যে কারণে পুড়ল ব্রাজিলের সবচেয়ে প্রাচীন জাদুঘরটি

  যুগান্তর ডেস্ক ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

ব্রাজিলের যাদুঘর
ছবি: এএফপি

কেবল টাকার অভাবেই ব্রাজিলের ২০০ বছরের পুরনো জাতীয় জাদুঘরটি পুড়ে গেছে। এটির বিপজ্জনক অবস্থা নিয়ে আগে থেকেই কর্তৃপক্ষকে তাগাদা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

বিশেষজ্ঞরাও ভবনটিতে অগ্নিকাণ্ডের ব্যাপারে কয়েক বছর ধরেই সতর্ক করে আসছিলেন। এর পরও সরকার প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দেয়নি বলে অভিযোগ কর্মকর্তাদের।

রোববার রিও ডি জেনেইরোর জাদুঘরটিতে লাগা আগুন আমেরিকা মহাদেশের নৃতত্ত্ব ও প্রাকৃতিক ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সংগ্রহকে প্রায় নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে।

এসব সংগ্রহের মধ্যে লুজিয়া নামে পরিচিত ১২ হাজার বছরের পুরনো এক নারীর দেহাবশেষও আছে। এটিই লাতিন আমেরিকায় পাওয়া মানুষের সবচেয়ে প্রাচীন দেহাবশেষ বলে বিবিসি জানিয়েছে।

অগ্নিকাণ্ডের পর জাদুঘরের উপপরিচালক লুইস ফারনান্দো দিয়াস দুয়ার্তে বলেন, আমরা পর্যাপ্ত সহযোগিতা পাইনি। ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে এ জন্য ব্রাজিলীয় কর্তৃপক্ষের মনোযোগের ঘাটতিকে দায় দিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, আজ যেসব অমূল্য সম্পদ ধ্বংস হল, তা রক্ষায় কয়েক বছর ধরে, বিভিন্ন সরকারের সঙ্গে লড়েছিলাম আমরা।

সোমবার সকালে জাদুঘরের ফটকে বিক্ষুব্ধ লোকজন জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। এসব আন্দোলনকারীও আগুনের জন্য সরকারের বাজেট কাটছাঁটকেই দায়ী করেছেন। বিক্ষোভকারীদের দমাতে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাস ছুড়তেও দেখা গেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

অগ্নিনির্বাপক সরঞ্জামসহ জাদুঘরটির আধুনিকায়নে সরকার ৫৩ লাখ ডলার দিতে জুনে রাজি হয়েছিল বলে গ্লোবো টিভিকে জানিয়েছেন দুয়ার্তে। অক্টোবরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর ওই অর্থ দেয়ার কথা ছিল।

তহবিল ঘাটতির তীব্র সমালোচনা করেছেন সামনের মাসের নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া মারিনা সিলভাও। বাম ঘরানার এ রাজনীতিক টুইটারে বলেছেন- রিও ডি জেনেইরোর কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্যান্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে গত তিন বছর ধরে আর্থিক সংকটে রাখা হয়েছে। এই দুঃখজনক পরিণতি যে আসছেই, তা আগেই বোঝা উচিত ছিল।

রোববার রাতে জাদুঘর বন্ধ হওয়ার পর কোনো একসময় ওই ভবনে আগুন লাগে। একসময় পর্তুগিজ রাজপরিবারের আবাসস্থল হিসেবে ব্যবহৃত ওই ভবনটির ২০০ বছর পূর্তি উদযাপন হয়েছিল চলতি বছরের শুরুর দিকে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.