যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা অপ্রতুল

মিয়ানমারের নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের জন্য আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা দিয়েছে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা। তবে চাহিদার তুলনায় এর পরিমাণ খুবই কম। সব দেশের ত্রাণ এখনও এসে পৌঁছায়নি। এর মধ্যে মালয়েশিয়ার ত্রাণ বাংলাদেশে পৌঁছেছে। আজ পৌঁছাবে ভারতের ত্রাণবাহী বিমান। সর্বস্ব হারানো রোহিঙ্গাদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়েছে ইন্দোনেশিয়া, তুরস্ক, ডেনমার্ক, অস্ট্রেলিয়া, নেদার?ল্যান্ডস, আজারবাইজান, কুয়েত, দুবাইসহ বিভিন্ন দেশ। বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের থাকার জন্য জমি, খাদ্য, চিকিৎসাসহ সার্বিক সহায়তা দিচ্ছে। সাহায্য নিয়ে এগিয়ে এসেছে

আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা অক্সফাম, রেডক্রস, ডব্লিউএফপি, ইউএনএইচসিআর, আইওএম, ইউএনএফপিএসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থা। এ ছাড়া স্থানীয় জনগণ রোহিঙ্গাদের জন্য খাদ্য ও চিকিৎসা সহায়তা দিচ্ছেন। নিজের দু’দিনের আয়ের পুরোটাই দান করেছেন এক তুর্কি হকার।

তবে বিভিন্ন দেশ থেকে বিচ্ছিন্নভাবে অর্থের প্রতিশ্রুতি মিললেও সমন্বিত উদ্যোগের অভাব রয়েছে। মুসলিম রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহায়তা অপ্রতুল বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআরের সহকারী হাইকমিশনার জজ ও’কাথ। বুধবার সদ্য আসা রোহিঙ্গাদের অবস্থা পরিদর্শনে এসে উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে কাজ করছে এমন একাধিক সংস্থা জানিয়েছে, মিয়ানমার থেকে আসা প্রায় চার লাখের বেশি রোহিঙ্গার জন্য আশ্রয়, খাদ্য ও ত্রাণ সহায়তার ব্যবস্থা করতে এ মুহূর্তেই বিপুল অঙ্কের অর্থের প্রয়োজন। গত শনিবার ত্রাণ সংস্থাগুলোর বৈঠক শেষে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর কর্মকর্তা ভিভিয়ান ট্যান বলেন, ত্রাণের জন্য এখনই তাদের অন্তত ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার প্রয়োজন। ইউএনএইচসিআরসহ বাংলাদেশের সব ত্রাণ সংস্থার প্রতিনিধিরা শনিবার পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য এক বৈঠক করেন। অন্যদিকে বিশ্বের ১৯০টি দেশে রেডক্রস ও রেড ক্রিসেন্টের প্রতি সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে বাংলাদেশের রেড ক্রিসেন্ট। সংস্থার মহাসচিব মজহারুল হক বলেছেন, এর মাধ্যমে তারা এক কোটি ২০ লাখ ডলার সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছেন।

মালয়েশিয়া রোহিঙ্গাদের জন্য চাল, ডাল, তেল ও চিনিসহ ১২ টন পণ্যসামগ্রী পাঠিয়েছে। ত্রাণ নিয়ে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে মালয়েশিয়ান বিমান।

রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমে ২৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ডেনমার্ক সরকার। জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) ও জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) মাধ্যমে এ ত্রাণ সহায়তা দেয়া হবে। এ ছাড়া রাখাইনে আন্তর্জাতিক যেসব সংস্থা ত্রাণ কার্যক্রম চালাবে ডেনমার্ক তাদের সহায়তা করবে।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা মুসলিমদের সহায়তার জন্য ৫০ লাখ মার্কিন ডলার ত্রাণ সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। শনিবার স্কাই নিউজের এক প্রতিবেদনে, রাখাইনে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষকে সংযত ও বেসামরিক জীবন রক্ষার আহ্বান জানিয়েছে দেশটি। ১৫ লাখ ডলার জরুরি সহায়তা প্রদান করবে কুয়েত। শনিবার এক বিবৃতিতে দেশটির ইসলামীবিষয়ক মন্ত্রী এবং পৌরসভাবিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ আল জাবরি এ ঘোষণা দেন। মিয়ানমারের মুসলমান ভাইদের প্রতি অনুদান প্রদানের জন্য নাগরিক ও বাসিন্দাদের প্রতি আহ্বান জানান জাবরি। আজারবাইজান সরকার রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ১০০ টন ত্রাণ পাঠিয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্র ও জরুরি ত্রাণ সহায়তাবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

রোহিঙ্গাদের জন্য জরুরি ত্রাণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে নেদারল্যান্ডস সরকার। বৃহস্পতিবার আমস্টারডামে সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এ প্রতিশ্রুতির কথা জানান নেদার?ল্যান্ডসের উন্নয়ন সহায়তা ও বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রী লিলিয়ান প্লউমেন। রোহিঙ্গাদের জন্য ফান্ড তুলতে তুরস্কের হিউম্যানিটারিয়ান রিলিফ ফাউন্ডেশন (আইএইচএইচ) অনুদান ক্যাম্প গঠন করেছে। বৃহস্পতিবার সংস্থাটির ডেপুটি প্রধান ভাহদেতিন কায়গান বলেন, রাখাইন থেকে পালিয়ে আসা অসহায় রোহিঙ্গাদের জন্য এ অনুদান বিতরণ করা হবে।

রোহিঙ্গাদের জন্য জরুরি মানবিক সহায়তার প্রয়োজন অনুভব করে এগিয়ে এসেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক দাতব্য সংস্থা অক্সফাম। সংস্থাটি রোহিঙ্গাদের জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানি, বহনযোগ্য শৌচাগার, স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা, প্লাস্টিকের বিছানা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী দেবে। রোহিঙ্গাদের সহায়তায় দু’দিনের আয় দান করেছেন তুরস্কের এক হকার। তার এ দানের পরিমাণ ১৪৭ পাউন্ড (৪৩ ডলার), যা খুবই সামান্য কিন্তু অনুপ্রেরণাদায়ক। ৪০ বছর বয়সী আরকান আইহান পেশায় একজন রুটি বিক্রেতা।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত