অপ্রকাশিত সুফী কবিতা

প্রকাশ : ০৩ মে ২০১৮, ১৬:০১ | অনলাইন সংস্করণ

  রনি আহমেদ

১. 
বানালে এতো ক্ষুদ্র করে,
এই সময়ের, স্থানের 
এক নিবিড় সংগীত....
আল্লাহ, আমাদেরতো 
দেখাও যায় না!

অনু পরমাণুর চেয়েও ক্ষুদ্র...
ক্ষুদ্রতম অথবা 
যেন নেই আমরা!
অথচ এই দিল ভরা মহাকাশ!
বিশাল আর বড়
হবার কি পরীক্ষা 
তোমার সাথে মিলবো বলে!

আল্লাহ... আমাকে ক্ষুদ্রতর...
অদৃশ্য বানালে...
অথচ শ্রেষ্ঠ করে?

দূর আকাশে জিব্রাইল
সবুজ আলো জ্বেলে 
চলে গেলো!
এমন প্রেম আর কে দেবে আমায়?
এমন ভালোবাসায় উঠবে কেঁপে 
একটি জলের টুকরো 
অথবা গ্রহান্তরের সমুদ্রতল!

মনে পড়ে বারান্দায়
দাঁড়িয়ে আমি চা হাতে 
তোমাদের কিছু বলছিলাম!

আমি ছাড়া আর 
কেউ শোনেনি.....
আমাকে চলে যাওয়ার আগে 
বলতে হলো...
কিছু রাস্তা বাঁক নিলো 
নবীজির অপেক্ষায়...
অন্য রাস্তাগুলো তেমনি 
গাছের ডাল হয়ে দুললো
জিব্রাইলের ডানার ঝাপটায়।

ভালো থেকো 
চিঠি লিখো...
ঝরে যাওয়া পাতাগুলোর 
মুখে। 

২. 
এখানে শব্দের শেষ। 
নিরুদ্দেশ কিছু আকাশের বাড়ি
তোমাকে পেয়েছিল একা!
এমন করে কে গাইলো
অন্যের গলায় ?

দাবার একটি বোর্ড পড়ে থাকে... 
রাজা ঘুমায় সাদা ও কালোয় 
মহা বিশ্বের স্বর্গ তক্তিতে!

খুঁজে পাও নিজেকে ,
যে কথা বলে সেই সত্য।
মানুষ সত্য বলে আর 
কোনো কিছুই মিথ্যে হতে পারে না।

যা ভাবো তাই সত্য হয়ে যায়। 
যা বলো তাই সত্য হয়ে যায়
কারণ মানুষ সত্য।

আল্লাহর বিচারে 
মানুষতো সত্যই!
তবু কেন মিথ্যে বলো ?
কেন বোঝোনা এখানে 
কাঁচের গাড়িগুলো এসে থামে!

ক্ষুধার্থ ভিক্ষুকদের
রুটি দেয় সেই গাড়ি...
দাঁড়ানো একটি লোক 
হাতে তার মশাল ও রুটি।

বহু রাতে ভিক্ষুকরা আসে 
কেউ ছদ্দবেশে , কেউ একা,
কেউ নীরবে। 
আর কেউ আসে না ,
আমি তাদের নাম জানি 
আর জানে তিনি।

সেজদা দাও... 
নক্ষত্রের জায়নামাজে। 
বহুকাল ধরে সেজদা দাও!
ভুলে যাও...
যেন শুধু সেজদা ছাড়া 
তুমি আর কিছু নয়!

৩.
রূহ' এর শহর
কত না নিঃশব্দের!
আমাকে বলেছিলেন
একটি নদীর পাশে
কেউ এসে দাঁড়াবে,
আর সময়গুলো
ঘুরতে থাকবে
চক্রমান দরবেশের সাথে।

মহাবিশ্ব এক হবে...
আল্লাহর মহিমায় উঠলো যিকর!
আলো আর বাতাসের সে কি উচ্ছাস ;
সেকি অপরিসীম আনন্দ!
যদি তোমরা একটু বুঝতে!

যেন হিমালয় এসে দাঁড়ালো দরজায়...
এই সকালটা মনে রেখো
আতরের গন্ধে হারানো!

কিছু দিনলিপি...
আর বিষন্ন তার ইতিহাস
থেকে উঠে আশা নর -নারী।

আবার কোনো একদিন
জলযোগের টেবিলে
পড়ে থাকবে একটি চিরকুট।

মহানবীর আলোয় অন্ধ
হয়ে যাওয়া মানুষ আমি,
দেখি সকল সৃষ্টির চেয়ে বেশি।

অথচ আমি বলেই কেউ নেই....
কেউ ছিলোনা!

যা ছিল তোমাদের
তুমিত্বের একটি অভিলাষ;
তোমাদের তুমিত্বের একটি
আমিত্বের চাহিদা।
আর স্বপ্ণে পাওয়া
কিছু রুবি জ্বলছে আকাশের তারায়...
যা আল্লাহর প্রতীক্ষায় নীল হয়েছে!

আর তিনি এলেন হঠাৎ!
আর ছোট একটি বাক্স
তাতে ভরা সবুজ কিছু রুবি...
দিলেন আমায়।

আমার আমির গান
শিশুরা নিয়ে গেছে
গ্রহান্তরের কোনো দোকানে।

সাঁই বাবার এই উপহারে
দিনটি হলো শুরু!
নামাজ পড়
দীর্ঘ সেজদায় ...