সঙ্গী বিয়ে করতে না চাইলে যা করবেন
jugantor
সঙ্গী বিয়ে করতে না চাইলে যা করবেন

  লাইফস্টাইল ডেস্ক  

১৭ জুন ২০২১, ১৬:০৯:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক থাকলেও বিয়ের কথা শুনে অনেকেরই হতে পারে মাথা খারাপ। বিশেষ করে নারীদের চেয়ে পুরুষের মাঝে বিয়ের অনীহা বেশি দেখা যায়। আর এ কারণটির জন্য অনেক সময় কয়েক বছরের প্রেমও ভেঙে যেতে দেখা যায়।

তবে সবচেয়ে বেশি এ সমস্যাটি দেখা দেয় সমবয়সিদের মাঝে। এমন প্র্রেমে পুরুষরা চান তাদের ক্যারিয়ারে আরও ফোকাস দিতে। আর তাই বিয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে অনেকেই দেরি করেন। এ ছাড়া পরিবারসহ নানা পারিপার্শ্বিক চাপের কারণেও পুরুষ পরে বিয়ে করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

আবার অন্যদিকে নারীদের ক্ষেত্রে দেখা যায়, একটার পর একটা বিয়ে প্রস্তাব এড়াতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয় তাদেরও। সঙ্গী রাজি না থাকলে সে ক্ষেত্রে তারা পরিবারকে বলতেও পারে না সম্পর্কের বিষয়ে। এতে মেয়ের পরিবারের সঙ্গে তার মনোমালিন্য হয়ে থাকে অনেক সময়।

তাই জেনে নিন কীভাবে করতে হবে এমন সমস্যার মোকাবিলার—

১. বিয়েতে সঙ্গীর গুরুত্ব

বিয়ের বিষয়ে সঙ্গীর সঙ্গে একান্তে আলোচনা করতে পারেন। হতে পারে এ বিষয়ে একেকজনের ভাবনা একেক রকম। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ছেলেরা বিয়ের আগে নিজেকে গুছিয়ে নিতে চান। যার কারণে তারা বিয়েতে রাজি নাও হতে পারে।

২. সঙ্গী বিয়েতে রাজি হলে
সঙ্গী বিয়ে করতে মত দিলে তাকে তার মতো করে পরিকল্পনা করতে দিন। কোনো চাপ দেওয়ার চেষ্টা করা উচিত হবে না। স্বাভাবিকভাবেই বিয়ের প্রস্তুতি নিতে সময় লাগে। আবার পরিবারের সবার পরামর্শ ও সব আয়োজন করার প্রস্তুতি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।


৩. সঙ্গী বিয়েতে রাজি না হলে
এমনটি হলে সঙ্গীকে বোঝানোর চেষ্টা করুন। আপনাদের সম্পর্কের বিষয়ে বলুন। যখন আপনার পরিচিতদের মাঝে অনেকেরই বিয়ে হয়ে যায় বা আপনার পরিবার থেকে বিয়ের চাপ থাকে, তখন স্বাভাবিকভাবেই একটা মানসিক চাপ কাজ করবে আপনার ভেতরে। এসব বিষয়ে সঙ্গীর সঙ্গে খোলাখুলি আলোচনা করুন।


৪. সঙ্গী এড়িয়ে গেলে
ক্যারিয়ারের কথা ভেবে যদি আপনার সঙ্গী আপনাদের বিয়ের বিষয়টি এড়িয়ে যায়, তা হলে বিষয়টি আসলেও ভাববার মতোই। সবার জীবনেই নির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকে। কিন্তু তাই বলে সম্পর্কের পরিণতি না দিয়ে সেটিকে এড়িয়ে যাওয়া মোটেও ভালো মানসিকতার কাজ নয়। এতে হতে পারে মানসিকতায় অমিল। যার ফলে বাড়বে ভুল বোঝাবুঝি। এমন সম্পর্ক বেশি দিন টিকিয়ে রাখাই মুশকিল।


৫. দীর্ঘ সময় পরও যদি আরও সময় চায়
অনেক বছর সম্পর্কের পরে এসেও সঙ্গী যদি বিয়ের বিষয়ে আরও সময় চান বা এড়িয়ে যান, তা হলে সেই সম্পর্কে আর এগোনোই ঠিক হবে না। বারবার বোঝানোর পরও সঙ্গী আপনাকে না বুঝে যদি বিয়ে এড়িয়ে যায়, তা হলে এমন মানসিকতার ব্যক্তির সঙ্গে সারাজীবন কাটানো মুশকিল হতে পারে আপনার।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

সঙ্গী বিয়ে করতে না চাইলে যা করবেন

 লাইফস্টাইল ডেস্ক 
১৭ জুন ২০২১, ০৪:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক থাকলেও বিয়ের কথা শুনে অনেকেরই হতে পারে মাথা খারাপ। বিশেষ করে নারীদের চেয়ে পুরুষের মাঝে বিয়ের অনীহা বেশি দেখা যায়। আর এ কারণটির জন্য অনেক সময় কয়েক বছরের প্রেমও ভেঙে যেতে দেখা যায়। 

তবে সবচেয়ে বেশি এ সমস্যাটি দেখা দেয় সমবয়সিদের মাঝে। এমন প্র্রেমে পুরুষরা চান তাদের ক্যারিয়ারে আরও ফোকাস দিতে। আর তাই বিয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে অনেকেই দেরি করেন। এ ছাড়া পরিবারসহ নানা পারিপার্শ্বিক চাপের কারণেও পুরুষ পরে বিয়ে করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। 

আবার অন্যদিকে নারীদের ক্ষেত্রে দেখা যায়, একটার পর একটা বিয়ে প্রস্তাব এড়াতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয় তাদেরও। সঙ্গী রাজি না থাকলে সে ক্ষেত্রে তারা পরিবারকে বলতেও পারে না সম্পর্কের বিষয়ে। এতে মেয়ের পরিবারের সঙ্গে তার মনোমালিন্য হয়ে থাকে অনেক সময়। 

তাই জেনে নিন কীভাবে করতে হবে এমন সমস্যার মোকাবিলার—

১. বিয়েতে সঙ্গীর গুরুত্ব

বিয়ের বিষয়ে সঙ্গীর সঙ্গে একান্তে আলোচনা করতে পারেন। হতে পারে এ বিষয়ে একেকজনের ভাবনা একেক রকম। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ছেলেরা বিয়ের আগে নিজেকে গুছিয়ে নিতে চান। যার কারণে তারা বিয়েতে রাজি নাও হতে পারে।

২. সঙ্গী বিয়েতে রাজি হলে
সঙ্গী বিয়ে করতে মত দিলে তাকে তার মতো করে পরিকল্পনা করতে দিন। কোনো চাপ দেওয়ার চেষ্টা করা উচিত হবে না। স্বাভাবিকভাবেই বিয়ের প্রস্তুতি নিতে সময় লাগে। আবার পরিবারের সবার পরামর্শ ও সব আয়োজন করার প্রস্তুতি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।


৩. সঙ্গী বিয়েতে রাজি না হলে
এমনটি হলে সঙ্গীকে বোঝানোর চেষ্টা করুন। আপনাদের সম্পর্কের বিষয়ে বলুন। যখন আপনার পরিচিতদের মাঝে অনেকেরই বিয়ে হয়ে যায় বা আপনার পরিবার থেকে বিয়ের চাপ থাকে, তখন স্বাভাবিকভাবেই একটা মানসিক চাপ কাজ করবে আপনার ভেতরে। এসব বিষয়ে সঙ্গীর সঙ্গে খোলাখুলি আলোচনা করুন।


৪. সঙ্গী এড়িয়ে গেলে
ক্যারিয়ারের কথা ভেবে যদি আপনার সঙ্গী আপনাদের বিয়ের বিষয়টি এড়িয়ে যায়, তা হলে বিষয়টি আসলেও ভাববার মতোই। সবার জীবনেই নির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকে। কিন্তু তাই বলে সম্পর্কের পরিণতি না দিয়ে সেটিকে এড়িয়ে যাওয়া মোটেও ভালো মানসিকতার কাজ নয়। এতে হতে পারে মানসিকতায় অমিল। যার ফলে বাড়বে ভুল বোঝাবুঝি। এমন সম্পর্ক বেশি দিন টিকিয়ে রাখাই মুশকিল।


৫. দীর্ঘ সময় পরও যদি আরও সময় চায়
অনেক বছর সম্পর্কের পরে এসেও সঙ্গী যদি বিয়ের বিষয়ে আরও সময় চান বা এড়িয়ে যান, তা হলে সেই সম্পর্কে আর এগোনোই ঠিক হবে না। বারবার বোঝানোর পরও সঙ্গী আপনাকে না বুঝে যদি বিয়ে এড়িয়ে যায়, তা হলে এমন মানসিকতার ব্যক্তির সঙ্গে সারাজীবন কাটানো মুশকিল হতে পারে আপনার।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন