাসরি পোপের উদ্দেশ্যে নিপীড়নের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার ডাক দিয়েছেন৷

পোপ ফ্রান্সিস নিজে এখনও এ অভিযোগ সম্পর্কে সরাসরি কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি৷

আয়ারল্যান্ড সফর শেষে দেশে ফেরার সময়ে সাংবাদিকরা বিমানে তাকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করেন৷ পোপ ফ্রান্সিস সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে আন্তরিকভাবে অভিযোগপত্রটি ভালো করে পড়ে দেখে নিজেরাই তা বিচার করার অনুরোধ করেন৷ সূত্র: ডয়েচে ভেলে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter