সঙ্গীর সঙ্গে মানসিক সংযোগ বাড়াবেন যেভাবে
jugantor
সঙ্গীর সঙ্গে মানসিক সংযোগ বাড়াবেন যেভাবে

  লাইফস্টাইল ডেস্ক  

১৮ জুন ২০২১, ১৩:২২:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

সঙ্গীর সঙ্গে মানসিক সংযোগ বাড়াবেন যেভাবে

প্রতিটি সম্পর্কের মূলে হচ্ছে আস্থা ও মানসিক সংযোগ। সঙ্গীর মনের সঙ্গে আপনার মানসিক সংযোগ না হলে সম্পর্কে টানাপোড়েন দেখা দেবে। এর পরিণতি খুব একটা সুখকর হয় না।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ‘যে কোনো সম্পর্কেই বন্ধুত্ব থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রথমে আপনার সঙ্গীর ভালো বন্ধু হওয়াটা সম্পর্কের জন্য ভালো’।

সম্পর্কের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে— একে অপরের সঙ্গে ভালো যোগাযোগ থাকা। সঙ্গীর সঙ্গে যথেষ্ট পরিমাণে কথা বলতে হবে এবং দুজন দুজনকে সময় দেওয়ার অভ্যাস তৈরি করতে হবে। এতে সম্পর্কের মাঝে দূরত্ব অনেক কমে আসবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ‘আপনার সঙ্গীর সঙ্গে শারীরিক সংযুক্তির চেয়েও মানসিক সংযোগ রাখা বেশি গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয়’।

জীবনের সব ভালো বা খারাপ ঘটনাই দুজনেরই ভাগ করে নেওয়া উচিত। আর যদি আপনার জীবনের স্বপ্ন, ভয়, লক্ষ্য, পরিবার সবকিছু নিয়ে সঙ্গীর সঙ্গে কথা না বলতে পারেন, তা হলে সম্পর্ক ভালো যাওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে।

এ ছাড়া প্রতিটি সম্পর্কেই উত্থান-পতন থাকে। সম্পর্কে বিরোধ এলে অবশ্যই আপনাদের নিজেদের বিরোধের কারণগুলোর সমাধান করতে হবে। সম্পর্কটি অচলাবস্থার মুখোমুখি না নিতে চাইলে একে অপরকে দোষ দেওয়ার পরিবর্তে সমস্যার মোকাবিলা করে তার সমাধান বের করতে হবে দুজনে মিলেই।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হলে একে অপরকে সম্মান করা এবং উপযুক্ত স্বাধীনতা দেওয়া সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সম্পর্কে থাকা মানেই আপনাদের দুজনের জীবন শুধু দুজনকে ঘিরেই হবে এমনটি নয়। এর বাইরেও প্রত্যেকের আলাদা জীবন থাকে।

আর দুজনেরই দুজনকে অনেক বিশ্বাস করতে হবে। এটি যে কোনো সম্পর্ক বজায় রাখার মূল স্তম্ভ হিসেবে কাজ করে।

তথ্যসূত্র: জিনিউজ

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

সঙ্গীর সঙ্গে মানসিক সংযোগ বাড়াবেন যেভাবে

 লাইফস্টাইল ডেস্ক 
১৮ জুন ২০২১, ০১:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সঙ্গীর সঙ্গে মানসিক সংযোগ বাড়াবেন যেভাবে
ছবি: সংগৃহীত

প্রতিটি সম্পর্কের মূলে হচ্ছে আস্থা ও মানসিক সংযোগ।  সঙ্গীর মনের সঙ্গে আপনার মানসিক সংযোগ না হলে সম্পর্কে টানাপোড়েন দেখা দেবে। এর পরিণতি খুব একটা সুখকর হয় না। 

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ‘যে কোনো সম্পর্কেই বন্ধুত্ব থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রথমে আপনার সঙ্গীর ভালো বন্ধু হওয়াটা সম্পর্কের জন্য ভালো’। 

সম্পর্কের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে— একে অপরের সঙ্গে ভালো যোগাযোগ থাকা। সঙ্গীর সঙ্গে যথেষ্ট পরিমাণে কথা বলতে হবে এবং দুজন দুজনকে সময় দেওয়ার অভ্যাস তৈরি করতে হবে। এতে সম্পর্কের মাঝে দূরত্ব অনেক কমে আসবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ‘আপনার সঙ্গীর সঙ্গে শারীরিক সংযুক্তির চেয়েও মানসিক সংযোগ রাখা বেশি গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয়’। 

জীবনের সব ভালো বা খারাপ ঘটনাই দুজনেরই ভাগ করে নেওয়া উচিত।  আর যদি আপনার জীবনের স্বপ্ন, ভয়, লক্ষ্য, পরিবার সবকিছু নিয়ে সঙ্গীর সঙ্গে কথা না বলতে পারেন, তা হলে সম্পর্ক ভালো যাওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে।   

এ ছাড়া প্রতিটি সম্পর্কেই উত্থান-পতন থাকে।  সম্পর্কে বিরোধ এলে অবশ্যই আপনাদের নিজেদের বিরোধের কারণগুলোর সমাধান করতে হবে।  সম্পর্কটি অচলাবস্থার মুখোমুখি না নিতে চাইলে একে অপরকে দোষ দেওয়ার পরিবর্তে সমস্যার মোকাবিলা করে তার সমাধান বের করতে হবে দুজনে মিলেই। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হলে একে অপরকে সম্মান করা এবং উপযুক্ত স্বাধীনতা দেওয়া সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সম্পর্কে থাকা মানেই আপনাদের দুজনের জীবন শুধু দুজনকে ঘিরেই হবে এমনটি নয়। এর বাইরেও প্রত্যেকের আলাদা জীবন থাকে। 

আর দুজনেরই দুজনকে অনেক বিশ্বাস করতে হবে। এটি যে কোনো সম্পর্ক বজায় রাখার মূল স্তম্ভ হিসেবে কাজ করে। 

তথ্যসূত্র: জিনিউজ

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন