মোমোর চেয়েও ভয়ঙ্কর মরণগেম গ্র্যানি!

  যুগান্তর ডেস্ক    ৩১ আগস্ট ২০১৮, ১৯:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

মোমোর চেয়েও ভয়ঙ্কর মরণগেম গ্র্যানি!
অনলাইন মোবাইল গেম গ্র্যানি।

ব্লু-হোয়েল শেষে অতঃপর চলছে মোমো আতঙ্ক। তবে মোমোর ছোবলের মাঝেই হাজির হলো আরেক নতুন মরণগেম। এ নতুন অনলাইন মরণগেমের নাম গ্র্যানি।

এই গেমের খপ্পরে পড়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছে অনেক কোমলমতি শিক্ষার্থী। বিশেষ করে ভারতে ফাঁদ পেতেছে এ মরণগেম। গ্র্যানির ফাঁদে পা রাখার জন্য অনেককেই এসএমএস বা অনলাইনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

ইতিমধ্যে গ্র্যানি নামক এই মোবাইল গেমটি খেলে অসুস্থ হয়ে পড়েছে তিন স্কুলছাত্র। খবর: জি নিউজের।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের জলপাইগুড়ির ময়নাগুড়িতে।

খবরে প্রকাশ, অস্বাভাবিক আচরণ করছে গ্র্যানিগেমে আসক্ত ওইসব ছাত্ররা। বাড়ির লোকজনকে মারধর করছে তারা। আবার কখনো তারা নিজেই মরে যেতে চাইছে। 'আমি বাঁচতে চাই না, মরতে দাও' চিৎকার করে বাড়িকে মাথায় তুলছে তারা।

পরিস্থিতি ভয়াবহ দেখে স্থানীয় থানার দ্বারস্থ হয়েছে তাদের পরিবার।

গ্র্যানিগেম আসক্ত ওই তিন ছাত্রের দুজন দশম শ্রেণির, একজন একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

জানা গেছে, দিনকয়েক আগে তাদের মধ্যে একজনের কাছে গ্র্যানিগেমের লিংক আসে। গেমটি ডাউনলোড করে খেলতে শুরু করে সে। একাই প্রথম ধাপ খেলে।

এরপর সে গ্র্যানিগেমের লিংকটি বাকি দুই বন্ধুর সঙ্গে শেয়ার করে। তারপর বুধবার রাতে তারা তিনজন একসঙ্গে গেমটি খেলতে শুরু করে।

গ্র্যানিগেম আসক্ত ওই তিন ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গেমটির আদ্যোপান্ত ভৌতিক ধরনের। গেমে দেখানো হয়, ঘরের মধ্যে থাকা ভূত তাদের খুন করছে আর মোবাইল স্ত্রিন 'রক্তে' ভরে উঠছে।

ব্লু-হোয়েল, মোমোর মতো এক্ষেত্রেও খেলোয়াড়কে বিভিন্ন ধরনের 'টাস্ক' করতে নির্দেশ দেয়া হয় জানান তারা।

তারা আরও জানায়, চার ধাপের গেমটির তিনটি ধাপ খেলে ফেলেছিল তারা। আর তারপরই তারা সবাই অসুস্থ হয়ে পড়ে।

এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার ময়নাগুড়ি থানার আইসি নন্দকুমার দত্ত জানিয়েছেন, ওই ছাত্রদের পরিবার মোবাইলগুলো জমা দিয়ে গেছে। সেগুলো খতিয়ে দেখা হবে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter