যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ঢাকা উত্তর সিটি উপনির্বাচন
জয়ী হওয়ার মতো প্রার্থীই দেবে আ’লীগ : ওবায়দুল কাদের
আগাম জাতীয় নির্বাচনের পরিকল্পনা সরকারের নেই
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উপনির্বাচনে মেয়র পদে দল থেকে এমন প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হবে, যিনি সহজেই জয়ী হতে পারবেন। বুধবার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সরাসরি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নন, এমন প্রার্থীকেও নৌকার টিকিট দেয়া হতে পারে- এমন আভাসও দিয়েছেন তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আগাম জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার পরিকল্পনা সরকারের নেই। তবে নির্বাচন যখনই হোক আওয়ামী লীগ প্রস্তুত।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা আসলে (প্রার্থী মনোনয়নে) চমকের বিষয়টা ভাবছি না। যে প্রার্থী জয়ী হতে পারবে অর্থাৎ উইনেবল প্রার্থী আমরা খুঁজছি। দলীয় মনোনয়ন পেয়ে জয়ী হতে পারেন এমন কয়েকজনকে নিয়ে আওয়ামী লীগ ভাবনাচিন্তা করছে। এক্ষেত্রে দলের ভেতরের পাশাপাশি, বাইরেও আওয়ামী লীগ সমর্থক কিন্তু আওয়ামী লীগের নেতা নন- এমন ব্যক্তিদের প্রার্থী করা নিয়েও চিন্তাভাবনা চলছে। তবে প্রার্থী চূড়ান্ত হওয়ার আগে তো কিছু বলতে পারছি না। সিডিউল (তফসিল) ডিক্লেয়ার হলে সময় মতো প্রার্থী ঘোষণা করব।’
২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে মেয়র পদে জয়ী আনিসুল হক মারা যাওয়ায় এ পদটি শূন্য ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এ পদে উপনির্বাচনে আনিসুল হকের পরিবারের কোনো সদস্যকে মনোনয়ন দেয়া হবে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শোকের দরিয়ায় তারা (আনিসুল হকের পরিবার) ভাসছে। একটা পরিবার শোকের মধ্যে আছে এবং দলের লোকেরাও পরিবারের সঙ্গে আছে। এ অবস্থায় পরিবারকে এসব বিষয় নিয়ে বিব্রত না করতে আপনাদের অনুরোধ জানাই।’
তিনি বলেন, ‘তার (আনিসুল হক) পরিবারের মধ্য থেকে কেউ প্রার্থী হবে কিনা- সেটা সময় আসুক, নির্বাচনের সিডিউল ডিক্লেয়ার হোক তারপর দেখা যাবে। আমরা পরিবারের লোক হিসেবে আমরা কাউকে মনোনয়ন দেব না। আমরা মনোনয়ন দেব তাকে, যে নির্বাচনে জয়ী হতে পারবে, যে উইনেবল ক্যান্ডিডেট।’
আনিসুল হকের মতো যোগ্য প্রার্থী খুঁজে পাওয়া সম্ভব কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বড় দল। আনিসুল হক বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে আমাদের কাছের ছিলেন, হয়তো তিনি সরাসরি রাজনীতি করেননি। বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব- এ ব্যাপারে যারা বিশ্বাসী, সে রকম প্রার্থীও আমরা দিতে পারি অথবা আমাদের দলের মধ্যে নৌকার প্রার্থী করতে পারি।’ অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচন করবে। পদ শূন্য ঘোষণার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা আছে, এটা কারও এড়িয়ে যাওয়ার উপায় নেই।’
জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আগাম নির্বাচনের সম্ভাবনা ও পরিকল্পনা কোনোটি সরকারের নেই। তবে দল হিসেবে আওয়ামী লীগ যে কোনো সময়ে নির্বাচন করতে প্রস্তুত। আমাদের প্রত্যাশা- আগামী বছর বিজয়ের মাস অর্থাৎ ডিসেম্বরে জাতীয় নির্বাচন হোক। তবে নির্বাচনের তারিখ (তফসিল) দেয়ার মালিক নির্বাচন কমিশন। তারাই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করবেন।’
আদালত থেকে খালেদা জিয়ার ফেরার পথে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ-ভাংচুর প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি আবারও রাজপথে ভাংচুর শুরু করেছে। গতকাল (মঙ্গলবার) রাজপথে যে ভাংচুর চালিয়েছে, তাতে বিএনপি ইঙ্গিত দিচ্ছে তারা আবারও সহিংসতার দিকে যাচ্ছে।’ তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘বিএনপির সমস্যা হয়েছে পুলিশের সঙ্গে, তারা কেন পাবলিকের গাড়ি ভাংচুর করল? আমি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছে জানতে চাই, এটা অশনিসংকেত কিনা? রাজপথে আন্দোলনের সক্ষমতা বিএনপির নেই।’ অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বিএনপির যে দৃশ্যমান পরিস্থিতি সৃষ্টি করবে, ঠিক তেমনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
খালেদা জিয়ার মামলার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সরকার কোনো মামলা করেনি। তাকে সাজা দেয়ার পরিকল্পনা সরকারের নেই। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে দুর্নীতি দমন কমিশন মামলা করেছিল। ওই মামলা চলমান আছে। এখানে সরকারের হাত নেই। খালেদা জিয়ার সাজা হলে সরকার বিচার বিভাগের ওপর হস্তক্ষেপ করেছে আর সাজা মওকুফ হলে বিচার বিভাগ স্বাধীন- এমন বক্তব্য বিএনপির পুরনো অভ্যাস।’



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত