ইব্রাহীম খলিল জুয়েলের ৩ উপন্যাস দাগ কেটেছে পাঠকের মনে
jugantor
ইব্রাহীম খলিল জুয়েলের ৩ উপন্যাস দাগ কেটেছে পাঠকের মনে

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩:৫৩:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রতিশ্রুতিশীল লেখক, সাংবাদিক, ঔপন্যাসিক ইব্রাহীম খলিল জুয়েল আবার জ্বলে উঠেছেন। ফিরে এসেছেন তার প্রাণের অঙ্গন লেখালেখির জগতে।

এবার অমর একুশে বইমেলায় তার তিনটি উপন্যাস বেরিয়েছে। এগুলো হলো- ’চেনা মুখ অচেনা মানুষ’, ‘খুঁজে ফিরি’ এবং ‘নিশি’।

প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা তার উপন্যাসগুলো পাঠকের হৃদয় স্পর্শ করেছে। উপন্যাসগুলোতে তিনি তুলে ধরেছেন মানুষের মনের ক্ষুদ্র অনুভূতিগুলো।

যে অনুভূতিগুলো একসময় আনন্দে রূপ নেয়, রূপ নেয় ক্ষোভ, বিক্ষোভ, ক্রোধ ও উৎসবে। শতকষ্টেও বিবেক আর সহানুভূতিকে বিসর্জন দেন না- এমন মানুষ যেমন আছে, আবার মিথ্যে, ছলনা, ষড়যন্ত্রের জাল বিছিয়ে অন্যের জীবনকে বিপন্ন করে তোলে, এমন মানুষের চরিত্রও এঁকেছেন তার উপন্যাসগুলোতে।

তিনটি উপন্যাসেই ভাষা বেশ গতি পেয়েছে। বাক্যবিন্যাসও বেশ আকর্ষণীয়। শব্দচয়ন ও সংলাপ বেশ মার্জিত ও শানিত।

বই তিনটি পড়ে যেমনটি মনে হলো- কোনো একটি উপন্যাস শুরু করে শেষ করেননি এমন পাঠক কমই পাওয়া যাবে। 'চেনা মুখ অচেনা মানুষ’ ইব্রাহীম খলিল জুয়েলের তৃতীয় উপন্যাস।

এখানে তিনি তুলে ধরেছেন কিভাবে হঠাৎ করেই চারপাশের মানুষগুলো, খুব চেনা কাছের মানুষগুলো বদলে গেল। যেমনটি বদলে যায় অহরহ এ সমাজে-সংসারে।

তুলে ধরেছেন কর্পোরেট কালচার আর অফিস পলিটিক্সের নানা চিত্র। দূষিত অফিস রাজনীতি কীভাবে একজন মানুষের জীবনকে বিষিয়ে তুলতে পারে; শাহেদের গোছানো সংসারকে তছনছ করে স্লো পয়জনের মতো তার জীবনকে কীভাবে করে তুলল বিপন্ন তার চিত্র এঁকেছেন।



গল্পের বাঁকে বাঁকে এসেছে আরও নানা চরিত্র আর বৈচিত্র্যময় বিষয়। রয়েছে সমাজ-সংসারের আনন্দ, হাসি আর টানাপোড়েনের চিত্র।

‘খুঁজে ফিরি’ উপন্যাসে দেখিয়েছেন মফস্বল শহর থেকে ঢাকায় নাটকে অভিনয়ের সুযোগ পেতে আসা কলেজছাত্রী মিলি কীভাবে আটকে যায় ছলনার ফাঁদে। জীবন থেকে হারিয়ে যায় দুটি বছর।
এই সময়টি মিলিয়ে যায় কোনো এক কৃষ্ণগহবরে।

‘নিশি’ উপন্যাসে লেখক দেখিয়েছেন মাদকের নীল নেশার ধ্বংসাত্মক ছোঁবল থেকে কীভাবে ফিরে আসে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একদল তরুণ। এটি মাদকের কবল থেকে বেঁচে আসার গল্প। নতুন আশা আর স্বপ্ন নিয়ে নতুন করে বাঁচার গল্প।

যে গল্পের পেছনের কারিগর ইডেনে অনার্স পড়ুয়া ছাত্রী নিশি। যে মাদক গ্রহণকে কোনোভাবেই সমর্থন করেনি। তার দৃঢ় অবস্থান; অন্যদিকে নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন, প্রতিজ্ঞা আর ইচ্ছা শোভনকে ফিরিয়ে দেয় নতুন জীবন।

অমর একুশে গ্রন্থ মেলায় বাংলাদেশ রাইটার্স গিল্ডের স্টলে (স্টল নং ৪৮৪-৪৮৫) পাওয়া যাচ্ছে বই তিনটি। এ ছাড়া সারা বছর ধরে অনলাইন বুক শপ রকমারিডটকম (ROKOMARI.COM) এ পাওয়া যাবে বইগুলো। বই মেলায় তিনটি বই-ই পাঠকের ভালো সাড়া পেয়েছে।

ইব্রাহীম খলিল জুয়েলের ৩ উপন্যাস দাগ কেটেছে পাঠকের মনে

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০১:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রতিশ্রুতিশীল লেখক, সাংবাদিক, ঔপন্যাসিক ইব্রাহীম খলিল জুয়েল আবার জ্বলে উঠেছেন। ফিরে এসেছেন তার প্রাণের অঙ্গন লেখালেখির জগতে।

এবার অমর একুশে বইমেলায় তার তিনটি উপন্যাস বেরিয়েছে। এগুলো হলো- ’চেনা মুখ অচেনা মানুষ’, ‘খুঁজে ফিরি’ এবং ‘নিশি’।

প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা তার উপন্যাসগুলো পাঠকের হৃদয় স্পর্শ করেছে। উপন্যাসগুলোতে তিনি তুলে ধরেছেন মানুষের মনের ক্ষুদ্র অনুভূতিগুলো।

যে অনুভূতিগুলো একসময় আনন্দে রূপ নেয়, রূপ নেয় ক্ষোভ, বিক্ষোভ, ক্রোধ ও উৎসবে। শতকষ্টেও বিবেক আর সহানুভূতিকে বিসর্জন দেন না- এমন মানুষ যেমন আছে, আবার মিথ্যে, ছলনা, ষড়যন্ত্রের জাল বিছিয়ে অন্যের জীবনকে বিপন্ন করে তোলে, এমন মানুষের চরিত্রও এঁকেছেন তার উপন্যাসগুলোতে।

তিনটি উপন্যাসেই ভাষা বেশ গতি পেয়েছে। বাক্যবিন্যাসও বেশ আকর্ষণীয়। শব্দচয়ন ও সংলাপ বেশ মার্জিত ও শানিত।

বই তিনটি পড়ে যেমনটি মনে হলো- কোনো একটি উপন্যাস শুরু করে শেষ করেননি এমন পাঠক কমই পাওয়া যাবে। 'চেনা মুখ অচেনা মানুষ’ ইব্রাহীম খলিল জুয়েলের তৃতীয় উপন্যাস।

এখানে তিনি তুলে ধরেছেন কিভাবে হঠাৎ করেই চারপাশের মানুষগুলো, খুব চেনা কাছের মানুষগুলো বদলে গেল। যেমনটি বদলে যায় অহরহ এ সমাজে-সংসারে।

তুলে ধরেছেন কর্পোরেট কালচার আর অফিস পলিটিক্সের নানা চিত্র। দূষিত অফিস রাজনীতি কীভাবে একজন মানুষের জীবনকে বিষিয়ে তুলতে পারে; শাহেদের গোছানো সংসারকে তছনছ করে স্লো পয়জনের মতো তার জীবনকে কীভাবে করে তুলল বিপন্ন তার চিত্র এঁকেছেন।



গল্পের বাঁকে বাঁকে এসেছে আরও নানা চরিত্র আর বৈচিত্র্যময় বিষয়। রয়েছে সমাজ-সংসারের আনন্দ, হাসি আর টানাপোড়েনের চিত্র।

‘খুঁজে ফিরি’ উপন্যাসে দেখিয়েছেন মফস্বল শহর থেকে ঢাকায় নাটকে অভিনয়ের সুযোগ পেতে আসা কলেজছাত্রী মিলি কীভাবে আটকে যায় ছলনার ফাঁদে। জীবন থেকে হারিয়ে যায় দুটি বছর।
এই সময়টি মিলিয়ে যায় কোনো এক কৃষ্ণগহবরে।

‘নিশি’ উপন্যাসে লেখক দেখিয়েছেন মাদকের নীল নেশার ধ্বংসাত্মক ছোঁবল থেকে কীভাবে ফিরে আসে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একদল তরুণ। এটি মাদকের কবল থেকে বেঁচে আসার গল্প। নতুন আশা আর স্বপ্ন নিয়ে নতুন করে বাঁচার গল্প।

যে গল্পের পেছনের কারিগর ইডেনে অনার্স পড়ুয়া ছাত্রী নিশি। যে মাদক গ্রহণকে কোনোভাবেই সমর্থন করেনি। তার দৃঢ় অবস্থান; অন্যদিকে নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন, প্রতিজ্ঞা আর ইচ্ছা শোভনকে ফিরিয়ে দেয় নতুন জীবন।

অমর একুশে গ্রন্থ মেলায় বাংলাদেশ রাইটার্স গিল্ডের স্টলে (স্টল নং ৪৮৪-৪৮৫) পাওয়া যাচ্ছে বই তিনটি। এ ছাড়া সারা বছর ধরে অনলাইন বুক শপ রকমারিডটকম (ROKOMARI.COM) এ পাওয়া যাবে বইগুলো। বই মেলায় তিনটি বই-ই পাঠকের ভালো সাড়া পেয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বইমেলা-২০২০