ভারতের বাজারে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজের সুগন্ধি

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:০২:০৫ | অনলাইন সংস্করণ

ভারতের বাজারে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজের সুগন্ধি । ছবি সংগৃহীত

চলতি বছরে বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কয়েক গুণ। শীতের শুরুতে বাজারে নতুন পেঁয়াজ এলেও কমছে না পেঁয়াজের দাম। তবে এখন কথা হচ্ছে– পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করা সম্ভব।

রান্নায় পেঁয়াজের বিকল্প হিসেবে বোতলবন্দি করে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজের গুঁড়ো আর সেন্ট। এখন পেঁয়াজ ছাড়াই রান্নায় মিলবে পেঁয়াজের স্বাদ।
আদা-রসুন বাটা প্যাকেট করে বহুদিন ধরেই বাজারে বিক্রি হলেও পেঁয়াজ সেভাবে প্যাকেটজাত হতে দেখা যায়নি। কারণ পেঁয়াজ বেশি দিন প্যাকেটজাত করে রাখা সম্ভব নয়। বেশ কয়েকটি সংস্থা বাজারে এনেছে এই পেঁয়াজের সেন্ট।

সংস্থাগুলো দাবি করছে, আসল পেঁয়াজের নির্যাস থেকেই এই পাউডার আর সেন্ট বানানো হচ্ছে। যদিও তা যাচাই করে দেখা হয়নি। তবে বেশ কয়েকটি সংস্থার বোতলে দেখা গেছে খাদ্য নিয়ামক সংস্থা ফ্যাসাইয়ের ছাড়পত্র রয়েছে তাদের।

কিন্তু পেঁয়াজের এই সেন্ট আর পাউডার আদৌ খাওয়ার উপযুক্ত কিনা তা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন মানুষ।
ব্যবসায়ীদের দাবি, পেঁয়াজের দাম যে জায়গায় পৌঁছেছে তাতে কোনো পদেই ব্যবহার করা সম্ভব নয়। কারণ হাঠাৎ খাবারের দাম বাড়ালে খদ্দের মুখ ফিরিয়ে নেবে। আবার পেঁয়াজ ছাড়া ফাস্টফুড চলেও না।

পেঁয়াজের এই পাউডার আর সেন্ট দাম সাধ্যের মধ্যে রয়েছে। একটি সংস্থার পেঁয়াজের ৭০ গ্রাম পাউডারের দাম ৮০ টাকা।

ওই সংস্থার দাবি, রান্নায় সামান্য একটু দিলেই পেঁয়াজের স্বাদ আর গন্ধ মিলবে। কিন্তু পেঁয়াজের এ পাউডার আর সেন্ট মানুষের পেটে কী কোনো বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে? এ বিষয়ে চিকিৎসকদের মতামত নেয়া হয়।

গ্যাস্ট্রোএনটেরোলজিস্ট ডা. সন্দীপ পাল বলেন, যদি এই পাউডার আর সেন্ট শুধু পেঁয়াজের নির্যাস থেকে তৈরি করা হয়ে থাকে তা হলে সেভাবে ক্ষতি হওয়ার কথা নয়। তবে যদি প্রিজারভেটিভ ব্যবহার করা হয় তা হলে সেটি মানবদেহে ক্ষতি করতে পারে।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-[email protected]-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত