করোনার নতুন যেসব উপসর্গ ভয়ের কারণ হতে পারে
jugantor
করোনার নতুন যেসব উপসর্গ ভয়ের কারণ হতে পারে

  লাইফস্টাইল ডেস্ক  

২৪ নভেম্বর ২০২০, ১৫:২৪:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

করোনাভাইরাস গোটা বিশ্বে মানুষের জীবযাপনের ওপর বিরুপ প্রভাব ফেলছে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা।

এই ভাইরাসের উপসর্গ সম্পর্কে আমরা কমবেশি সবাই জানি। এ ছাড়া প্রতিনিয়ত করোনার অনেক নতুন উপসর্গ দেখা দিচ্ছে। তবে করোনার কিছু লক্ষণ রয়েছে, যা দেখা দিলে অবশ্যই ভয়ের কারণ রয়েছে। তাই সতর্ক হতে হবে।

হাঁচি, সর্দি, কাশি শ্বাসকষ্ট ও জ্বরের উপসর্গ ছাড়াও সংক্রমিত ব্যক্তির শরীরে দেখা দিচ্ছে নতুন ধরনের উপসর্গ।

জ্বর, শুকনো কাশি, গলাব্যথা, সর্দি, নাক বসে যাওয়া, বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, ক্লান্তি, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল ইনফেকশন ও স্বাদ এবং গন্ধ চলে যাওয়া এগুলো করোনার পুরনো উপসর্গ।

আমেরিকান জার্নাল অফ গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে অনুসারে, পেটে ব্যথা এবং গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যা করোনার নতুন উপসর্গ। করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীদের মধ্যে গুরুতর গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যা হতে পারে।

তথ্যানুযায়ী, চীনে ২০৪ জন রোগীকে পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে, ৪৮.৫ শতাংশ পেটের সমস্যায় ভুগছেন। গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যার মধ্যে ডায়রিয়া, বমি বা বমি বমি ভাব এবং কোষ্ঠকাঠিন্যও রয়েছে।

সম্প্রতি অনেক কোভিড রোগীদের মধ্যে চোখের সংক্রমণের ঘটনাও শোনা যাচ্ছে। গবেষকদের দাবি, করোনাভাইরাস সংক্রমিত হতে পারে চোখেও। সাধারণ অর্থে একে 'চোখ ওঠা' বলে। অ্যালার্জি, ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হয়ে চোখের এই সাদা অংশটি লাল হয়ে যায়, পানি পড়ে এবং চোখ চুলকাতে থাকে। এ ছাড়া চোখে নোংরা জমে, চোখ ও মাথাব্যথাও হয়।

তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই


[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

করোনার নতুন যেসব উপসর্গ ভয়ের কারণ হতে পারে

 লাইফস্টাইল ডেস্ক 
২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৩:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

করোনাভাইরাস গোটা বিশ্বে মানুষের জীবযাপনের ওপর বিরুপ প্রভাব ফেলছে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। 

এই ভাইরাসের উপসর্গ সম্পর্কে আমরা কমবেশি সবাই জানি।  এ ছাড়া প্রতিনিয়ত করোনার অনেক নতুন উপসর্গ দেখা দিচ্ছে। তবে করোনার কিছু লক্ষণ রয়েছে, যা দেখা দিলে অবশ্যই ভয়ের কারণ রয়েছে। তাই সতর্ক হতে হবে।  

হাঁচি, সর্দি, কাশি শ্বাসকষ্ট ও জ্বরের উপসর্গ ছাড়াও সংক্রমিত ব্যক্তির শরীরে দেখা দিচ্ছে নতুন ধরনের উপসর্গ।

জ্বর, শুকনো কাশি, গলাব্যথা, সর্দি, নাক বসে যাওয়া, বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, ক্লান্তি, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল ইনফেকশন ও স্বাদ এবং গন্ধ চলে যাওয়া এগুলো করোনার পুরনো উপসর্গ।

আমেরিকান জার্নাল অফ গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে অনুসারে, পেটে ব্যথা এবং গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যা করোনার নতুন উপসর্গ। করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীদের মধ্যে গুরুতর গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যা হতে পারে। 

তথ্যানুযায়ী, চীনে ২০৪ জন রোগীকে পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে, ৪৮.৫ শতাংশ পেটের সমস্যায় ভুগছেন। গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল সমস্যার মধ্যে ডায়রিয়া, বমি বা বমি বমি ভাব এবং কোষ্ঠকাঠিন্যও রয়েছে। 

সম্প্রতি অনেক কোভিড রোগীদের মধ্যে চোখের সংক্রমণের ঘটনাও শোনা যাচ্ছে। গবেষকদের দাবি, করোনাভাইরাস সংক্রমিত হতে পারে চোখেও। সাধারণ অর্থে একে 'চোখ ওঠা' বলে। অ্যালার্জি, ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হয়ে চোখের এই সাদা অংশটি লাল হয়ে যায়, পানি পড়ে এবং চোখ চুলকাতে থাকে। এ ছাড়া চোখে নোংরা জমে, চোখ ও মাথাব্যথাও হয়। 

 

তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই


 

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]