শবেবরাতেও ক্ষমা পাবে না যারা

প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০১৯, ২০:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

ছবি: সংগৃহীত

শবেবরাত একটি পুণ্যময় রজনী। এ রাতে আল্লাহ তায়ালা বান্দার সব গুনাহ ক্ষমা করে দেন। হজরত আয়েশা সিদ্দিকা (রা.)  থেকে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন মহান আল্লাহ এই রাতে দুনিয়ার প্রথম আকাশে অবতীর্ণ হয়ে দুনিয়াবাসীর ওপর তার খাস রহমত নাজিল করেন। কালব গোত্রের মেষের গায়ে যত পশম রয়েছে তার চেয়েও অধিকসংখ্যক বান্দাকে তিনি ক্ষমা করেন। -সুনানে তিরমিজি ১ম খণ্ড, হাদিস নং ৭৩৯, পৃষ্ঠা ১৫৬

তবে আল্লাহ তায়ালার বিশেষ ক্ষমার ঘোষণা থাকা সত্ত্বেও এ রাতে সাত শ্রেণির মানুষ মুক্তি পাবে না। তারা হলো- ১. মুশরিক, ২. মদপানকারী, ৩. পিতা-মাতার অবাধ্যতাকারী, ৪.  হিংসা পোষণকারী, ৫. আত্মীয়তার বন্ধন ছিন্নকারী, ৬. জিনাকারী, ৭. অহংকারী।

সুতরাং বরকতময় এ রাতে আল্লাহ তায়ালার ক্ষমা ও দয়া পেতে আমাদের এ গুনাহগুলো ছাড়তে হবে।

গুনাহ মুক্তির প্রধান পদ্ধতি হলো আল্লাহর কাছে খাঁটিভাবে তওবা করা। 

তওবা এবং ইস্তেগফারের চারটি শর্ত।

এক. অতীতের সব গুনাহ সম্পর্কে অনুতপ্ত হওয়া।

দুই. যে গুনাহের তওবা করা হচ্ছে সেই গুনাহ তখনই ত্যাগ করা।

তিন. আগামীতে উক্ত গুনাহ না করার দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হওয়া।

চার. গুনাহ যদি বান্দার হকসংশ্লিষ্ট হয়, তাহলে তার হক আদায় করে দেয়া বা ক্ষমা চেয়ে নেয়া।

উল্লিখিত চারটি শর্তের সঙ্গে যখন নয়নযুগল হতে অশ্রু ঝরাতে পারবে তখনই তওবা কবুলের নিশ্চিত আশা বান্দা করতে পারবে।