শহরের নামে যে খাবার
jugantor
শহরের নামে যে খাবার

  যুগান্তর ডেস্ক  

২১ জুন ২০২১, ০০:৪৪:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

স্যান্ডউইচ শহরের নামানুসারে খাবারটির নাম রাখা হয় স্যান্ডউইচ

দুই টুকরো পাউরুটির মাঝে মাংস কিংবা ডিম, সালাদ আর মেয়োজিন দিয়ে চটজদলি তৈরি স্যান্ডউইচের জনপ্রিয়তা বিশ্বজুড়ে। অল্প সময় আর অল্প উপকরণে তৈরি এই খাবারটি যেমন স্বাস্থ্যকর, তেমনি মুখরোচকও।

সহজে ঝামেলা ছাড়া, ভ্রমণের সময়,অফিসের লাঞ্চে, স্কুলের টিফিনে কিংবা ব্যস্ত দিনের শেষে রাতের খাবারে স্যান্ডউইচের জুড়ি মেলা ভার। জানেন কীসব বয়সী মানুষের প্রিয় এই খাবারের নামটি এসেছে ইংল্যান্ডের একটি শহর স্যান্ডউইচের নামে। আর এই স্যান্ডউইচ উদ্ভবের পেছনের রয়েছে মজার ইতিহাস।

প্রথবার স্যান্ডউইচ তৈরির গল্প জানতে পেছাতে হবে আঠারো শতকের ইংল্যান্ডে। ইংল্যান্ডেরস্যান্ডউইচ শহরের চতুর্থ লর্ড জন মন্টেগু বন্ধুদের সাথে তাস খেলছিলেন। খেলার মাঝেই খাওয়ার সময় হলে ভৃত্য তাকে খাবারের জন্য ডাকে। কিন্তু মন্টেগু খেলায় এতোটাই মগ্ন হয়ে গিয়েছিলেন যে ভৃত্য খেলার আসরেই সহজে খাওয়া যায় এমন খাবার পরিবেশন করতে বলেন।

তখন লর্ডের রাঁধুনী বুদ্ধি করে রাতের খাবারের জন্য বানানো মাংসের টুকরো, সালাদ মিশিয়ে দুই টুকরো পাউরুটির মধ্যে ঠেসে খেলার আসরে পাঠিয়ে দেয়। খেয়ে লর্ড আর তার বন্ধুরা ভীষণ তারিফ করতে থাকেন ওই রাঁধুনীর। এভাবেই জন্ম হয় বিশ্বের অন্যতম এই জনপ্রিয় খাবারের। স্যান্ডউইচ শহরের নামানুসারে খাবারটির নাম রাখা হয় স্যান্ডউইচ।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

শহরের নামে যে খাবার

 যুগান্তর ডেস্ক 
২১ জুন ২০২১, ১২:৪৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
স্যান্ডউইচ শহরের নামানুসারে খাবারটির নাম রাখা হয় স্যান্ডউইচ
স্যান্ডউইচ শহরের নামানুসারে খাবারটির নাম রাখা হয় স্যান্ডউইচ

দুই টুকরো পাউরুটির মাঝে মাংস কিংবা ডিম, সালাদ আর মেয়োজিন দিয়ে চটজদলি তৈরি স্যান্ডউইচের জনপ্রিয়তা বিশ্বজুড়ে। অল্প সময় আর অল্প উপকরণে তৈরি এই খাবারটি যেমন স্বাস্থ্যকর, তেমনি মুখরোচকও।

সহজে ঝামেলা ছাড়া, ভ্রমণের সময়,অফিসের লাঞ্চে, স্কুলের টিফিনে কিংবা ব্যস্ত দিনের শেষে রাতের খাবারে স্যান্ডউইচের জুড়ি মেলা ভার। জানেন কী সব বয়সী মানুষের প্রিয় এই খাবারের নামটি এসেছে ইংল্যান্ডের একটি শহর স্যান্ডউইচের নামে। আর এই স্যান্ডউইচ উদ্ভবের পেছনের রয়েছে মজার ইতিহাস।

প্রথবার স্যান্ডউইচ তৈরির গল্প জানতে পেছাতে হবে আঠারো শতকের ইংল্যান্ডে। ইংল্যান্ডের স্যান্ডউইচ শহরের চতুর্থ লর্ড জন মন্টেগু বন্ধুদের সাথে তাস খেলছিলেন। খেলার মাঝেই খাওয়ার সময় হলে ভৃত্য তাকে খাবারের জন্য ডাকে। কিন্তু মন্টেগু খেলায় এতোটাই মগ্ন হয়ে গিয়েছিলেন যে ভৃত্য খেলার আসরেই সহজে খাওয়া যায় এমন খাবার পরিবেশন করতে বলেন।

তখন লর্ডের রাঁধুনী বুদ্ধি করে রাতের খাবারের জন্য বানানো মাংসের টুকরো, সালাদ মিশিয়ে দুই টুকরো পাউরুটির মধ্যে ঠেসে খেলার আসরে পাঠিয়ে দেয়। খেয়ে লর্ড আর তার বন্ধুরা ভীষণ তারিফ করতে থাকেন ওই রাঁধুনীর। এভাবেই জন্ম হয় বিশ্বের অন্যতম এই জনপ্রিয় খাবারের। স্যান্ডউইচ শহরের নামানুসারে খাবারটির নাম রাখা হয় স্যান্ডউইচ।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-jugantorlifestyle@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন