এবার ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য’ পুরস্কার পাচ্ছেন হাসনাত আবদুল হাই ও নাহিদা নাহিদ
jugantor
এবার ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য’ পুরস্কার পাচ্ছেন হাসনাত আবদুল হাই ও নাহিদা নাহিদ

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার  

৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৪৬:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

এবার ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য’ পুরস্কার পাচ্ছেন হাসনাত আবদুল হাই ও নাহিদা নাহিদ

এক্সিম ব্যাংক-অন্যদিন হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য পুরস্কার ২০২০ ঘোষণা করা হয়েছে। এই বছর এ পুরস্কার পাচ্ছেন সাহিত্যে সামগ্রিক অবদানের জন্য প্রবীণ কথাশিল্পী হাসনাত আবদুল হাই এবং নবীন সাহিত্যশ্রেণিতে নাহিদা নাহিদ। তারা পুরস্কার হিসেবে পাবেন যথাক্রমে পাঁচ লাখ এবং এক লাখ টাকা।

এছাড়া প্রদান করা হবে ক্রেস্ট, উত্তরীয় এবং সার্টিফিকেট। আগামী ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে হাসনাত আবদুল হাই এবং নাহিদা নাহিদের হাতে।

ছয় দশক ধরে হাসনাত আবদুল হাই লিখছেন। তার লেখার প্রধান বৈশিষ্ট্য হল, বৈচিত্র্য। গতানুগতিকতা ও পৌনঃপুনিকতা পরিহার করে নতুনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা। তার গল্প উপন্যাসে মূর্ত হয়ে উঠে আর্থ-সামাজিক-রাজনৈতিক বিষয়-আশয়, মানুষের যাপিত জীবন, প্রেম ইত্যাদি। তিনি এ দেশের সাহিত্যে জীবনীভিত্তিক উপন্যাসের ধারার প্রচলন করেছেন। ভ্রমণকাহিনীতে রেখেছেন নিজস্বতার ছাপ। উন্নয়ন অর্থনীতি এবং সামাজিক প্রেক্ষাপট, নন্দনতত্ত্ব এবং রাজনীতি নিয়েও তিনি লিখেছেন সমান উদ্দীপনায়।

নাহিদা নাহিদ। প্রতিশ্রুতিশীল এক গল্পকার। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর করেছেন। তার লেখালেখির সূচনা দৈনিক ভোরের কাগজে প্রকাশিত ‘নারকেল পাতার চশমা’ শিরোনামের ছোটগল্প দিয়ে। প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘অলকার ফুল’। এরপর প্রকাশিত হয়েছে আরও দুটি গল্পগ্রস্থ- ‘যূথচারী আঁধারের গল্প’ এবং ‘পুরুষপাঠ’।

নাহিদা নাহিদ ইতোপূর্বে পেয়েছেন ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’। এবার ‘পুরুষপাঠ’ গল্পগ্রন্থের জন্য নবীন সাহিত্যশ্রেণিতে ‘এক্সিম ব্যাংক-অন্যদিন হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য পুরস্কার ২০২০’ পাচ্ছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে এই দুটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছিলেন যথাক্রমে শওকত আলী এবং সাদিয়া মাহ্জাবীন ইমাম। ২০১৬ সালে পুরস্কৃত হয়েছিলেন হাসান আজিজুল হক এবং স্বকৃত নোমান।

অন্যদিকে ২০১৭ সালে এই পুরস্কার তুলে দেয়া হয়েছিল জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত এবং মোজাফ্ফর হোসেনের হাতে। ২০১৮ সালে পুরস্কৃত হয়েছিলেন রিজিয়া রহমান এবং ফাতিমা রুমি। আর ২০১৯ সালে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছিল রাবেয়া খাতুন এবং সাদাত হোসাইনকে।

এবার ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য’ পুরস্কার পাচ্ছেন হাসনাত আবদুল হাই ও নাহিদা নাহিদ

 সাংস্কৃতিক রিপোর্টার 
৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
এবার ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য’ পুরস্কার পাচ্ছেন হাসনাত আবদুল হাই ও নাহিদা নাহিদ
হাসনাত আবদুল হাই ও নাহিদা নাহিদ।

এক্সিম ব্যাংক-অন্যদিন হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য পুরস্কার ২০২০ ঘোষণা করা হয়েছে।  এই বছর এ পুরস্কার পাচ্ছেন সাহিত্যে সামগ্রিক অবদানের জন্য প্রবীণ কথাশিল্পী হাসনাত আবদুল হাই এবং নবীন সাহিত্যশ্রেণিতে নাহিদা নাহিদ।  তারা পুরস্কার হিসেবে পাবেন যথাক্রমে পাঁচ লাখ এবং এক লাখ টাকা। 

এছাড়া প্রদান করা হবে ক্রেস্ট, উত্তরীয় এবং সার্টিফিকেট।  আগামী ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে হাসনাত আবদুল হাই এবং নাহিদা নাহিদের হাতে।

ছয় দশক ধরে হাসনাত আবদুল হাই লিখছেন।  তার লেখার প্রধান বৈশিষ্ট্য হল, বৈচিত্র্য।  গতানুগতিকতা ও পৌনঃপুনিকতা পরিহার করে নতুনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা।  তার গল্প উপন্যাসে মূর্ত হয়ে উঠে আর্থ-সামাজিক-রাজনৈতিক বিষয়-আশয়, মানুষের যাপিত জীবন, প্রেম ইত্যাদি।  তিনি এ দেশের সাহিত্যে জীবনীভিত্তিক উপন্যাসের ধারার প্রচলন করেছেন।  ভ্রমণকাহিনীতে রেখেছেন নিজস্বতার ছাপ।  উন্নয়ন অর্থনীতি এবং সামাজিক প্রেক্ষাপট, নন্দনতত্ত্ব এবং রাজনীতি নিয়েও তিনি লিখেছেন সমান উদ্দীপনায়।

নাহিদা নাহিদ।  প্রতিশ্রুতিশীল এক গল্পকার।  জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর করেছেন।  তার লেখালেখির সূচনা দৈনিক ভোরের কাগজে প্রকাশিত ‘নারকেল পাতার চশমা’ শিরোনামের ছোটগল্প দিয়ে।  প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘অলকার ফুল’। এরপর প্রকাশিত হয়েছে আরও দুটি গল্পগ্রস্থ- ‘যূথচারী আঁধারের গল্প’ এবং ‘পুরুষপাঠ’। 

নাহিদা নাহিদ ইতোপূর্বে পেয়েছেন ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’।  এবার ‘পুরুষপাঠ’ গল্পগ্রন্থের জন্য নবীন সাহিত্যশ্রেণিতে ‘এক্সিম ব্যাংক-অন্যদিন হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য পুরস্কার ২০২০’ পাচ্ছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে এই দুটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছিলেন যথাক্রমে শওকত আলী এবং সাদিয়া মাহ্জাবীন ইমাম। ২০১৬ সালে পুরস্কৃত হয়েছিলেন হাসান আজিজুল হক এবং স্বকৃত নোমান। 

অন্যদিকে ২০১৭ সালে এই পুরস্কার তুলে দেয়া হয়েছিল জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত এবং মোজাফ্ফর হোসেনের হাতে।  ২০১৮ সালে পুরস্কৃত হয়েছিলেন রিজিয়া রহমান এবং ফাতিমা রুমি।  আর ২০১৯ সালে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছিল রাবেয়া খাতুন এবং সাদাত হোসাইনকে।