ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে শুদ্ধ হবে?
jugantor
ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে শুদ্ধ হবে?

  অনলাইন ডেস্ক  

১৩ জুন ২০২১, ১৫:৫০:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে শুদ্ধ হবে?

প্রশ্ন: প্রবাসে বা দূরে থাকার কারণে এখন অনেকেই ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করে থাকেন। এভাবে বিয়ে করলে তা কি শুদ্ধ হবে?

উত্তর: ফোনে বা ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে তা শুদ্ধ হয় না। কেউ যদি ভুলক্রমে বা না জেনে এভাবে বিয়ে করে ফেলেন, তা হলে বাসরের আগে দুজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে অবশ্যই নতুন করে বিয়ে পড়িয়ে নিতে হবে।

কারণ বিয়ের ইজাব কবুল শুদ্ধ হওয়ার জন্য ইত্তিহাদুল মাজলিস (প্রত্যক্ষভাবে একই আসর, মজলিস, বৈঠকে) হওয়া শর্ত। ভিডিওকলের ক্ষেত্রে এই শর্ত পাওয়া যায় না। এখানে অপরপক্ষের প্রতিচ্ছবি দেখা গেলেও ব্যক্তি সশরীরে অনুপস্থিত। তাই ইত্তিহাদুল মজলিস হয় না।

তবে যদি বরপক্ষের কাছে কনে পক্ষের উকিল (কাউকে নিজেদের পক্ষ থেকে প্রস্তাব প্রদান ও গ্রহণের অধিকার বা সম্মতি দেওয়া হলেই তিনি উকিল বা প্রতিনিধি সাব্যস্ত হন) উপস্থিত থাকে এবং তারা ইজাব কবুল করে তা হলে নিঃসন্দেহে বিবাহ হয়ে যাবে।

কারণ ইত্তিহাদুল মজলিসের শর্ত এ ক্ষেত্রে পূরণ হয়ে যায়। অনুরূপভাবে কনে পক্ষের কাছে বরপক্ষের উকিল উপস্থিত থেকে ইজাব কবুল করলেও একই বিধান প্রযোজ্য।

মোটকথা কোনো একপক্ষ ও অপরপক্ষের উকিলের উপস্থিতিতেও ইজাব কবুল সংঘটিত হলে বিয়ে হতে কোনো সমস্যা নেই। এ ক্ষেত্রে বর-কনের ভিডিওকলের মাধ্যমে ইজাব কবুল করাও অর্থহীন। তবে দর্শক হিসেবে ভিডিওকলে থাকতে সমস্যা নেই।

অতএব দূরে অবস্থানকারী কাউকে বিবাহ করতে চাইলে ফোনের মাধ্যমেই সেখানে উপস্থিত কাউকে উকিল বানিয়ে দেবে। এবং সেই উকিল তার মক্কেলের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত অপরপক্ষের সঙ্গে ইজাব কবুল করবেন।

তথ্যসূত্র: ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/২৯৪, ১/৩৬৯; আদ্দুররুল মুখতার ৩/৫১৬; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৪/৩৬; আল মাবসুত ৫/১৬-১৭, ফাতওয়ায় উসমানী-২/৩০৬; ফাতওয়া লাজনাতিদ্দায়িমাহ ১৮/৯০( আরবের কেন্দ্রীয় ফতওয়া বোর্ডের সিদ্ধান্ত)

ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে শুদ্ধ হবে?

 অনলাইন ডেস্ক 
১৩ জুন ২০২১, ০৩:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে শুদ্ধ হবে?
ছবি: সংগৃহীত

প্রশ্ন: প্রবাসে বা দূরে থাকার কারণে এখন অনেকেই ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করে থাকেন। এভাবে বিয়ে করলে তা কি শুদ্ধ হবে?

উত্তর: ফোনে বা ভিডিওকলের মাধ্যমে বিয়ে করলে তা শুদ্ধ হয় না। কেউ যদি ভুলক্রমে বা না জেনে এভাবে বিয়ে করে ফেলেন, তা হলে বাসরের আগে দুজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে অবশ্যই নতুন করে বিয়ে পড়িয়ে নিতে হবে। 

কারণ বিয়ের ইজাব কবুল শুদ্ধ হওয়ার জন্য ইত্তিহাদুল মাজলিস (প্রত্যক্ষভাবে একই আসর, মজলিস, বৈঠকে) হওয়া শর্ত। ভিডিওকলের ক্ষেত্রে এই শর্ত পাওয়া যায় না।  এখানে অপরপক্ষের প্রতিচ্ছবি দেখা গেলেও ব্যক্তি সশরীরে অনুপস্থিত। তাই ইত্তিহাদুল মজলিস হয় না। 

তবে যদি বরপক্ষের কাছে কনে পক্ষের উকিল (কাউকে নিজেদের পক্ষ থেকে প্রস্তাব প্রদান ও গ্রহণের অধিকার বা সম্মতি দেওয়া হলেই তিনি উকিল বা প্রতিনিধি সাব্যস্ত হন) উপস্থিত থাকে এবং তারা ইজাব কবুল করে তা হলে নিঃসন্দেহে বিবাহ হয়ে যাবে। 

কারণ ইত্তিহাদুল মজলিসের শর্ত এ ক্ষেত্রে পূরণ হয়ে যায়। অনুরূপভাবে কনে পক্ষের কাছে বরপক্ষের উকিল উপস্থিত থেকে ইজাব কবুল করলেও একই বিধান প্রযোজ্য। 

মোটকথা কোনো একপক্ষ ও অপরপক্ষের উকিলের উপস্থিতিতেও ইজাব কবুল সংঘটিত হলে বিয়ে হতে কোনো সমস্যা নেই। এ ক্ষেত্রে বর-কনের ভিডিওকলের মাধ্যমে ইজাব কবুল করাও অর্থহীন। তবে দর্শক হিসেবে ভিডিওকলে থাকতে সমস্যা নেই।

অতএব দূরে অবস্থানকারী কাউকে বিবাহ করতে চাইলে ফোনের মাধ্যমেই সেখানে উপস্থিত কাউকে উকিল বানিয়ে দেবে। এবং সেই উকিল তার মক্কেলের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত অপরপক্ষের সঙ্গে ইজাব কবুল করবেন।

তথ্যসূত্র: ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/২৯৪, ১/৩৬৯; আদ্দুররুল মুখতার ৩/৫১৬; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৪/৩৬; আল মাবসুত ৫/১৬-১৭, ফাতওয়ায় উসমানী-২/৩০৬; ফাতওয়া লাজনাতিদ্দায়িমাহ ১৮/৯০( আরবের কেন্দ্রীয় ফতওয়া বোর্ডের সিদ্ধান্ত)

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন