শ্রীলংকায় কোনো প্রধানমন্ত্রী কিংবা মন্ত্রিপরিষদ নেই

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১৩:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

শ্রীলংকায় কোনো প্রধানমন্ত্রী কিংবা মন্ত্রিপরিষদ নেই
মাহিন্দা রাজাপাকসে। ছবি:সংগৃহীত

শ্রীলংকায় এখন কোনো প্রধানমন্ত্রী কিংবা মন্ত্রিপরিষদ নেই বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির পার্লামেন্টের স্পিকার কারু জয়সুরিয়া। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার নিয়োগ দেয়া প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সংখ্যাগরিষ্ঠ সংসদ সদস্য অনাস্থা জানানোয় এমনটি হয়েছে।

বুধবার পার্লামেন্টে নতুন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে ও তার সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব পাস হওয়ার পর দিন স্পিকার এ মত দিয়েছেন।-খবর রয়টার্সের।

গত মাসের শেষ দিকে রনিল বিক্রমাসিংহেকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করে ওই পদে মাহিন্দা রাজাপাকসেকে স্থলাভিষিক্ত করেন লংকান প্রেসিডেন্ট।

তার এ পদক্ষেপ পর্যাপ্ত সমর্থন পাবে না বুঝতে পেরে পরে এক ডিক্রিতে পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের তারিখও ঘোষণা করেছিলেন ইউনাইটেড পিপলস ফ্রিডম অ্যালায়েন্সের (ইউপিএফএ) নেতা প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা।

ডিক্রির বিষয়ে বিরোধীরা আদালতে গেলে মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্ট প্রেসিডেন্টের ওই আদেশ স্থগিত করে দেন। এর পর বুধবার পার্লামেন্ট অধিবেশন বসে।

সেখানে ২২৫ সদস্যের মধ্যে ১২২ জনই রাজাপাকসে ও তার সরকারের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবে সমর্থন জানান।

পার্লামেন্ট এমন অবস্থান নিলেও তা মেনে নেননি সিরিসেনা। কারু জয়সুরিয়ার কাছে লেখা এক চিঠিতে তিনি বলেছেন-স্পিকার পার্লামেন্টের নিয়মনীতি, ঐতিহ্য ও সংবিধানকে অবজ্ঞা করেছেন বলে মনে হওয়ায় তিনি বুধবারের অনাস্থা ভোটের ফল গ্রহণ করতে পারছেন না।

শ্রীলংকায় সরকারব্যবস্থায় প্রেসিডেন্টই সবচেয়ে বেশি ক্ষমতাধর। এখানে প্রধানমন্ত্রী পার্লামেন্টের নেতৃত্বে থাকলেও নির্বাহী ক্ষমতা থাকে প্রেসিডেন্টের হাতে। মন্ত্রিসভাও তার অধীনেই পরিচালিত হয়।

২০০৫ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট থাকা রাজপাকসের মন্ত্রিসভার একজন সদস্য ছিলেন সিরিসেনা। পরে রাজাপাকসের ছায়া থেকে বেরিয়ে এসে তার বিরুদ্ধেই প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দাঁড়ান এ ইউপিএফএ নেতা।

সেই সময় তাকে সমর্থন দেন বিক্রমাসিংহে; দুজনের জোট পরে সংসদেও সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে দিল্লির সঙ্গে বিক্রমাসিংহের ইউএনপির ঘনিষ্ঠতা এবং সিরিসেনাকে হত্যায় ভারতীয় গুপ্তচর সংস্থার জড়িত থাকার অভিযোগ নিয়ে দলটির সঙ্গে ইউপিএফএর মিত্রতায় ছেদ পড়ে। এর পরই একসময়ের মিত্র রাজাপাকসের দিকে ঝুঁকে পড়েন সিরিসেনা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×