রমজানের শেষ দশকে শাইখ সুদাইসের বিশেষ নির্দেশনা

  নাজমুল হুদা, মক্কা মোকাররমা থেকে ১৫ মে ২০২০, ০৪:০৭:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

মক্কা-মদিনা বিষয়ক অধিদফতরের প্রেসিডেন্ট শাইখ আব্দুর রহমান সুদাইস। ছবি: সংগৃহীত

পবিত্র মাহে রমজানের শেষ দশক উপলক্ষ্যে মক্কার মসজিদুল হারামে মক্কা-মদিনা বিষয়ক অধিদফতরের প্রেসিডেন্ট শাইখ আব্দুর রহমান সুদাইস গুরুত্বপূর্ণ কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন।

বুধবার এশার পর মসজিদুল হারামে রমজানের শেষ দশকের আগমনে গুরুত্বপূর্ণ নসিহত প্রদান করেন।

তার বক্তব্যের চুম্বুকাংশ যুগান্তর অনলাইনের পাঠকের জন্যতুলে ধরা হলো-

আল্লাহর প্রশংসা ও রাসুলের ওপর দরুদ পাঠ করছি। শেষ দশকের আগমনে সবার প্রতি আন্তরিক মোবারকবাদ রইলো। আল্লাহর সুন্দর নামসমূহ এবং সুউচ্চ গুণাবলীর মাধ্যমে তার কাছে ফরিয়াদ করছি, তিনি যেন এই শেষ দশককে আমাদের সকলের জন্য বরকতের কারণ বানান।

আর আমাদের দিনের রোজা এবং রাতের নামাজকে কবুল করে নেন। সঙ্গে যেন লাইলাতুল কদরে ইবাদত ও তা পাওয়ার সৌভাগ্য দান করেন। যারা পূণ্যময় এই রজনীতে ঈমান ও সওয়াবের নিয়তে দাঁড়াবে, তাদের অর্ন্তভূক্ত করেন।

প্রিয় মুসলমানগণ!

রমজানের শেষ দশ দিনের মর্যাদার কথা আমাদের কারোরই অজানা নয়। এ সময়টি রাসুল (সা.) ইবাদতের জন্য নির্ধারণ করতেন, যেমনটি অন্য দিনকে করতেন না।

হজরত আয়েশা (রা.) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল (সা.) রমজানের শেষ দশকে এতো পরিমাণ ইবাদত করতেন, যেমনটি তিনি অন্য সময় করতেন না। (মুসলিম: ১১৭৫)

অন্য এক হাদিসে হজরত আয়েশা (রাজি.) হতে বর্ণিত, যখন রমজানের শেষ দশকের আগমন হতো, রাসুল (সা.) সেসব রাত্রিগুলোতে বিনিদ্র থাকতেন, পরিবারের লোকদের ঘুম থেকে জাগিয়ে তুলতেন এবং (অধিক আমলের জন্য) শক্তভাবে কোমর বেঁধে নিতেন। (বুখারী: ২০২৪)

তাই, আমাদের জন্য অধিকতর সমীচিন হলো শেষ দশকের দিন-রাতের পুরো সময়কে কাজে লাগানো।

এসব রাতের মাঝে লাইলাতুল কদর নামে একটি মহিমন্বিত রাত রয়েছে, তা হাজারো মাস অপেক্ষা উত্তম। তাই এই রাতকে পেতে যথাযথভাবে রোজা পালন, নামাজ, কোরআন তিলাওয়াত, কল্যানমূলক কাজ, দান-সদকা এবং দোয়ার মাধ্যমে এ সময়গুলোকে মূল্যবান করতে হবে।

শেষ দশ দিনে আমরা যেন বেশি বেশি দোয়ায় আগ্রহী হই। হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি আল্লাহর রাসুলকে জিজ্ঞেস করলাম, ইয়া রাসুলাল্লাহ! কোন রাতটি লাইলাতুল কদর আমি যদি তা বুঝতে পারি; তাহলে সে রাতে আমি কি দোয়া করব?

রাসুল (সা.) বললেন, তুমি এই দোয়া করবে, আল্লাহুম্মা ইন্নাকা আফুওউন, তুহিব্বুল আফওয়া; ফা’ফু আন্নী’। অর্থাৎ হে আল্লাহ! নিশ্চয় আপনি ক্ষমাশীল-মহানুভব। আপনি ক্ষমা কতে ভালোবাসেন; তাই (অনুগ্রহপূবর্ক) আমাকে ক্ষমা করে দিন। (তিরমিজী: ৩৫১৩)

এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ দোয়া। এই দোয়াটি অধিক পরিমাণে পাঠ করা উচিত। আর আমাদের উচিত হলো নিজেদের জন্য দোয়া করা এবং সব মুসলমানদের জন্য দোয়া করা; যাতে আমাদের উপর আপতিত এ মুসিবত বিদায় নেয়।

হে মুসলিমগণ! বরকতের এ দিনগুলোতে আমাদের উচিত হলো সময়ের প্রতি যত্মবান হওয়া। কারণ সময় হলো সংরক্ষণের বিবেচনায় অতি মূল্যবান বস্তু। আর আমরা খুব সহজেই তা বিনষ্ট করে ফেলি।

আজ সবচেয়ে প্রবঞ্চনা ও দূর্ভাগ্যের কারণ হলো, লোকজন আজ এমন কাজে নিজেদের সময় নষ্ট করে, যাতে তার কোন লাভ নেই। বিশেষ করে মোবাইল ফোন ব্যবহারে আমাদের আরো সতর্ক থাকা উচিত।

তাই আমাদের কোরআন তেলাওয়াত, জিকির, তাওবা, ইসতেগফার এবং দোয়ার প্রতি মনোনিবেশ করা দরকার।

আল্লাহর ইরশাদ, ‘(হে নবী) আর আমার বান্দারা যখন আমার ব্যাপারে আপনার কাছে জিজ্ঞেস করে, বস্তুত আমি তাদের সন্নিকটেই আছি। প্রার্থনাকারী যখন প্রার্থনা করে, তখন আমি তার প্রার্থনা কবুল করে থাকি। কাজেই আমার হুকুম মান্য করা এবং আমার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করা তাদের একান্ত কর্তব্য। যাতে তারা সৎ পথে আসতে পারে।’ (সূরা বাকারা: ১৮৬)

দোয়া মুমিনের মহান হাতিয়ার। বিশেষ করে বর্তমান বিশ্বে চলমান করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট সংকট হতে উত্তরণের জন্য।

এসব দিনে মসজিদুল হারামে লাখো মুসল্লি ইতেকাফের জন্য অবস্থান করতেন। বর্তমান প্রতিকূল পরিস্থিতির কারণে না আসতে পারলেও নিঃসন্দেহে তারা সেসব আমল ও সওয়াবের ভাগিদার হবেন।

আমি নিজেকে এবং সকলকে খোদাভীতি এবং বরকতের এই দিন-রাতগুলোতে অধিক পরিমাণে ইবাদতের অসিয়ত করছি।

এসবের ভেতর দিয়ে আশা করি আমরা লাইলাতুল কদর পাবো, ইনশাআল্লাহ এবং জাহান্নাম হতে মুক্তির পরোয়ানাও পেয়ে যাবো।

পরিশেষে আমরা আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করছি, যেন তিনি আমাদের আমলসমূহকে কবুল করে নেন এবং লাইলাতুল কদর প্রাপ্তির সৌভাগ্য দান করেন।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত