যেসব খাবার সবসময় ফ্রিজে রাখতে পারেন

প্রকাশ : ৩১ আগস্ট ২০১৮, ১৫:৪১ | অনলাইন সংস্করণ

  লাইফস্টাইল ডেস্ক

ডিম, ছবি সংগৃহীত।

আধুনিকজীবনে ফ্রিজছাড়া চলতে পারেন না অনেকে। তাই ব্যস্ত জীবনে সময় বাঁচতে এক সপ্তাহ, ১৫ দিন বা এক মাসের বাজার করে ফ্রিজে রাখেন বেশিরভাগ মানুষ। সব খাবার ফ্রিজে রাখা ভালো না। তবে কিছু খাবার আছে তা সবসময় আপনি ফ্রিজে রাখতে পারেন।   


পুষ্টিসম্মত খাবারের জন্য সবসময় পাঁচ ধরনের খাবার অবশ্যই ফ্রিজে রাখতে পারেন। যার ফলে হাজারও ব্যস্ততার মাঝে ঝটপট মিলে যাবে সতেজ খাবার।

ডিম

পুষ্টিগুণ সম্পন্ন খাবারের জন্য ডিম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা ডিমে রয়েছে অনেক পুষ্টি উপাদান। প্রোটিনের পরিমাণও অনেক বেশি আর ক্যালরিও কম। ডিম। 
ডিমের আর একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো এর সহজলভ্যতা। সকালের নাস্তার জন্য এটি হতে পারে সবথেকে ভালো প্রোটিনের উৎস। 

টাটকা শাকসবজি

টাটকা শাকসবজি সবসময় ফ্রিজে রাখতে পারেন। শাকসবজিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন আর খনিজ পদার্থ। যা আপনার পুষ্টিসম্মত খাবারের চাহিদা পূরণ করবে।

সবুজ শাকসবজিতে রয়েছে- ভিটামিন ‘এ’ ‘বি২’ ‘বি৬’ ‘সি’ ‘ই’ ‘কে’। এছাড়াও রয়েছে খনিজ পদার্থ- ক্যালসিয়াম, কপার, জিংক, ম্যাগনেসিয়াম।

বেরি জাতীয় ফল

অন্যান্য ফলের তুলনায় বেরি জাতীয় ফলে সুগারের পরিমাণ অনেক কম থাকে। এছাড়াও এ জাতীয় ফল থেকে কর্মশক্তি পাওয়া যায়। বেরি জাতীয় ফলগুলোতে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন, খনিজ জাতীয় পদার্থ। 

বেরি জাতীয় ফলে সাধারণত ভিটামিন ‘সি’ বেশি থাকে। এছাড়াও আশ জাতীয় উপাদান ও পটাশিয়ামও রয়েছে।

ফ্যাটবিহীন দই

প্রোটিনের চাহিদা পূরণে দই বেশ কাজে আসে। খাওয়ার পরে দই খেতে পারেন। দইয়ে রয়েছে প্রোটিন, ভিটামিন ডি ও উপকারি ব্যাকটেরিয়া। হৃদযন্ত্র, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে দই খুবই উপকারি। কোলেস্টরলের মাত্রা ঠিক রাখতেও দই বেশ কাজে আসে। তবে দইয়েরও রয়েছে বিভিন্ন ধরন। তাদের ফ্যাটবিহীন দই একটি। এছাড়াও রয়েছে গ্রিক ইয়োগার্ট। দই। 

অন্যান্য খাবার

উপরের খাবারের তালিকা ছাড়াও আরও বেশ কিছু খাবার আপনার ফ্রিজে সবসময় রাখতে পারেন। যেমন: মুরগীর মাংস, শিম, বার্গার, কুইনোয়া আপনার ফ্রিজে রাখতে পারেন। দিনের শুরু কিংবা দিনের শেষে খুব সহজেই এগুলো দিয়ে আপনার খাবার তৈরি করতে পারবেন। মাংসসহ বিভিন্ন খাবার।