ঘুরে আসুন ইতিহাস-ঐতিহ্যের শহর বুদাপেস্ট

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ২০:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

চেইন ব্রিজ। ছবি সংগৃহীত
চেইন ব্রিজ। ছবি সংগৃহীত

যেকোনো শহরে ঘুরতে গেলে যা যা আপনি চান, এর সবই পাবেন হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টে৷ অসাধারণ সব ঐতিহ্যবাহী ভবন, উষ্ণ স্নানাগার এবং রোমাঞ্চকর নাইটলাইফ৷

চলুন ঘুরে আসি এই ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট থেকে৷

চেইন ব্রিজ

দানিয়ুব নদীর ওপর নয়টি ব্রিজের মধ্যে সবচেয়ে পুরোনো চেইন ব্রিজ৷ ১৮৪৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এই ব্রিজ৷ নদীর এক পাড়ে অবস্থিত বুদা থেকে অপর পাড়ের পেস্ট শহরে যেতে সব পর্যটককেই পাড়ি দিতে হয় এই ব্রিজ৷ ২০১৭ সালে প্রায় সোয়া এক কোটি পর্যটক রাত্রিযাপন করেছেন হাঙ্গেরির রাজধানীতে৷ গত ১০ বছরে এ সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে৷

দুর্গ শহর

চেইন ব্রিজ থেকে সোজা হেঁটে গেলেই পৌঁছে যাওয়া যায় এই এলাকায়৷ ছোট ছোট রাস্তা, বিশালাকার বাড়ি, গির্জা আর জাদুঘরে পূর্ণ এই এলাকা৷ হাঙ্গেরির রাজা এবং অভিজাতরা একসময় এখানে বাস করতেন৷ এখন এই প্রায় গাড়িমুক্ত অঞ্চলটিতে পর্যটকরা ঘুরে বেড়ান৷

সেচেনি উষ্ণ স্নান

ইউরোপের অন্যান্য অনেক শহরের চেয়ে বুদাপেস্টে ঘুরে বেড়ানো অনেক সহজ৷ এখানে ঘুরে বেড়ানোর মধ্যেই একটু আয়েশ করে উষ্ণ পানির সুইমিং পুলে স্নান করে নিতে পারেন৷ সেচেনির উষ্ণ স্নানের ঔষধি গুণও অনেক৷

১৯১৩ সালে চালু হওয়া এই কমপ্লেক্সটি এ ধরনের স্নানাগারের মধ্যে বৃহত্তম৷ এই কমপ্লেক্সে ১৫টি পুল রয়েছে৷ পুলগুলোতে পানির তাপমাত্রা ২৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হয়ে থাকে৷

গ্রেট সিনাগগ

ইউরোপের সবচেয়ে বড় সিনাগগটি বুদাপেস্টে অবস্থিত৷ ১৮৫৪ সাল থেকে শুরু হয়ে ১৮৫৯ সাল পর্যন্ত চলে এর নির্মাণ কাজ৷ গুরুতর ক্ষতিগ্রস্ত হলেও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরও টিকে ছিল মুরিশ স্টাইলে নির্মিত এ সিনাগগ৷

১৯৯৬ সালে সংস্কারের পর থেকে এটি আবার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে স্বমহিমায়৷ এই সিনাগগে একসঙ্গে তিন হাজার মানুষ উপাসনা করতে পারেন৷

ইহুদি কোয়ার্টার

বুদাপেস্টের সবচেয়ে দর্শনীয় স্থানগুলির মধ্যে একটি ইহুদি অঞ্চল৷ ঝলমলে বার, পাব, ক্লাব ও রেস্টুরেন্ট দর্শনার্থীদের কাছে এক অন্যরকম আকর্ষণ৷

পার্লামেন্ট ভবন

বুদাপেস্টের পার্লামেন্ট ভবনটি বিশালাকৃতির৷ ২৬৮ মিটার লম্বা, ৯৬ মিটার উঁচু, ২৯টি সিঁড়ি এবং সাতশ’র কাছাকাছি কক্ষ রয়েছে ভবনটিতে৷

দানিয়ুবের পাড়ে অবস্থিত সবচেয়ে দর্শনীয় স্থানগুলোর একটি এটি৷ দুই পাড়ের এই পুরো শহুরে নান্দনিকতাকেই ১৯৮৭ সালে বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে ইউনেস্কো৷

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-[email protected]-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter