প্রকাশিত হচ্ছে কবি রফিক আজাদ-রচনাবলি
jugantor
প্রকাশিত হচ্ছে কবি রফিক আজাদ-রচনাবলি

  সাংস্কৃতিক প্রতিবেদন  

১৮ জুলাই ২০২২, ২০:২৫:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলা কবিতার অনন্য ও স্বতন্ত্র কণ্ঠস্বর কবি রফিক আজাদ (১৯৪৩-২০১৬)। বিগত শতকের ষাটের দশকে যে কজন কবি তাদের সৃষ্টির অভিনবত্বে বাংলা কবিতায় স্থায়ী আসনের প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছিলেন রফিক আজাদ তাদের অন্যতম।

'অসম্ভবের পায়ে', 'সীমাবদ্ধ জলে সীমিত সবুজে', 'চুনিয়া আমার আর্কেডিয়া', 'সশস্ত্র সুন্দর', 'মৌলভীর মন ভালো নেই'-এর মতো অবিস্মরণীয় কবিতাগ্রন্থ কিংবা 'কোনো খেদ নেই'-এর মতো অসামান্য আত্মজীবনী অথবা 'গদ্যের গহন অরণ্যে'-এর মতো প্রবন্ধ গ্রন্থ তার সৃষ্টিশীলতার স্বর্ণস্বাক্ষর। বিদেশি কবিতার বাংলা অনুবাদেও তিনি ছিলেন সিদ্ধহস্ত।

এদেশে লিটল ম্যাগাজিন আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ রফিক আজাদ 'উত্তরাধিকার', 'রোববার' কিংবা 'ঘরে-বাইরে'-এর মতো পত্রিকা সম্পাদনাকালে বহু তরুণ কবি-লেখকের সাহিত্যচর্চায় প্রেরণা হিসেবে কাজ করেছেন। তার সম্পাদনায় প্রকাশিত বাংলা একাডেমির 'উত্তরাধিকার' পত্রিকার 'বুদ্ধদেব বসু সংখ্যা' দুই বাংলায় সমানভাবে আদৃত হয়। কবিতা ও জীবনের সীমানাভাঙা কবি রফিক আজাদ বাংলাভাষী পাঠকের কাছে সদা-স্মরণীয় হয়ে আছেন তার বহু কালজয়ী পঙক্তির মধ্য দিয়ে৷ ' যদি ভালোবাসা পাই আবার শুধরে নেব জীবনের সব ভুলগুলো', 'সুন্দর সাম্পানে চড়ে মাধবী এসেই বলে যাই', 'এই সিঁড়ি পৌঁছে গেছে বঙ্গোপসাগরে' এর মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য।

বাংলা সাহিত্যের বরেণ্য কবি রফিক আজাদের সমুদয় রচনার সংকলন 'রফিক আজাদ-রচনাবলি' খণ্ডাকারে প্রকাশ করছে প্রকাশনা-সংস্থা 'ঐতিহ্য'। এই রচনাবলিতে তার প্রকাশিত-অপ্রকাশিত কবিতা, গদ্য, চিঠিপত্র ইত্যাদির সন্নিবেশ ঘটবে৷

'রফিক আজাদ-রচনাবলি' প্রকাশের বিষয়ে আজ ১৮ জুলাই ২০২২ সোমবার সকালে পুরানা পল্টনের 'ঐতিহ্য' কার্যালয়ে 'কবি রফিক আজাদ স্মৃতি পর্ষদ' এবং 'ঐতিহ্য'-এর মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। 'কবি রফিক আজাদ স্মৃতি পর্ষদ'-এর পক্ষে কবি-পত্নী অধ্যাপক দিলারা হাফিজ এবং 'ঐতিহ্য'-এর পক্ষে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী আরিফুর রহমান নাইম চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ কবি রফিক আজাদের ৮১তম জয়ন্তীতে আনুষ্ঠানিকভাবে 'রফিক আজাদ-রচনাবলি' প্রকাশিত হবে।

প্রকাশিত হচ্ছে কবি রফিক আজাদ-রচনাবলি

 সাংস্কৃতিক প্রতিবেদন 
১৮ জুলাই ২০২২, ০৮:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলা কবিতার অনন্য ও স্বতন্ত্র কণ্ঠস্বর কবি রফিক আজাদ (১৯৪৩-২০১৬)। বিগত শতকের ষাটের দশকে যে কজন কবি তাদের সৃষ্টির অভিনবত্বে বাংলা কবিতায় স্থায়ী আসনের প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছিলেন রফিক আজাদ তাদের অন্যতম।

'অসম্ভবের পায়ে', 'সীমাবদ্ধ জলে সীমিত সবুজে', 'চুনিয়া আমার আর্কেডিয়া', 'সশস্ত্র সুন্দর', 'মৌলভীর মন ভালো নেই'-এর মতো অবিস্মরণীয় কবিতাগ্রন্থ কিংবা 'কোনো খেদ নেই'-এর মতো অসামান্য আত্মজীবনী অথবা 'গদ্যের গহন অরণ্যে'-এর মতো প্রবন্ধ গ্রন্থ তার সৃষ্টিশীলতার স্বর্ণস্বাক্ষর। বিদেশি কবিতার বাংলা অনুবাদেও তিনি ছিলেন সিদ্ধহস্ত।

এদেশে লিটল ম্যাগাজিন আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ রফিক আজাদ 'উত্তরাধিকার', 'রোববার' কিংবা 'ঘরে-বাইরে'-এর মতো পত্রিকা সম্পাদনাকালে বহু তরুণ কবি-লেখকের সাহিত্যচর্চায় প্রেরণা হিসেবে কাজ করেছেন। তার সম্পাদনায় প্রকাশিত বাংলা একাডেমির 'উত্তরাধিকার' পত্রিকার 'বুদ্ধদেব বসু সংখ্যা' দুই বাংলায় সমানভাবে আদৃত হয়। কবিতা ও জীবনের সীমানাভাঙা কবি রফিক আজাদ বাংলাভাষী পাঠকের কাছে সদা-স্মরণীয় হয়ে আছেন তার বহু কালজয়ী পঙক্তির মধ্য দিয়ে৷ ' যদি ভালোবাসা পাই আবার শুধরে নেব জীবনের সব ভুলগুলো', 'সুন্দর সাম্পানে চড়ে মাধবী এসেই বলে যাই', 'এই সিঁড়ি পৌঁছে গেছে বঙ্গোপসাগরে' এর মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য।

বাংলা সাহিত্যের বরেণ্য কবি রফিক আজাদের সমুদয় রচনার সংকলন 'রফিক আজাদ-রচনাবলি' খণ্ডাকারে প্রকাশ করছে প্রকাশনা-সংস্থা 'ঐতিহ্য'। এই রচনাবলিতে তার প্রকাশিত-অপ্রকাশিত কবিতা, গদ্য, চিঠিপত্র ইত্যাদির সন্নিবেশ ঘটবে৷

'রফিক আজাদ-রচনাবলি' প্রকাশের বিষয়ে আজ ১৮ জুলাই ২০২২ সোমবার সকালে পুরানা পল্টনের 'ঐতিহ্য' কার্যালয়ে 'কবি রফিক আজাদ স্মৃতি পর্ষদ' এবং 'ঐতিহ্য'-এর মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। 'কবি রফিক আজাদ স্মৃতি পর্ষদ'-এর পক্ষে কবি-পত্নী অধ্যাপক দিলারা হাফিজ এবং 'ঐতিহ্য'-এর পক্ষে প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী আরিফুর রহমান নাইম  চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ কবি রফিক আজাদের ৮১তম জয়ন্তীতে আনুষ্ঠানিকভাবে 'রফিক আজাদ-রচনাবলি' প্রকাশিত হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন