বইমেলায় সাদত আল মাহমুদের ‘এক আনা মন’
jugantor
বইমেলায় সাদত আল মাহমুদের ‘এক আনা মন’

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬:৪১:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

বইমেলায় সাদত আল মাহমুদের ‘এক আনা মন’

এবারের বইমেলায় বের হয়েছে সাদত আল মাহমুদের ইতিহাসভিত্তিক উপন্যাস ‘এক আনা মন’।

কাকলী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত বইটি বইমেলার প্যাভিলিয়ন নং -৭ এ পাওয়া যাচ্ছে।

লেখক বইটিতে বিট্রিশ শাসনামলের শেষ সময়কে বেছে নিয়েছেন। সৈয়দ আকবরের নর্তকীর মেয়ের সঙ্গে তার সন্তান যোবায়েরের প্রণয় ঘটে। যোবায়েরের সঙ্গে প্রণয়ের কারণে সৈয়দবাড়ির ভাসমান আশ্রয়টুকুও মমতাজ-নার্গিসকে হারাতে হয়। নর্তকীর মেয়ের সঙ্গে অসম সম্পর্ক গড়ে ওঠার ভয়ে সৈয়দ আকবর নিজ সন্তানকে কলকাতায় পড়তে পাঠায়। যোবায়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রি নিয়ে পুনরায় সরাইলে ফিরে নার্গিসের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে যায়। সৈয়দ আকবর ভয়ঙ্করভাবে তার স্বরূপ প্রকাশ করতে শুরু করে। মমতাজ-নার্গিস দুজনকেই নওগাঁ গ্রাম থেকে বিতাড়িত করে। মা-মেয়ে দু’জন ঢাকা শহরে আশ্রয় নেয়। যোবায়ের কলেজে শিক্ষকতা শুরু করে ঢাকার মেয়ে ইয়াসমিনকে বিয়ে করে। কয়েক বছর যেতেই ওদের দুজনের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। যোবায়েরের মতো নার্গিসও বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রি নেয়। ভারতবর্ষে সর্বত্র ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন জোরদার হতে থাকে। এ সময় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধও শুরু হয়। মার্কিন-ব্রিটিশ মিত্রবাহিনী গড়ে ওঠে।

ব্রিটিশ শাসনামলের সমাপ্তির পর ভারত-পাকিস্তান দুটি রাষ্ট্রের জন্ম হয়। যোবায়ের নার্গিস দীর্ঘদিন একাকী জীবনযাপন করে দুজনই নিজেদের জন্মস্থান সরাইলে ফিরে আসে। ফের দেখা হয় তাদের। এভাবেই গল্পের সমাপ্তি ঘটে।

বইমেলায় সাদত আল মাহমুদের ‘এক আনা মন’

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৪:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বইমেলায় সাদত আল মাহমুদের ‘এক আনা মন’
বইমেলায় সাদত আল মাহমুদের ‘এক আনা মন’

এবারের বইমেলায় বের হয়েছে সাদত আল মাহমুদের ইতিহাসভিত্তিক উপন্যাস ‘এক আনা মন’।

কাকলী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত বইটি বইমেলার প্যাভিলিয়ন নং -৭ এ পাওয়া যাচ্ছে।

লেখক বইটিতে বিট্রিশ শাসনামলের শেষ সময়কে বেছে নিয়েছেন।  সৈয়দ আকবরের নর্তকীর মেয়ের সঙ্গে তার সন্তান যোবায়েরের প্রণয় ঘটে। যোবায়েরের সঙ্গে প্রণয়ের কারণে সৈয়দবাড়ির ভাসমান আশ্রয়টুকুও মমতাজ-নার্গিসকে হারাতে হয়।  নর্তকীর মেয়ের সঙ্গে অসম সম্পর্ক গড়ে ওঠার ভয়ে সৈয়দ আকবর নিজ সন্তানকে কলকাতায় পড়তে পাঠায়। যোবায়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রি নিয়ে পুনরায় সরাইলে ফিরে নার্গিসের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে যায়। সৈয়দ আকবর ভয়ঙ্করভাবে তার স্বরূপ প্রকাশ করতে শুরু করে। মমতাজ-নার্গিস দুজনকেই নওগাঁ গ্রাম থেকে বিতাড়িত করে। মা-মেয়ে দু’জন ঢাকা শহরে আশ্রয় নেয়। যোবায়ের কলেজে শিক্ষকতা শুরু করে ঢাকার মেয়ে ইয়াসমিনকে বিয়ে করে। কয়েক বছর যেতেই ওদের দুজনের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। যোবায়েরের মতো নার্গিসও বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রি নেয়। ভারতবর্ষে সর্বত্র ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন জোরদার হতে থাকে। এ সময় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধও শুরু হয়। মার্কিন-ব্রিটিশ মিত্রবাহিনী গড়ে ওঠে।

ব্রিটিশ শাসনামলের সমাপ্তির পর ভারত-পাকিস্তান দুটি রাষ্ট্রের জন্ম হয়। যোবায়ের নার্গিস দীর্ঘদিন একাকী জীবনযাপন করে দুজনই নিজেদের জন্মস্থান সরাইলে ফিরে আসে।  ফের দেখা হয় তাদের।  এভাবেই গল্পের সমাপ্তি ঘটে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বইমেলা-২০২০