শীতে ত্বকের যত্নে ময়েশ্চারাইজার

  ফারিন সুমাইয়া ০১ জানুয়ারি ২০১৮, ০৯:৩১ | অনলাইন সংস্করণ

ময়েশ্চারাইজার
ময়েশ্চারাইজার

হিমশীতলতা আর বাতাসে পিঠাপুলির ঘ্রাণ নিয়ে আগমন ঘটে বাংলা সনের পঞ্চম ঋতু শীতের। শীত মানেই একরাশ আগাম প্রস্তুতি। বছরের একটি দীর্ঘ সময় পর্যন্ত গুটিসুটি মেরে থাকা লেপ, কম্বল আর গরম কাপড়ের হাই তুলে ঘুম ভাঙার সময়। শীতের এই সময়ের অন্যতম একটি আকর্ষণ হচ্ছে পিঠা, পায়েস আর রসের হাঁড়ি। তবে এরা কেবল শীতকে আকর্ষণীয়ই করে তোলে না তার সঙ্গে করে তোলে আরও প্রাণবন্ত।

শীত আমাদের জীবনে অন্য ঋতুর তুলনায় একটু আলাদাভাবে নিজেকে নিয়ে আসে। কখনও একসঙ্গে আগুনের পাশে জড় হয়ে বসার আনন্দে আবার কখনও চায়ের অথবা কফি হাতে ধোঁয়া ওঠার আড্ডার আসরে। তবে এসব বিষয়ে এর প্রাণবন্ততা থাকলেও শুধু অভাব পড়ে যেন ত্বকের বেলায়। শীতের এই সময় যেন ত্বকের ক্ষেত্রে সব কৃপণতা শীতের! মূলত শীতের এই আবহাওয়া রুক্ষতাই এর কারণ। যার কারণে ত্বকে কালচে দাগ, ঠোঁট ফাটা আর ত্বকের নানা সমস্যা দেখা দেয় শীতের এই পুরোটা সময়জুড়ে।

শীতের এই ত্বকের প্রতি কৃপণতা হলেও অন্য দিকে এর মুখে হাসি ফুটাতে আছে শীতের এই সময়ের নানা ময়েশ্চারাইজার, লোশন আর অলিভ ওয়েল। এই লিস্টে তাই বাদ পরে না গ্লিসারিনের নামও। শীতের এই রুক্ষতা যখন ত্বকের নানা সমস্যা সৃষ্টি করে তখন ত্বককে কোমল করতে বন্ধুর মতো পাশে থাকে এসব বডি লোশন, অলিভ ওয়েল আর গ্লিসারিনের। তবে ত্বকের ধরন বুঝে উচিত এসব শীতের সময়ের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা।

বাজারে এই শীতের সময়ে খুব সহজেই পাবেন ভেজলিন, ডাব, পন্ডস, প্যারাসুট, নেভিয়া, বরোপ্লাস, ইয়ার্ডলিসহ নানা নামিদামি ব্র্যান্ডের বডি লোশন। তবে যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের ক্ষেত্রে বডি লোশন ব্যবহার করাই ভালো। যাদের রুক্ষ ত্বক তাদের ক্ষেত্রে কিছুটা আলাদাভাবে বডি লোশনের ব্যবহার আপনার ত্বককে খুব অল্প সময়ের মধ্যে প্রাণবন্ত করে তুলতে পারে। সেই ক্ষেত্রে অর্ধের বডি লোশনের সঙ্গে গ্লিসারিন আর তার সমপরিমাণ পানি মিশিয়ে লোশন আর গ্লিসারিন মিশিয়ে ব্যবহার করলে বেশ চটপট সুফল পাওয়া যায়।

যারা বাইরে বেশ কিছুটা সময় কাজের ব্যস্ততার জন্য কাটান তাদের ক্ষেত্রে এটি বেশ উপকারী। আর যাদের ত্বক খুব রুক্ষ কিংবা তৈলাক্ত না তারা অনায়াসে অলিভ ওয়েল ব্যবহার করতে পারেন। সারা দিনের কাজের ব্যস্ততা আর তার সঙ্গে পাওয়া ত্বকের এই বেহাল দশা থেকে মুক্তি পেতে খুব সহজে আপনার হাতের নাগালেই পাবেন এসব প্রসাধনী। তবে কেনার আগে মেয়াদের উত্তীর্ণের সময় আর আপনার ত্বকের সঙ্গে কতখানি মানাচ্ছে তার দিকে নজর রাখুন।

দাম

vaseline (ভেজলিন) বড়টার দাম পড়বে ৪৫৪ টাকা আর মাঝারি ৩৪৫ টাকা আর ছোটটা ১২০ টাকা। তবে যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের ক্ষেত্রে ইন্টেনসিভ কেয়ার ব্যবহার করাই ভালো। এটির দাম পড়বে ৪৫০ টাকা।

Olive oil (ওলিভ ওয়েল) কাচের বোতলের দাম পড়বে ৪০০ টাকা আর টিনের কৌটার দাম পড়বে ১৫০ টাকা।

Dove (ডাভ)-এর দাম পড়বে ৪৫০ টাকা।

Yardley (ইয়ার্ডলি) ৮৩০ থেকে ৯৫০ টাকা পড়বে এর দাম।

perachute (প্যারাসুট) এটির দাম পড়বে ১৯০ থেকে ২৫০ টাকার মধ্যে।

ড়ষব (ওলে) এর দাম পড়বে ২৬০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে।

গ্লিসারিনের দাম পড়বে ১৫০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যে।

কোথায় পাবেন

যমুনা ফিউচার পার্ক, ইস্টান প্লাজা, রাজউক, নিগার প্লাজা, নিউমার্কেট থেকে শুরু করে আপনার আশপাশের প্রসাধনীর দোকানে।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন[email protected]এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

 
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

gpstar

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter