ওয়াশিং মেশিনে নাপাক কাপড় ধুলে কি পাক হবে?
jugantor
ওয়াশিং মেশিনে নাপাক কাপড় ধুলে কি পাক হবে?

  মুফতি মোহাম্মদ ইমদাদুল্লাহ  

২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৮:৪৯:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রশ্ন: ওয়াশিং মেশিনে নাপাক কাপড় ধোয়ার পর পাক হবে কি?

উত্তর: আজকাল শহুরে পরিবারের একটি নিত্যসঙ্গী জিনিস হলো ওয়াশিং মেশিন। এই একটি যন্ত্র যেমন সময় বাঁচায়, তেমনি বাঁচায় শ্রমও।

কেননা তাতে সরাসরি হাত দিয়ে কাপড় ধৌত করতে ও নিংড়াতে হয় না। বরং ময়লা কাপড় মেশিনে দিয়ে তা চালু করলেই মেশিন থেকে ধোয়া, পরিষ্কার, নিংড়ানো এবং শুকনো কাপড় বের হয়ে আসে। স্বভাবত অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে যে, হাতে না চিপে ওয়াশিং মেশিনের মাধ্যমে নাপাক কাপড় ধৌত করলে তা পাক হবে কিনা? নিম্নে এর সমাধান পেশ করা হলো।

নাপাক কাপড় ওয়াশিং মেশিনে ধুয়েও পাক করা যায়। মূলত কাপড় পাক হওয়া না হওয়ার বিষয়টি নির্ভর করে ওয়াশ করার পদ্ধতির ওপর। তিনবার যথানিয়মে নাপাক কাপড় মেশিনে ধৌত করলে তা পবিত্র হয়ে যাবে। এর জন্য প্রত্যেকবার নতুন পানি নিতে হবে এবং প্রতিবার ধোয়ার পর তা ফেলে দিতে হবে।

এর সহজ পদ্ধতি এই যে, কাপড় মেশিনে রেখে পরিমাণ মতো পানি ও সাবান দিয়ে মেশিন চালু করবে। কাপড় ধোয়া হয়ে গেলে সমস্ত পানি ছেড়ে দিবে। অতঃপর আবার নতুন পানি দিয়ে মেশিন চালু করবে এবং ওয়াশ হওয়ার পর পানি ছেড়ে দিবে।

এভাবে পরপর তিনবার নতুন পানি দিয়ে কাপড় ধৌত করতে হবে এবং প্রতিবার পানি ছেড়ে দিতে হবে। যখন মনে হবে যে, কাপড়ের ভেতরের নাপাকি বের হয়ে গেছে তখন কাপড় পাক হয়েছে বলে ধরে নিবে।

(উল্লেখ্য, আমাদের দেশসহ বিশ্বে যে ওয়াশিং মেশিনগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে, এগুলোতে অটোমেটিক পদ্ধতিতে তিনবার পানি পরিবর্তন হয়। অর্থাৎ তিনবার নতুন পানিতে ওয়াশ করার পর এটির কাজ শেষ হয়। সে হিসেবে প্রচলিত অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিনে স্বাভাবিকভাবেই কাপড় পবিত্র হয়ে যাবে।)

সূত্র: রদ্দুল মুহতার ১/৩৩০; আপকে মাসায়েল আওর উনকা হল ৩/১৭১; কিতাবুন নাওয়াযিল ৩/৩৯; ফাতাওয়া হাক্কানিয়া ২/৫৮২

লেখক: মুফতি মোহাম্মদ ইমদাদুল্লাহ
উস্তাযুল হাদিস ও মুশরিফ, ফতোয়া বিভাগ, জামেয়া হাকীমুল উম্মত, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ, ঢাকা।

ওয়াশিং মেশিনে নাপাক কাপড় ধুলে কি পাক হবে?

 মুফতি মোহাম্মদ ইমদাদুল্লাহ 
২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রশ্ন: ওয়াশিং মেশিনে নাপাক কাপড় ধোয়ার পর পাক হবে কি?

উত্তর: আজকাল শহুরে পরিবারের একটি নিত্যসঙ্গী জিনিস হলো ওয়াশিং মেশিন। এই একটি যন্ত্র যেমন সময় বাঁচায়, তেমনি বাঁচায় শ্রমও। 

কেননা তাতে সরাসরি হাত দিয়ে কাপড় ধৌত করতে ও নিংড়াতে হয় না। বরং ময়লা কাপড় মেশিনে দিয়ে তা চালু করলেই মেশিন থেকে ধোয়া, পরিষ্কার, নিংড়ানো এবং শুকনো কাপড় বের হয়ে আসে। স্বভাবত অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে যে, হাতে না চিপে ওয়াশিং মেশিনের মাধ্যমে নাপাক কাপড় ধৌত করলে তা পাক হবে কিনা? নিম্নে এর সমাধান পেশ করা হলো।

নাপাক কাপড় ওয়াশিং মেশিনে ধুয়েও পাক করা যায়। মূলত কাপড় পাক হওয়া না হওয়ার বিষয়টি নির্ভর করে ওয়াশ করার পদ্ধতির ওপর। তিনবার যথানিয়মে নাপাক কাপড় মেশিনে ধৌত করলে তা পবিত্র হয়ে যাবে। এর জন্য প্রত্যেকবার নতুন পানি নিতে হবে এবং প্রতিবার ধোয়ার পর তা ফেলে দিতে হবে।

এর সহজ পদ্ধতি এই যে, কাপড় মেশিনে রেখে পরিমাণ মতো পানি ও সাবান দিয়ে মেশিন চালু করবে। কাপড় ধোয়া হয়ে গেলে সমস্ত পানি ছেড়ে দিবে। অতঃপর আবার নতুন পানি দিয়ে মেশিন চালু করবে এবং ওয়াশ হওয়ার পর পানি ছেড়ে দিবে। 

এভাবে পরপর তিনবার নতুন পানি দিয়ে কাপড় ধৌত করতে হবে এবং প্রতিবার পানি ছেড়ে দিতে হবে। যখন মনে হবে যে, কাপড়ের ভেতরের নাপাকি বের হয়ে গেছে তখন কাপড় পাক হয়েছে বলে ধরে নিবে।

(উল্লেখ্য, আমাদের দেশসহ বিশ্বে যে ওয়াশিং মেশিনগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে, এগুলোতে অটোমেটিক পদ্ধতিতে তিনবার পানি পরিবর্তন হয়। অর্থাৎ তিনবার নতুন পানিতে ওয়াশ করার পর এটির কাজ শেষ হয়। সে হিসেবে প্রচলিত অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিনে স্বাভাবিকভাবেই কাপড় পবিত্র হয়ে যাবে।)

সূত্র: রদ্দুল মুহতার ১/৩৩০; আপকে মাসায়েল আওর উনকা হল ৩/১৭১; কিতাবুন নাওয়াযিল ৩/৩৯; ফাতাওয়া হাক্কানিয়া ২/৫৮২

লেখক: মুফতি মোহাম্মদ ইমদাদুল্লাহ
উস্তাযুল হাদিস ও মুশরিফ, ফতোয়া বিভাগ, জামেয়া হাকীমুল উম্মত, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ, ঢাকা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন