রোহিঙ্গা সংকট

আর্তনাদ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  যুগান্তর রিপোর্ট ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৮:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

আর্তনাদ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন
আর্তনাদ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের ব্যথিত হ্নদয়ের অশ্রু নিয়ে রীনা আকতার তুলির লেখা ’আর্তনাদ’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম। বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে বর্মি সেনাদের হাতে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের লোমহর্ষক ঘটনার খণ্ডচিত্র।

এছাড়া রোহিঙ্গাদের ওপর বর্মি সেনাদের ভয়াবহ নির্যাতন, নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের আর্তনাদ, সম্ভ্রম হারানো নারীদের বিয়োগব্যথা, বাবা-মা’হারা শিশুদের ব্যথাভরা চোখ, নাফ নদীতে নৌকা ডুবে যাওয়া, অন্তঃসত্ত্বা নারীদের কষ্ট, বিধবা নারীদের আর্তনাদ, রোহিঙ্গাদের প্রতি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভালোবাসা, মমতাময়ী মাতা শেখ হাসিনার কান্না, রোহিঙ্গা শিশুদের শীত-বৃষ্টির দুর্ভোগসহ বিভিন্ন বিষয়। বইটির সব লেখা রোহিঙ্গাদের বাস্তবজীবন আর চোখে দেখা রোহিঙ্গা জীবন থেকে নেয়া। প্রতিটি বিষয় রোহিঙ্গাদের বাস্তব জীবনের ব্যথিত হৃদয়ের অশ্রু।

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে সাইফুল আলম বলেন, আপনারা জানেন বর্মি সেনাদের হাতে ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার হয়েছে রোহিঙ্গা। সবচেয়ে অসহনীয় অবস্থায় ছিল নারী ও শিশুদের।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী এসব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। প্রতিবেশী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ তাদের আশ্রয় দিয়েছে। তবে আমরা চাই রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমিতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হোক। বইটি ইতিহাসের সাক্ষী, বইটি পড়ে আপনার অনেক অজানা বিষয় জানতে পারেবেন।

পৃথিবীর সবচেয়ে নির্যাতিত সংখ্যালঘু জাতির নাম রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গারা রাষ্ট্রহীন জাতি, যাদের কোনো ভোটের অধিকার নেই। যুগ যুগ ধরে নিজ জন্মভূমিতে বসবাস করলেও আজ তারা উদ্বাস্তু, পথের মানুষ, পথই হয়েছে তাদের ঠিকানা। শর্তবর্ষ আগে পূর্বপুরুষদের রেখে যাওয়া ভিটেমাটিতে কেটেছে শৈশব, যৌবন, যেখানে শেকড়ের পরিচয়, সে দেশ তাদের নয়। নির্বিচারে চালানো হয়েছে গণহত্যা, গণধর্ষণের পর নারীদের করা হয়েছে জবাই, আগুনে নিক্ষেপ। মানুষরূপী হায়েনার দল মায়ের কোল থেকে শিশুদের হেঁচকা টানে কেড়ে নিয়ে বুটের নিচে পিষে মেরেছে। শেষমেশ শেকড়ছাড়া করতে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে বসতভিটা। বর্মি সেনাদের নির্যাতন থেকে বাঁচাতে প্রচণ্ড খরতাপ বা তুফানের মধ্যে ঠিকানার খোঁজে গন্তব্যহীন পথে অবিরত হাঁটছে তারা। মাতৃভূমি ছেড়ে আজ তারা ভিন দেদেশে আশ্রয়ী।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- উপসম্পাদক আহমেদ দিপু ও এহসানুল হক বাবু, সিটি এডিটর বিএম জাহাঙ্গীর, প্রধান বার্তা সম্পাদক আব্দুর রহমান, চিফ রিপোর্টার মাসুদ করিম, যুগান্তর অনলাইন ইনচার্জ মিজানুর রহমান সোহেলসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের কর্মীরা।

বইটি পাওয়া যাচ্ছে একুশে বইমেলার বেহুলা বাঙলা স্টলে, স্টল নং (১৭৩-১৭৪)। এছাড়া বইটি সংগ্রহের জন্য ফোন করতে পারেন ০১৭২৩৭৫২৮৯৪ এই নম্বরে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter