করোনার কারণে যেতে না পারলে কি আবার হজ করতে হবে?
jugantor
করোনার কারণে যেতে না পারলে কি আবার হজ করতে হবে?

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ জুন ২০২১, ১৫:১১:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বায়তুল্লাহ, আল্লাহর ঘর। মদিনা, প্রিয় নবীর শহর। মক্কার কালো গিলাফ আর মদিনার সবুজ গম্বুজ ছুঁয়ে দেখার জন্য প্রতিটি মুমিন গোনেন প্রতীক্ষার প্রহর।

বহুদেশ বহু ভাষাভাষী, ভিন্ন ভিন্ন পরিবেশ থেকে আগত ও বিচিত্র মনমানসিকতাসম্পন্ন মুসলিম উম্মাহ পবিত্র হজব্রত পালনে মক্কা নগরীতে আসতেন।

মানুষের জীবনে মৃত্যু ও জন্ম একবারই। তেমনি একবারের জন্যই হজ ফরজ হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ এ রুকন স্তম্ভ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আদায় হয়। অতিসহজে বলা যায়— কথায়, কাজে, দক্ষতায় ও প্রজ্ঞায় হজের মাধ্যমে আমরা আন্তর্জাতিক মাপে যুক্ত হয়ে যাই।

বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে সৌদি আরব হজ পালনের অনুমতি না দেওয়ায় গত বছর হজযাত্রী পরিবহন বন্ধ ছিল। গতবারের মতো এবারও হজযাত্রী পরিবহন বন্ধ থাকবে।

হজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণকারীরা বিষয়টি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন ও কষ্টে রয়েছেন। তাদের অনেকেই চোখের পানি ফেলে হৃদয়ের ব্যথা উপশম করার চেষ্টা করেছেন।

বিশ্বখ্যাত ইসলামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের অনলাইন ফতোয়া বিভাগে এক ব্যক্তি জানতে চেয়েছেন, করোনার কারণে এবার হজে যেতে পারিনি অথচ আমার ওপর হজ ফরজ ছিল, এখন এ হজ পরবর্তী সময় আমাকে আবার আদায় করতে হবে? না কি যাওয়া-আসার সুযোগ না থাকায় হজ আর করতে হবে না।

এ প্রশ্নের উত্তরে প্রতিষ্ঠানটির বিজ্ঞ স্কলাররা বলেছেন— ‘একবার হজ ফরজ হলে তা আদায় না করা পর্যন্ত নিজের জিম্মা থেকে তা রহিত হয় না। এখন সরকার কর্তৃক ফ্লাইট বন্ধ করে দেওয়ায় যাতায়াতের ব্যবস্থা না থাকার অসুবিধায় শরয়ী কোনো ওজর-অজুহাত ধরা হবে না। সুতরাং পরবর্তী বছর এ ফরজ হজ আদায় করতে হবে।’

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘হজ জীবনে একবারই ফরজ। কেউ এর অধিক করল, তা নফল হিসেবে বিবেচিত হবে’।

সুতরাং হজ ফরজ হলে জীবনে একবার তা আদায় করতে হবে। কিন্তু এ বছর সুযোগ না পাওয়া গেলে তা সামনে যে কোনো সময় আদায় করা যাবে।

করোনার কারণে যেতে না পারলে কি আবার হজ করতে হবে?

 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ জুন ২০২১, ০৩:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বায়তুল্লাহ, আল্লাহর ঘর। মদিনা, প্রিয় নবীর শহর। মক্কার কালো গিলাফ আর মদিনার সবুজ গম্বুজ ছুঁয়ে দেখার জন্য প্রতিটি মুমিন গোনেন প্রতীক্ষার প্রহর।

বহুদেশ বহু ভাষাভাষী, ভিন্ন ভিন্ন পরিবেশ থেকে আগত ও বিচিত্র মনমানসিকতাসম্পন্ন মুসলিম উম্মাহ পবিত্র হজব্রত পালনে মক্কা নগরীতে আসতেন।

মানুষের জীবনে মৃত্যু ও জন্ম একবারই। তেমনি একবারের জন্যই হজ ফরজ হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ এ রুকন স্তম্ভ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আদায় হয়। অতিসহজে বলা যায়— কথায়, কাজে, দক্ষতায় ও প্রজ্ঞায় হজের মাধ্যমে আমরা আন্তর্জাতিক মাপে যুক্ত হয়ে যাই। 

বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে সৌদি আরব হজ পালনের অনুমতি না দেওয়ায় গত বছর হজযাত্রী পরিবহন বন্ধ ছিল। গতবারের মতো এবারও হজযাত্রী পরিবহন বন্ধ থাকবে।

হজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণকারীরা বিষয়টি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন ও কষ্টে রয়েছেন। তাদের অনেকেই চোখের পানি ফেলে হৃদয়ের ব্যথা উপশম করার চেষ্টা করেছেন।

বিশ্বখ্যাত ইসলামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের অনলাইন ফতোয়া বিভাগে এক ব্যক্তি জানতে চেয়েছেন, করোনার কারণে এবার হজে যেতে পারিনি অথচ আমার ওপর হজ ফরজ ছিল, এখন এ হজ পরবর্তী সময় আমাকে আবার আদায় করতে হবে? না কি যাওয়া-আসার সুযোগ না থাকায় হজ আর করতে হবে না।

এ প্রশ্নের উত্তরে প্রতিষ্ঠানটির বিজ্ঞ স্কলাররা বলেছেন— ‘একবার হজ ফরজ হলে তা আদায় না করা পর্যন্ত নিজের জিম্মা থেকে তা রহিত হয় না। এখন সরকার কর্তৃক ফ্লাইট বন্ধ করে দেওয়ায় যাতায়াতের ব্যবস্থা না থাকার অসুবিধায় শরয়ী কোনো ওজর-অজুহাত ধরা হবে না। সুতরাং পরবর্তী বছর এ ফরজ হজ আদায় করতে হবে।’

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘হজ জীবনে একবারই ফরজ। কেউ এর অধিক করল, তা নফল হিসেবে বিবেচিত হবে’।

সুতরাং হজ ফরজ হলে জীবনে একবার তা আদায় করতে হবে। কিন্তু এ বছর সুযোগ না পাওয়া গেলে তা সামনে যে কোনো সময় আদায় করা যাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন