সিলেটে মাওলানা হাবীবুর রহমানের জানাজায় জনতার ঢল

  সিলেট ব্যুরো ২০ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

সিলেটে মাওলানা হাবীবুর রহমানের জানাজায় জনতার ঢল
সিলেটে মাওলানা হাবীবুর রহমানের জানাজায় জনতার ঢল-ছবি সংগৃহীত

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের (একাংশ) আমীর ও সিলেটের জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া কাজীরবাজার মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবীবুর রহমান আর নেই। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। তিনি উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস ও হৃদরোগে ভুগছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ি ইউনিয়নের ঘনশ্যাম গ্রামে।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠে মরহুমের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজে ইমামতি করেন মরহুমের দ্বিতীয় ছেলে মাওলানা ইউসুফ। পরে নগরীর ঐতিহ্যবাহী কাজীরবাজার মাদরাসার পাশে তাকে দাফন করা হয়।

সিলেটের বিশিষ্ট আলেম প্রিন্সিপাল হাবিবুর রহমানের জানাজা উপলক্ষে সিলেট আলিয়া মাদরাসা মাঠে লাখো জনতার ঢল নামে। জুমার নামাজ শেষে নগরীর বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা থেকে লোকজন আলিয়া মাদরাসায় আসতে থাকেন। জানাজার নামাজের নির্ধারিত সময়ের আগেই মাঠ ভরে যায়। পরে মাঠের চার পাশের খালি জায়গায় ও চৌহাট্টা রিকাবীবাজার সড়কে দাঁড়িয়ে মানুষ জানাজায় অংশগ্রহণ করেন।

নামাজের পূর্বে মরহুমের জীবনী নিয়ে দেশ বরেণ্যে রাজনীতিবিদ, আলেম-উলামারা বক্তব্য রাখেন। এ সময় তারা বলেন, প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবিবুর রহমান ছিলেন একজন সংগ্রামী আলেমে দ্বীন ও বহুগুণে গুণান্বিত শ্রদ্ধাভাজন মানুষ। দ্বীনি শিক্ষার প্রচার-প্রসার ও বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে তার অবদান অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তার মৃত্যুতে ইসলামি রাজনৈতিক অঙ্গনের অপূরণীয় ক্ষতি হল। বক্তারা মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সিটি মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া এমপি, মাওলানা শফিকুল হক আমকুনি, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, সিলেট সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মরহুমের ঘনিষ্ট বন্ধু বাবরুল হোসেন বাবুল, মরহুমের বড় ছেলে জামেয়া মাদানিয়া কাজির বাজার মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা মুসা বিন হাবীব।

এক নজরে প্রিন্সিপাল হাবিব

সিলেটে ইসলামি আন্দোলনের অন্যতম কিংবদন্তি, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর, জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া কাজিরবাজার মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবিবুর রহমান ১৯৪৯ সালে সিলেটের গোলাপগঞ্জে জন্ম গ্রহণ করেন। ১৯৭৪ সালের জুনে দেশের শীর্ষ আলেমদের তত্ত্বাবধানে সিলেটের কাজির বাজার এলাকায় সুরমা নদীর তীরে প্রতিষ্ঠা করেন ঐতিহ্যবাহী জামেয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া কাজির বাজার মাদরাসা। দারুল উলুম দেওবন্দের নীতিতে পরিচালিত এই মাদরাসা শুরু থেকেই সিলেবাসে বাংলা, ইংরেজিসহ জাগতিক বিষয় যুক্ত করে নতুন ধারার সূচনা করেন।

১৯৯৪ সালে বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ডাক দিয়ে সারা দেশে ধর্মপ্রাণ মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হন প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবীবুর রহমান। তার সংগঠন সাহাবা সৈনিক পরিষদের ব্যানারে সিলেটে অসংখ্য সভা-সমাবেশ করেন। তিনি দেশের নাস্তিক-মুরতাদ বিরোধী আন্দোলনে সবসময়ই অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।

অবিভক্ত জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের রাজনীতি থেকে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ খেলাফত মসজিলের আমীর নির্বাচিত হন প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমান। ২০১২ সালে ইসলামি ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর শায়খুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক মৃত্যুবরণ করার পরে তিনি আমীর নিযুক্ত হন।

ব্যক্তিগত জীবনে তিনি চার ছেলে ও তিন কন্যা সন্তানের জনক। তার বড় ছেলে মাওলানা মুসা বিন হাবীব জামেয়া মাদানিয়া কাজির বাজার মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপাল। দ্বিতীয় ছেলে মাওলানা ইউসুফ ইংল্যান্ড প্রবাসী। তৃতীয় ছেলে তারেক বিন হাবীব সিলেট মহানগর ছাত্র মজলিসের সভাপতি, চতুর্থ ছেলে তায়েফ বিন হাবীব ইংল্যান্ড প্রবাসী। তার বড় জামাতা মাওলানা তাজুল ইসলাম, দ্বিতীয় জামাতা মাওলানা আতাউর রহমান ইংল্যান্ড প্রবাসী, ছোট জামাতা মাওলানা সহল আল রাজি ব্যবসায়ী ও সিলেট জেলা পরিষদের সদস্য।

কওমি মাদরাসার প্রধানের পরিচয় মুহতামিম হলেও, তিনি খ্যাতি পেয়েছিলেন প্রিন্সিপাল হিসেবে। তিনি গোলাপগঞ্জের ফুলবাড়িয়া আলিয়া মাদরাসায় ফাজিল পর্যন্ত পড়াশুনা করেন। সিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসা থেকে তিনি কামিল সম্পন্ন করেন।

বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ

মাওলানা হাবীবুর রহমানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। তারা পৃথক শোক বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter