মানবসেবার লক্ষ্য নিয়ে যাত্রা শুরু মুসলিম রিসার্চ সেন্টারের

  যুগান্তর ডেস্ক ১৫ আগস্ট ২০২০, ২০:৪৮:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

ইসলাম ধর্মের বিষয়ে উন্নত গবেষণা এবং ইসলামী শিক্ষার বিস্তার ও মানবসেবার লক্ষ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করল মুসলিম রিসার্চ সেন্টার (এমআরসি)।

বিভিন্ন ধরনের আয়োজন ছাড়াও আন্তর্জাতিক মানেরওয়েবসাইট(www.muslimresearchcentre.com) ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে মানুষকে ইসলামের প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সরবরাহ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

মূলত কোরআন ও হাদিসের উপর উন্নতর গবেষণা, ইসলাম ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও মহামারীতে বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে কাজ শুরু করেছে এই প্রতিষ্ঠান।
বাংলাদেশে মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানার উন্নয়নেও ভূমিকা রাখবে এই সেন্টার।

মুসলিম রিসার্চ সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মাদ রশিদ আল মাজিদ খান সিদ্দীকী মামুন জানিয়েছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। সমাজ এবং ব্যক্তি জীবনে ইসলামের সঠিক চর্চা করতে পারলে অপরাধ কমে যাবে, মানুষের প্রতি মানুষের সহমর্মিতা বাড়বে এবং পৃথিবীকে আরও সুন্দর হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

একটি মুসলিম সেন্টার থেকে যেন মানুষ দৈনন্দিন জীবনে ইসলামের চর্চা সম্পর্কিত প্রশ্নগুলোর গবেষণালব্ধ উত্তর পেতে পারেন সেটার চেষ্টা করছি আমরা।

এছাড়া বিপদগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানো এবং অন্য ধর্ম অবলম্বনকারীদের কাছে ইসলামের বাণী ছড়িয়ে দেয়া আমাদের অন্যতম লক্ষ্য।

ওয়েবসাইটের (www.muslimresearchcentre.com/dua) মাধ্যমে সহজেই সবাই পড়তে জানতে পারবেন দৈনন্দিনের প্রয়োজনীয় দোয়াসমূহ।

এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির রিসার্চারগণ প্রতিনিয়ত লিখে যাচ্ছেন সমসাময়িক ইস্যুর উপর জরুরি মাসায়েল। যা পাঠক ঘরে বসেই ওয়েবসাইটের ব্লগ সেকশনে (www.muslimresearchcentre.com/blog) পেয়ে যাবে।

এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুসলিম রিসার্চ সেন্টারের পেজে, কোরআনের বাছাইকৃত আয়াত সহজ অর্থে প্রচার করে যাচ্ছে মুসলিম রিসার্চ সেন্টার (এমআরসি)।

একই সঙ্গে নামায, রোজা, হজ, জাকাত, কোরবানি এবং নবীর (সা.) সুন্নতের মতো বিষয়গুলোতে মানুষের করণীয় সর্ম্পকেও কোরআন ও হাদিসের আলোকে ব্যাখা প্রচার করা হচ্ছে।

বাংলা এবং ইংরেজি উভয় মাধ্যমেই এই ব্যাখ্যাগুলো ফেসবুক পেজে (www.facebook.com/MuslimResearchCentre) নিয়মিত প্রচারিত হচ্ছে।

ইতিমধ্যে ঢাকার গুলশানে সঠিক নিয়মে কুরআন শিক্ষার উদ্যোগের পাশাপাশি একটি হেফজখানা প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে মুসলিম রিসার্চ সেন্টার।

সম্পূর্ণ আধুনিক উপায়ে কোরআন শিক্ষা ও হেফজখানাটি বাস্তবায়েনের দায়িত্ব নিয়েছেন আল্লামা হাফেজ ক্বারি আব্দুল জলীল।

বর্তমানে হাফেজ ক্বারি আব্দুল জলীল গুলশানে একটি মসজিদে খতীব ও ইমামতির দায়িত্ব পালন করছেন।

এছাড়া কোরআন এবং হাদিসের উপর উন্নত গবেষণার লক্ষে দেশে বিদেশে ইসলামিক রিসার্চার নিয়োগ দিচ্ছেন মুসলিম রিসার্চ সেন্টার (এমআরসি)।

একইসঙ্গে কিভাবে নবী করিম (সা.) এর নির্দেশিত পথে মুসলিমরা জীবন যাপন করতে পারেন সেটি নিয়েও কাজ করবে প্রতিষ্ঠানটি।

করোনাকালীন মহামারীতে সুবিধাবঞ্চিত ও বিপদগ্রস্ত আলেমদের পাশেও দাঁড়িয়েছে মুসলিম রিসার্চ সেন্টার (এমআরসি)। আলেমদের সাহায্য করার উপর বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মসজিদ ও এতিমখানা সংস্কার এবং জনবল নিয়োগ দিয়ে পুনরায় চালু করার উদ্যোগ নেয় মুসলিম রিসার্চ সেন্টার।

এছাড়া ব্যক্তি বা প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে মানুষকে ইসলামিক পরামর্শ প্রদান, দান এবং মৃতদেহ দাফনের কাজও শুরু করেছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত