শব্দদূষণ রোধে চালকের করণীয়

প্রকাশ : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

  লাইফস্টাইল ডেস্ক

শব্দদূষণ রোধে চালকের করণীয়, ছবি সংগৃহীত।

শুধু গান নয়; মিষ্টি মধুর যে কোনো শব্দ শুনলেই আমাদের সবার মনে একরকম ভালো লাগার অনুভূতি কাজ করে। আবার উচ্চমাত্রার শব্দদূষণে মনে অস্থিরতা ভর করে। মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়। মাথা ঝিম ধরে থাকে। 

ছেলেমেয়েদের পড়াশোনায় মন বসে না। বুক ধড়ফড়, রক্তচাপ বেড়ে যাওয়া, কানে কম শোনা থেকে শুরু করে দীর্ঘদিন এ রকম উচ্চমাত্রার শব্দ শ্রবণে মানুষ স্থায়ীভাবে বধিরও হয়ে যেতে পারে। 

রাজধানীতে জনসংখ্যার আধিক্য আর নাগরিক সুযোগ-সুবিধার অভাবের সঙ্গে এখানে যুক্ত হয়েছে ভয়াবহ রকম বায়ু এবং শব্দদূষণ; যা আমরা গোনার মধ্যেই সেভাবে আনছি না।

তবে শব্দদূর্ষণ রোধে একজন চালকের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আসুন জেনে নেই শব্দদূর্ষণ রোধে একজন চালকের করণীয়।   

হর্ন বাজানো যাবে না যে ৯ স্থানে

১. বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া হর্ন বাজানোর বদভ্যাস ত্যাগ করুন।
২. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান- বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয়, মাদ্রাসা ইত্যাদি এলাকায় হর্ন বাজানো যাবে না।
৩. হাসপাতাল এলাকায় হর্ন বাজানো যাবে না।
৪. মসজিদ মন্দির, গির্জা, প্যাগোডা এলাকায় হর্ন বাজানো যাবে না।
৫. আবাসিক এলাকায় হর্ন বাজানো যাবে না।
৬. যেকোনো সংরক্ষিত এলাকায় (বিশেষ করে সচিবালয়) হর্ন বাজানো যাবে না।
৭. আদালত এলাকায় হর্ন বাজানো যাবে না।
৮. রাতে হর্ন বাজানো যাবে না।
৯. যেখানে হর্ন বাজানো নিষেধ আছে সেখানে হর্ন বাজানো যাবে না।

দুর্ঘটনা এড়াতে

১. উল্টো দিকে গাড়ি না চালানো।
২. যেখানে সেখানে গাড়ি পার্ক না করা।
৩. গাড়ি চালানোর সময় মোবাইলে কথা না বলা।
৪. বেপরোয়াভাবে গাড়ি না চালানো।
৫. নেশাগ্রস্থ অবস্থায় গাড়ি না চালানো।
৬. যেখানে সেখানে ওভারটেকিং না করা।
৭. শারীরিক ও মানসিকভাবে অনুপযুক্ত অবস্থায় গাড়ি না চালানো।