ঘরেই তৈরি করুন বিশুদ্ধ পানির ফিলটার

  যুগান্তর ডেস্ক    ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

মাটির ফিল্টার।
মাটির ফিল্টার। ফাইল ছবি

পানির মাধ্যমে ডায়েরিয়া, আমাশয়, পেটের পীড়া, পেটের ব্যথা, কিডনি সমস্যাসহ বিভিন্ন ধরনের রোগ হয়ে থাকে। তাই সুস্থ থাকলে হলে বিশুদ্ধ পানির বিকল্প নেই।আমরা সাধারণত বাইরে বের হলে পানি কিনে খেয়ে থাকি।তবে ঘরেও কিন্তু খাবার পানির প্রয়োজন।পানির দাম নেহাত কম নয়।

বাজারে যেসব আধুনিক ফিলটার পাওয়া যায় তা বেশিদিন টেকসই হয় না।মাটির ফিলটার দীর্ঘদিন ব্যবহারের জন্য ভালো।

পুষ্টিবিদ শম্পা নাসরিন বলেন, সুস্থ জীবনযাপনের জন্য নিরাপদ পানির বিকল্প নেই।আমরা অনেকে মনে করি, পানি পরিষ্কার মানে বিশুদ্ধ। এ ধারণা মোটেও ঠিক নয়। পরিচ্ছন্ন ও বিশুদ্ধ পানি কিন্তু এক কথা নয়।

কোনো পানিকে যদি বিশুদ্ধ করতে হয় তবে, ময়লা ও রোগজীবাণু মিশে পানিকে দূষিত করতে হবে। তাছাড়া পানিতে ভাসমান ময়লা, বিষাক্ত গ্যাস ও রোগজীবাণু সম্পূর্ণভাবে অপসারণ করার বিকল্প নেই।

তাই শুধু পানি কিনে খেলেই হবে না। আপনি চাইলে খুব কম খরচে ঘরেই তৈরি করতে পারেন মাটির ফিলটার। এই ফিলটার বানানোর উপকরণগুলো হাতের কাছেই পাওয়া যায়।মাটির ফিলটারের পানি বিশুদ্ধ, ঠাণ্ডা ও স্বাদযুক্ত।

আসুন চেনে নেই কীভাবে তৈরি করবেন মাটির ফিলটার।

উপকরণ

বাঁশ বা কাঠ, বালু, ইট বা পাথরের খোয়া, মাটির পাতিল বা চাড়ি, প্লাস্টিকের বস্তা,সুতি কাপড়।

যেভাবে তৈরি করবেন

প্রথমে দুটো পাতিলের মাঝ বরাবর একটি ফুটো করেন ও ফুটোয় দুটি সুতি কাপড় দিয়ে দড়ির মতো পেঁচিয়ে বাইরের অংশে কিছুটা ঝুলিয়ে রাখুন।পরে কাঠ দিয়ে তিন তাকের একটি চোঙ্গা তৈরি করুন। যার ওপরে পাতিল বসবে। মাটির পাতিলে প্রথমে প্লাস্টিকের বস্তা কেটে বিছিয়ে তার ওপরে বালু দিন পাতিলের ধারণক্ষমতা অনুযায়ী। এরপর তার ওপরে প্লাস্টিকের বস্তা কেটে আবারও খোয়া দিন। এভাবে মাটির পাতিল দুটো তৈরি করুন। এরপর একটি পাতিলকে প্রথম তাকে বাসার আর আরেকটি পাতিলকে দ্বিতীয় তাকে বসান নিচে একটি বালতি দেন।

প্রথম পাতিলে পানি দিয়ে ভর্তি করুন।এরপর ঘণ্টাখানেকের মতো অপেক্ষা করুন। দেখবেন দড়ির মতো পেঁচানো ন্যাকড়া বেড়ে ধীরে ধীরে পানি পড়ছে।এক ফোঁটা দুফোঁটা করে একসময় বালতি ভরে যাবে। এই পানি বিশুদ্ধ ও স্বাস্থসম্মত।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-[email protected]-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×