রোজা অবস্থায় ঋতুস্রাব শুরু বা শেষ হলে করণীয় কী?
jugantor
রোজা অবস্থায় ঋতুস্রাব শুরু বা শেষ হলে করণীয় কী?

  যুগান্তর ডেস্ক  

১১ এপ্রিল ২০২২, ১২:৪৪:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রশ্ন: রমজান মাসে রোজারত অবস্থায় নারীদের ঋতুস্রাব শুরু হয়ে গেলে কিংবা ঋতুস্রাব থেকে পবিত্র হলে কী কী করণীয়?

উত্তর: সিয়ামরত অবস্থায় হায়েজ বা ঋতুস্রাব শুরু হলে রোজা ছেড়ে দেবে।

আর রোজার সঙ্গে যাতে মিলে না যায়, তাই উচিত হচ্ছে— গোপনে পানাহার করা। কেননা এ অবস্থায় রোজা রাখা হারাম আর হারামের সঙ্গে মিলে যায় এমন যে কোনো কাজ করাকেও অনেক ফুকাহারা নাজায়েজ বলেছেন। তবে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে যে, যাতে কোনো রোজারদের সামনে প্রকাশ্যে পানাহার না করা হয়।

অবশ্য রমজানের দিনেরবেলায় যদি কোনো নারীর হায়েজ/ ঋতুস্রাব বন্ধ হয়ে যায় এবং তিনি পবিত্র হয়ে যান তা হলে ওই দিনের অবশিষ্ট সময় তার জন্য পানাহার থেকে বিরত থাকা জরুরি। পরে ছুটে যাওয়া রোজার সঙ্গে শেষের দিনের রোজারও কাজ করতে হবে।

(হেদায়া ১/২২৫; কিফায়া ৩/২৮৩; ফাতহুল বারি ২/২৮২; হাশিয়াতুত ত্বহত্ববী আলা মারাকিল ফালাহ পৃ.৩৭০; আহসানুল ফাতাওয়া : ৪/৪২০)

রোজা অবস্থায় ঋতুস্রাব শুরু বা শেষ হলে করণীয় কী?

 যুগান্তর ডেস্ক 
১১ এপ্রিল ২০২২, ১২:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রশ্ন: রমজান মাসে রোজারত অবস্থায় নারীদের ঋতুস্রাব শুরু হয়ে গেলে কিংবা ঋতুস্রাব থেকে পবিত্র হলে কী কী করণীয়?

উত্তর: সিয়ামরত অবস্থায় হায়েজ বা ঋতুস্রাব শুরু হলে রোজা ছেড়ে দেবে। 

আর রোজার সঙ্গে যাতে মিলে না যায়, তাই উচিত হচ্ছে— গোপনে পানাহার করা। কেননা এ অবস্থায় রোজা রাখা হারাম আর হারামের সঙ্গে মিলে যায় এমন যে কোনো কাজ করাকেও অনেক ফুকাহারা নাজায়েজ বলেছেন। তবে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে যে, যাতে কোনো রোজারদের সামনে প্রকাশ্যে পানাহার না করা হয়। 

অবশ্য রমজানের দিনেরবেলায় যদি কোনো নারীর হায়েজ/ ঋতুস্রাব বন্ধ হয়ে যায় এবং তিনি পবিত্র হয়ে যান তা হলে ওই দিনের অবশিষ্ট সময় তার জন্য পানাহার থেকে বিরত থাকা জরুরি। পরে ছুটে যাওয়া রোজার সঙ্গে শেষের দিনের রোজারও কাজ করতে হবে।

(হেদায়া ১/২২৫; কিফায়া ৩/২৮৩; ফাতহুল বারি ২/২৮২; হাশিয়াতুত ত্বহত্ববী আলা মারাকিল ফালাহ পৃ.৩৭০; আহসানুল ফাতাওয়া : ৪/৪২০)
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন