ইমামকে রুকুতে পেলেও কি ‘ছানা’ পড়তে হবে?
jugantor
ইমামকে রুকুতে পেলেও কি ‘ছানা’ পড়তে হবে?

  অনলাইন ডেস্ক  

১৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৫:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ইমামকে রুকুতে পেলেও কি ‘ছানা’ পড়তে হবে?

‘ছানা’ পড়া সুন্নত। নামাজে নিয়ত বাঁধার পর প্রথম কাজ হলো ছানা(সুবহানাকাল্লাহুম্মা...)পড়া। কেউ একা নামাজ পড়ুক বা জামাতে উভয় অবস্থায় ছানা পড়তে হয়।

কিন্তু এ ক্ষেত্রে অনেকের যে ভুলটা হয়ে থাকে তা হলো— ইমামকে যদি রুকুতে পাওয়া যায়, তা হলে প্রথমে তাকবির বলে হাত বাঁধে তার পর দ্রুত ছানা পড়ে রুকুতে যাওয়া।

অনেক সময় ছানা পড়তে পড়তে ইমামের রুকু শেষ হয়ে যায়, ফলে ওই রাকাত ছুটে যায়। এটি ঠিক নয়।

এ অবস্থায় ছানা পড়তে হবে না, হাতও বাঁধতে হবে না; বরং নিয়ম হলো— প্রথমে দাঁড়ানো অবস্থায় দুহাত তুলে তাকবিরে তাহরিমা বলে হাত ছেড়ে দেবে, তার পর দাঁড়ানো থেকে তাকবির বলে রুকুতে যাবে।

এ ক্ষেত্রে অনেকে আরেকটি ভুল করে থাকে, ইমাম রুকুতে চলে গেছে, এখন দ্রুত রুকুতে শরিক হয়ে রাকাত ধরা দরকার, তা না করে এ সময়ও আরবিতে উচ্চারণ করে নিয়ত পড়তে থাকে, ফলে ওই রাকাত পায় না। এটি আরও বড় ভুল।

নিয়তের বিষয়ে আগেও বলা হয়েছে যে, নিয়ত অর্থ সংকল্প করা, যা দিলের কাজ। উচ্চারণ করে নিয়ত পড়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

গবেষণামূলক উচ্চতর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মারকাযুদ্ দাওয়াহ আল ইসলামিয়া ঢাকা-এর মুখপত্র মাসিক আল কাউসার থেকে সংগৃহীত

ইমামকে রুকুতে পেলেও কি ‘ছানা’ পড়তে হবে?

 অনলাইন ডেস্ক 
১৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইমামকে রুকুতে পেলেও কি ‘ছানা’ পড়তে হবে?
ছবি: সংগৃহীত

‘ছানা’ পড়া সুন্নত। নামাজে নিয়ত বাঁধার পর প্রথম কাজ হলো ছানা (সুবহানাকাল্লাহুম্মা...) পড়া। কেউ একা নামাজ পড়ুক বা জামাতে উভয় অবস্থায় ছানা পড়তে হয়। 

কিন্তু এ ক্ষেত্রে অনেকের যে ভুলটা হয়ে থাকে তা হলো— ইমামকে যদি রুকুতে পাওয়া যায়, তা হলে প্রথমে তাকবির বলে হাত বাঁধে তার পর দ্রুত ছানা পড়ে রুকুতে যাওয়া। 

অনেক সময় ছানা পড়তে পড়তে ইমামের রুকু শেষ হয়ে যায়, ফলে ওই রাকাত ছুটে যায়। এটি ঠিক নয়। 

এ অবস্থায় ছানা পড়তে হবে না, হাতও বাঁধতে হবে না; বরং নিয়ম হলো— প্রথমে দাঁড়ানো অবস্থায় দুহাত তুলে তাকবিরে তাহরিমা বলে হাত ছেড়ে দেবে, তার পর দাঁড়ানো থেকে তাকবির বলে রুকুতে যাবে। 

এ ক্ষেত্রে অনেকে আরেকটি ভুল করে থাকে, ইমাম রুকুতে চলে গেছে, এখন দ্রুত রুকুতে শরিক হয়ে রাকাত ধরা দরকার, তা না করে এ সময়ও আরবিতে উচ্চারণ করে নিয়ত পড়তে থাকে, ফলে ওই রাকাত পায় না। এটি আরও বড় ভুল।

নিয়তের বিষয়ে আগেও বলা হয়েছে যে, নিয়ত অর্থ সংকল্প করা, যা দিলের কাজ। উচ্চারণ করে নিয়ত পড়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

গবেষণামূলক উচ্চতর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মারকাযুদ্ দাওয়াহ আল ইসলামিয়া ঢাকা-এর মুখপত্র মাসিক আল কাউসার থেকে সংগৃহীত
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন