জ্বরের শত্রু আনারস

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১৭:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

আনারস। ছবি সংগৃহীত
আনারস। ছবি সংগৃহীত

ঋতু পরিবর্তনের ফলে এখন সব বয়সের মানুষ ঠাণ্ডা-জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে। হুটহাট করে ভাইরাসজনিত জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে অনেকে। হঠাৎ জ্বর এলেই ওষুধ খেয়ে থাকেন অনেকে।তবে জ্বর এলেই কী ওষুধ খাবেন। একদম নয়। এমন অনেক খাবার আছে যা খেলে জ্বর এমনিতে সেরে যায়।

জ্বর ভালো হওয়ার জন্য আনারস খুবই উপকারি।জ্বরে খেতে পারেন আনারস। আর কারো জ্বর যদি তিন দিনের অধিক থাকে তবে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

সাধারণত সর্দি-কাশি বা ভাইরাল জ্বরের চিকিৎসা ঘরেই হয়ে থাকে। তাই জ্বরের তীব্রতা কমানোর পাশাপাশি রোগীর দেহের সঠিক পুষ্টি চাহিদা বজায় রাখার জন্য জ্বরের পথ্য ব্যবস্থাপনা জানা খু্বই প্রয়োজন।

আনারস জ্বরের ও জন্ডিস রোগের জন্য বেশ উপকারি। এতে রয়েছে প্রচুর ক্যালরি, যা আমাদের শক্তি জোগায়। প্রোটিন খাবার এ ফলটি ত্বকের মৃত কোষ দূর করে, ত্বককে কুঁচকে যাওয়া থেকে বাঁচায়। আনারস টাটকা খাওয়াই ভালো।

আনারস কেন খাবেন?

গরম-ঠাণ্ডার জ্বর, জ্বর-জ্বর ভাব দূর করতে আনারস খেতে পারেন। এতে রয়েছে ব্যথা দূরকারী উপাদান। আনারস কৃমিনাশক। কৃমি দূর করার জন্য খালি পেটে (সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে) আনারস খাওয়া উচিত।

রক্ত পরিষ্কার

দেহে রক্ত জমাট বাঁধতে বাধা দেয় এই ফল। ফলে শিরা-ধমনির (রক্তবাহী নালি) দেয়ালে রক্ত না জমার জন্য সারা শরীরে সঠিকভাবে রক্ত যেতে পারে। হৃদপিণ্ড আমাদের শরীরে অক্সিজেনযুক্ত রক্ত সরবরাহ করে। আনারস রক্ত পরিষ্কার করে হৃদপিণ্ডকে কাজ করতে সাহায্য করে।

ভিটামিন সি

আনারসে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। জিহ্বা, তালু, দাঁত, মাড়ির যে কোনো অসুখের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আনারস।

খনিজ লবণ

আনারসে রয়েছে খনিজ লবণ ম্যাঙ্গানিজ, যা দাঁত, হাড়, চুলকে করে শক্তিশালী। গবেষণা করে দেখা গেছে, নিয়মিত আনারস খান এমন ব্যক্তিদের ঠাণ্ডা লাগা, গলা ব্যথা, সাইনোসাইটিস জাতীয় অসুখগুলো কম হয়।

দেহের তৈলাক্ত ত্বক

ব্রণসহ সব রূপলাবণ্যে আনারসের যথেষ্ট কদর রয়েছে। দেহের পুষ্টি সাধন এবং দেহকে সুস্থ-সবল ও নিরাময় রাখার জন্য আনারসকে একটি অতুলনীয় এবং কার্যকরী ফল বলা চলে।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-[email protected]-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×