১৮তম তারাবিতে আজকে যা পড়া হবে

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৩ মে ২০১৯, ১৭:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

নামাজের জামাত
ছবি: সংগৃহীত

আজ ১৮তম তারাবিতে সূরা আনকাবুতের পঞ্চম রুকু থেকে সূরার শেষ পর্যন্ত পঠিত হবে। সঙ্গে সূরা রুম, লোকমান ও সেজদা সম্পূর্ণ এবং সূরা আহজাবের চতুর্থ রুকুর প্রথমার্ধ পর্যন্ত পড়া হবে। পারা হিসেবে আজ পড়া হবে ২১তম পারা।

পাঠকদের জন্য আজকের তারাবিতে পঠিত অংশের মূলবিষয়বস্তু তুলে ধরা হল।

২৯. সূরা আনকাবুত : ৪৫-৬৯

পঞ্চম ও ষষ্ঠ রুকু। ৪৫ থেকে ৬৩ নম্বর আয়াতে আল্লাহ তায়ালা আমাদের প্রিয়নবী (সা.) এবং তাঁর পেয়ারা উম্মত অর্থাৎ আমাদের জন্য বেশ কিছু নসিহত করেছেন। আহলে কিতাবদের সঙ্গে কী ধরণের আচরণ করব, কাফেরদের সঙ্গেই বা কিভাবে ব্যবহার করব এসব বলা হয়েছে বিস্তারিতভাবে। বলা হয়েছে আল কোরআনের মাহাত্ম্য সম্পর্কেও।

সপ্তম তথা শেষ রুকু। ৬৪ থেকে ৬৯ নম্বর আয়াতে বিশ্বাসী ও অবিশ্বাসীদের উদ্দেশ্যে সংক্ষেপে বিবেক জাগ্রত করা কিছু কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে শেষ করা হয়েছে সূরা আনকাবুত।

৩০. সূরা রুম : ১-৬০

সূরা রুম। নাজিল হয়েছে মক্কায়। আয়াত সংখ্যা ৬০। রুকু সংখ্যা ছয়। পূর্ণ সূরাই আজ পড়া হবে সালাতুত তারাবিতে।

প্রথম রুকু, ১ থেকে ১০ নম্বর আয়াত। সূরার শুরু হয়েছে মুসলমানদের রোম বিজয়ের ভবিষ্যতবাণী করে। যা অল্প ক’বছরেই ধ্রুব সত্যে পরিণত হয়। যারা বিশ্বাসী শুধু তারাই কোরআনের এ কথা বিশ্বাস করবে।

দ্বিতীয় রুকু, ১১ থেকে ১৯ নম্বর আয়াত। আল্লাহ প্রাণের সূচনা করেছেন। তিনিই আবার এর পুণরুত্থান করবেন। সেদিন বিশ্বাসী অবিশ্বাসীদের বিভিন্ন শ্রেণিতে ভাগ করে তাদের কর্মফল দেয়া হবে।

তৃতীয় ও চতুর্থ রুকু, ২০ থেকে ৪০ নম্বর আয়াত। আল্লাহ তায়ালা বিভিন্ন উপমা দিচ্ছেন বান্দা যাতে এসব চিন্তা-গবেষণা করে আল্লাহমুখী হতে পারে। কিন্তু খুব কম মানুষই আল্লাহর দিকে ফিরে আসে। বরং তারা খুবই অকৃতজ্ঞের মত আচরণ করে থাকে।

পঞ্চম ও ষষ্ঠ তথা শেষ রুকু, ৪১ থেকে ৬০ নম্বর আয়াত। মানুষ নিজের কর্মের কারণেই নিজের বিপদ ডেকে আনে। তাই তাকে আরো সতর্ক ও সচেতন হতে হবে। একথা বোঝানোর জন্য আরো কয়েক ধরণের উপমা দেওয়া হয়েছে। সর্বশেষ বলা হয়েছে, এসব উপমা মানুষের বোঝার জন্যই। তাই ধৈর্যের সঙ্গে আল্লাহর পথে অটল থাকুন হে নবী।

৩১. সূরা লোকমান : ১-৩৪

চার রুকু বিশিষ্ট সূরা লোকমানের আয়াত সংখ্যা ৩৪। এটি নাজিল হয়েছে মক্কায়। এ সূরাও সম্পূর্ণ পড়া হবে আজকের তারাবিতে।

প্রথম রুকু। ১ থেকে ১১ নম্বর আয়াতে আল কোরআনের মাহাত্ম্য তুলে ধরা হয়েছে। যারা কোরআনের বিপরীতে অন্য কিছু গ্রহণ করে তাদের শাস্তির কথা বলা হয়েছে।

দ্বিতীয় রুকু। ১২ থেকে ১৯ নম্বর আয়াতে জ্ঞানী লোকমান হাকীম তার ছেলেকে যে সব মহা মূল্যবান নসিহত করেছেন তা উম্মতে মোহাম্মাদীর জন্য তুলে দেয়া হয়েছে।

তৃতীয় ও চতুর্থ তথা ২০ থেকে ৩২ নম্বর আয়াতে শেষ রুকুতে আল্লাহ তায়ালা বান্দাকে প্রশ্নোচ্ছলে বিভিন্ন উপদেশ-উপমা দিয়েছেন। সর্বশেষ আল্লহতে সমর্পণ হওয়ার আহ্বান করে সূরার ইতি টানা হয়েছে।

৩২. সূরা সেজদা : ১-৩০

মক্কায় অবতীর্ণ সূরা সেজদার আয়াত সংখ্যা ৩০ এবং রুকু সংখ্যা তিন। পুরো সূরাই পঠিত হবে আজ।

প্রথম রুকু। ১ থেকে ১১ নম্বর আয়াতে আল্লাহ তায়ালা তার সৃষ্টি নৈপুন্যের বর্ণনা দিয়েছেন।

দ্বিতীয় রুকু। ১২ থেকে ২২ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে এত সুন্দর ও নিখুঁত সৃষ্টি বৈচিত্র দেখেও যারা আল্লাহ এবং তার রাসুলের ওপর ইমান আনবে না তাদের জন্য রয়েছে যন্ত্রণাদায়ক আজাব।

তৃতীয় তথা শেষ রুকু, ২৩ থেকে ৩০ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে কেন মানুষ তার মহান প্রভুর প্রতি ইমান আনবে। কোন যুক্তির আলোকে সে নিজেকে মহান মাবুদের প্রতি সমর্পিত করবে- এসব বলেই সূরার সমাপ্তি টানা হয়েছে।

৩৩. সূরা আহজাব : ১-৩০

সূরা আহজাব নাজিল হয়েছে মদীনায়। আয়াত সংখ্যা ৭৩ এবং রুকু মোট ৯টি। আজ পঠিত হবে চতুর্থ রুকুর তৃতীয় আয়াত পর্যন্ত।

প্রথম রুকু। ১ থেকে ৮ নম্বর আয়াত পর্যন্ত নবীজী (সা.)কে বিশেষ কিছু হেদায়াত করা হয়েছে।

দ্বিতীয় ও তৃতীয় রুকু। ৯ থেকে ২৯ নম্বর আয়াতে মোমিন ও মোনাফিকদের চরিত্র-বৈশিষ্ট নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

চতুর্থ রুকুর প্রথম তিন আয়াত। এখানে আবার রাসুল (সা.) এর পারিবারিক বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে, যেখানে মোমিনদের জন্য অনেক বেশি শিক্ষণীয় রয়েছে

ঘটনাপ্রবাহ : তারাবিতে পঠিত আয়াতসমূহের সারাংশ

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×