মেলায় অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার বই

প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৭:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

সময় বদলেছে, বদলেছে তথ্য যাছাই-বাছাইয়ের পদ্ধতি, এমনকি জানার কৌশলও। সূত্র জানিয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, এমন সাংবাদিকতা এখন আর সাধারণ মানুষ নিতে চান না। বিশেষ করে তথ্য নিয়ে যারা খেলা করেন, তাদের কাছে এমন সাংবাদিকতার গ্রহণযোগ্যতা বা বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন।

ফলে বিশ্বাসযোগ্য সূত্রটা যেমন পাঠক জানতে চান, তেমনি সংবাদকে বস্তুনিষ্ঠ করতে নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাতটাও থাকা চাই। অনুসন্ধানী সাংবাদিকরা যা ইতোমধ্যে প্রমাণ করছেন। ফলে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা দিন দিন জনপ্রিয় এবং বিশ্বাসযোগ্য হয়ে উঠছে। চ্যালেঞ্জ হলেও এ দিকটায় এখন বাংলাদেশের মিডিয়া হাউজগুলো নজর দিয়েছে।

প্রশাসনিক নজরদারি এবং অঘোষিত সেন্সরশিপ, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার দাবিকে আরও  জোরালো করেছে। বাস্তবিক এসব বিষয় নিয়েই চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের ক্রাইম অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন সেলের প্রধান জি এম ফয়সাল আলমের সাংবাদিকতা বিষয়ক গ্রন্থ ‘টেলিভিশনে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা’ প্রকাশিত হয়েছে একুশে গ্রন্থমেলায়। শিক্ষা জীবন শেষে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী নবীনদের জন্য বইটি প্রকাশ করেছে ভাষাচিত্র। প্রচ্ছদ করেছেন খাইরুল সাঈদ। বইটি পাওয়া যাচ্ছে বইমেলায় ভাষাচিত্রের ৫৮৫-৮৭ নম্বর স্টলে।
 
বইটিতে লেখকের মাঠ পর্যায়ের অভিজ্ঞতা যেমন উঠে এসেছে তেমনি অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার নানা খুঁটিনাটি দিকও তুলে আনা হয়েছে। মিলবে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা নিয়ে হরেক প্রশ্নের উত্তরও।

বইটির লেখক জিএম ফয়সাল আলম টেলিভিশনে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় পরিচিত মুখ। জন্ম গাজীপুর জেলার সদর থানার বাসন গ্রামে। লেখক অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য ২০১৬ সালে টিআইবির সেরা অনুসন্ধানী রিপোর্টারের পুরস্কার পেয়েছেন। এছাড়াও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি ওয়ালটন ‘সেরা রিপোর্টার’ পুরস্কার এবং ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি-গ্রামীণফোন ‘সেরা রিপোর্টার’ পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি।