চুল ও ত্বকের যত্নে চাল ধোয়া পানি
jugantor
চুল ও ত্বকের যত্নে চাল ধোয়া পানি

  লাইফস্টাইল ডেস্ক  

১৮ জুন ২০২১, ১২:২০:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

চুল ও ত্বকের যত্নে চাল ধোয়া পানি

কার্বোহাইড্রেটের আধার চালের গুণ বলে শেষ করা যাবে না। এটি আমাদের ক্ষুধা মেটানো ছাড়াও বহু কাজে আসে। রূপচর্চায় এটি ব্যবহৃত হয়। ত্বক ও চুলের যত্নে চালের গুঁড়ো ও পানি বড় ভূমিকা রাখে।

চালের পানিকে প্রাকৃতিক সানস্ক্রিন বলা হয়। বিভিন্ন চর্মরোগ নিরমিয়ে, অকাল বার্ধক্য দূর করতে এবং ত্বকের নানান সমস্যার সমাধানে কার্যকরী উপাদান হিসেবে কাজ করে চাল ধোয়া পানি। সম্পূর্ণ কেমিক্যালমুক্ত এই উপাদানটি ত্বককে কোমল, মসৃণ ও উজ্জ্বল করে তোলে।

রূপচর্চার জন্য চালের পানি বানানোর দুটি সহজ পদ্ধতি রয়েছে। জানুন যেভাবে তৈরি করবেন চালের পানি—

১. এক কাপ চালের সঙ্গে দুই কাপ পরিমাণ পানি মিশিয়ে প্রায় আধাঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এর পর সেই চালের পানি ছেকে নিয়ে একটি বোতলে সংরক্ষণ করুন।

২. এক কাপ চালের সঙ্গে দুই কাপ পরিমাণ পানি মিশিয়ে সেটি সিদ্ধ করতে দিন। এর পর সেটি অর্ধেক সিদ্ধ হয়ে এলে সেই আধাসিদ্ধ চালের পানি একটি বোতলে ছেঁকে নিন।

চালের পানি তৈরি করতে কিছু টিপস—
১. এটি বানানোর সময়, সম্পূর্ণ অর্গানিক চাল ব্যবহার করুন এবং চাল খুব ভালোমতো ধুয়ে ব্যবহার করুন।
২. এটির জন্য সাদা চাল ব্যবহার করা বেশি ভালো
৩. এটি সাধারণ তাপমাত্রায় ও শুষ্ক জায়গায় রাখুন
৪. এক পানি পাঁচ দিনের বেশি ব্যবহার করবেন না
৫. এটি ধীরে ধীরে ঘন হয়ে যেতে পারে। তাই এর ভেতরে আলাদা করে পানি মিশিয়ে পাতলা করে ব্যবহার করতে পারেন।

চালের পানির যত উপকারিতা—
১. চালের পানি সেনসিটিভ স্কিনের জন্য ও ব্রণ-পিম্পলের সমস্যা দূর করতে অনেক উপকারী। দিনে দুবার চালের পানি দিয়ে গোসল করা অনেক উপকারী। এটি প্রদাহ, ব়্যাশ ও ডার্মাটাইটিসের মতো বিভিন্ন ত্বকের সমস্যা দূর করে। এ ছাড়া সেনসিটিভ স্কিনের জন্য, ব্রণ এবং পিম্পলের সমস্যাও দূর করে এটি।

২. চালের পানিকে প্রাকৃতিক সানস্ক্রিন বলা হয়। এটি সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। সানবার্ন সারাতেও এটি ব্যবহার করা যেতে পারে। সানবার্নের স্থানে এটি ব্যবহারে তা দ্রুত সেরে উঠবে।

৩. চালের পানিতে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি এবং ভিটামিন ই, ফেরুলিক অ্যাসিড, ফ্ল্যাভনয়েড এবং ফেনোলিক কম্পাউন্ডের মতো উপাদানগুলো থাকে। এ উপাদানগুলো থাকায় এটি বার্ধক্য রোধ করে এবং ত্বকের ক্রিয়াকলাপের উপকারী ভূমিকা পালন করে।

৪. চালের পানির অন্যতম প্রধান কাজ হলো ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করা। এ ছাড়া সানস্পট, পিগমেন্টেশন, ফ্রিকেলস, হালকা করতেও এটি বিশেষভাবে কার্যকর। চালের পানিতে তুলো ভিজিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করেই পাবেন এর সুফল।

৫. ত্বককে কোমল ও মসৃণ রাখার পাশাপাশি এটি স্কিন ক্যানসারের হাত থেকে রক্ষা করতেও অনেক কার্যকরী। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকার কারণে এটি ত্বকের ক্যানসার থেকে রক্ষা করে এবং বার্ধক্য বিরোধী হিসেবে কাজ করে।

৬. দেহের ত্বকের জন্যও অনেক উপকারী এটি। প্রতিদিনের গোসলের পানিতে দুই কাপ পরিমাণ চালের পানি মিশিযে ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। আপনি চাইলে এতে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার সেনশিয়াল অয়েলেও মিশিয়ে নিতে পারেন।


তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

চুল ও ত্বকের যত্নে চাল ধোয়া পানি

 লাইফস্টাইল ডেস্ক 
১৮ জুন ২০২১, ১২:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চুল ও ত্বকের যত্নে চাল ধোয়া পানি
ছবি: সংগৃহীত

কার্বোহাইড্রেটের আধার চালের গুণ বলে শেষ করা যাবে না। এটি আমাদের ক্ষুধা মেটানো ছাড়াও বহু কাজে আসে। রূপচর্চায় এটি ব্যবহৃত হয়। ত্বক ও চুলের যত্নে চালের গুঁড়ো ও পানি বড় ভূমিকা রাখে। 

চালের পানিকে প্রাকৃতিক সানস্ক্রিন বলা হয়। বিভিন্ন চর্মরোগ নিরমিয়ে, অকাল বার্ধক্য দূর করতে এবং ত্বকের নানান সমস্যার সমাধানে কার্যকরী উপাদান হিসেবে কাজ করে চাল ধোয়া পানি। সম্পূর্ণ কেমিক্যালমুক্ত এই উপাদানটি ত্বককে কোমল, মসৃণ ও উজ্জ্বল করে তোলে।

রূপচর্চার জন্য চালের পানি বানানোর দুটি সহজ পদ্ধতি রয়েছে। জানুন যেভাবে তৈরি করবেন চালের পানি—

১. এক কাপ চালের সঙ্গে দুই কাপ পরিমাণ পানি মিশিয়ে প্রায় আধাঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এর পর সেই চালের পানি ছেকে নিয়ে একটি বোতলে সংরক্ষণ করুন। 

২. এক কাপ চালের সঙ্গে দুই কাপ পরিমাণ পানি মিশিয়ে সেটি সিদ্ধ করতে দিন।  এর পর সেটি অর্ধেক সিদ্ধ হয়ে এলে সেই আধাসিদ্ধ চালের পানি একটি বোতলে ছেঁকে নিন।

চালের পানি তৈরি করতে কিছু টিপস—
১. এটি বানানোর সময়, সম্পূর্ণ অর্গানিক চাল ব্যবহার করুন এবং চাল খুব ভালোমতো ধুয়ে ব্যবহার করুন।
২. এটির জন্য সাদা চাল ব্যবহার করা বেশি ভালো
৩. এটি সাধারণ তাপমাত্রায় ও শুষ্ক জায়গায় রাখুন
৪. এক পানি পাঁচ দিনের বেশি ব্যবহার করবেন না
৫. এটি ধীরে ধীরে ঘন হয়ে যেতে পারে। তাই এর ভেতরে আলাদা করে পানি মিশিয়ে পাতলা করে ব্যবহার করতে পারেন। 

চালের পানির যত উপকারিতা—
১. চালের পানি সেনসিটিভ স্কিনের জন্য ও ব্রণ-পিম্পলের সমস্যা দূর করতে অনেক উপকারী। দিনে দুবার চালের পানি দিয়ে গোসল করা অনেক উপকারী। এটি প্রদাহ, ব়্যাশ ও ডার্মাটাইটিসের মতো বিভিন্ন ত্বকের সমস্যা দূর করে। এ ছাড়া সেনসিটিভ স্কিনের জন্য, ব্রণ এবং পিম্পলের সমস্যাও দূর করে এটি।

২. চালের পানিকে প্রাকৃতিক সানস্ক্রিন বলা হয়।  এটি সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। সানবার্ন সারাতেও এটি ব্যবহার করা যেতে পারে। সানবার্নের স্থানে এটি ব্যবহারে তা দ্রুত সেরে উঠবে।

৩. চালের পানিতে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি এবং ভিটামিন ই, ফেরুলিক অ্যাসিড, ফ্ল্যাভনয়েড এবং ফেনোলিক কম্পাউন্ডের মতো উপাদানগুলো থাকে। এ উপাদানগুলো থাকায় এটি বার্ধক্য রোধ করে এবং ত্বকের ক্রিয়াকলাপের উপকারী ভূমিকা পালন করে। 

৪. চালের পানির অন্যতম প্রধান কাজ হলো ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করা। এ ছাড়া সানস্পট, পিগমেন্টেশন, ফ্রিকেলস, হালকা করতেও এটি বিশেষভাবে কার্যকর। চালের পানিতে তুলো ভিজিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করেই পাবেন এর সুফল।

৫. ত্বককে কোমল ও মসৃণ রাখার পাশাপাশি এটি স্কিন ক্যানসারের হাত থেকে রক্ষা করতেও অনেক কার্যকরী। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকার কারণে এটি ত্বকের ক্যানসার থেকে রক্ষা করে এবং বার্ধক্য বিরোধী হিসেবে কাজ করে। 

৬. দেহের ত্বকের জন্যও অনেক উপকারী এটি। প্রতিদিনের গোসলের পানিতে দুই কাপ পরিমাণ চালের পানি মিশিযে ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। আপনি চাইলে এতে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার সেনশিয়াল অয়েলেও মিশিয়ে নিতে পারেন। 


তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন